১৫ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বাংলাদেশকে নিয়ে পাকিস্তান শিবিরে ভয়

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ এশিয়া কাপে সুপার ফোরের শেষ ম্যাচে বাংলাদেশের মুখোমুখি হবে পাকিস্তান। টানা জয়ে এরই মধ্যে ফাইনাল নিশ্চিত করেছে ভারত। আফগানিস্তানকে ছিটকে দিয়ে শিরোপার দৌড়ে টাইগাররা। বুধবার বাংলাদেশ-পাকিস্তান ম্যাচটা তাই অঘোষিত সেমিফাইনাল। না প্রতিপক্ষ নয়, বরং আফগানিস্তানের বিপক্ষে হারতে হারতে জয় আর ভারতের কাছে দুটি ম্যাচে বিধ্বস্ত পাকিস্তান এখন নিজেদের আত্মবিশ্বাস নিয়েই সন্দিহান। খোদ প্রধান কোচ মিকি আর্থার শিষ্যদের জন্য দ্রুত আত্মবিশ্বাস ফেরানোর টোটকা খুঁজছেন, ‘এই মুহূর্তে দলের খেলোয়াড়দের মধ্যে আত্মবিশ্বাসের সঙ্কট চলছে। ড্রেসিংরুমে ব্যর্থতার ভয় কিছুটা হলেও গ্রাস করেছে। ক্রিকেট দল হিসেবে আসলেই এখন আমরা কী অবস্থায় আছি, সেটাই আমরা এখন বুঝতে পারছি।’ বলেন তিনি।

অবশ্য আশার কথাও শুনিয়েছেন আর্থার, ‘৯ উইকেটে হেরে যাওয়া দলের খারাপ পারফর্মেন্সের একটি হয়ে থাকবে। তবে আমাদের এখানেই থেমে যাওয়ার তো উপায় নেই। এগিয়ে যেতে হবে। আমরা এর চেয়ে অনেক ভাল আর শক্তিশালী হয়ে ফিরে আসব।’ পরশু সুপার ফোরে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ভারতের কাছে লজ্জাজনক ভাবে হারের পর বলেন পাকিস্তান কোচ। আর্থার কোন রাখঢাক না করেই বলেছেন, ভয় ঢুকে গেছে পাকিস্তান শিবিরে। দলের আত্মবিশ্বাসের সঙ্কটের উদাহরণও দিয়েছেন তিনি। চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির ফাইনালে অখ্যাত ফখর জামানের কাছে বিধ্বস্ত হয়েছিল বিরাট কোহলির ভারত। সেই ফখর জামানকে এবার পাল্টা হিসাব চুকিয়ে দিয়েছে। ফখর যেন রান করতেই হাঁসফাঁস অবস্থা। আর্থার এই উদাহরণ টেনে বলেছেন, ‘ক্রিকেট হচ্ছে আত্মবিশ্বাসের খেলা। ফখর জামানকে দেখুন। আমরা জানি ও কতটা অবিশ্বাসী খেলোয়াড়। পার্থক্য গড়ে দেয়ার মতো খেলোয়াড় সে। আমরা প্রত্যাশা করি ও বাংলাদেশ ম্যাচে ও আমাদের ভাল শুরু এনে দেবে। কিন্তু এই মুহূর্তে নিজের খেলা নিয়ে ওর মধ্যে যেন দ্বিধাদ্বন্দ্ব চলছে।’

টানা ২৫ ম্যাচ হারের পর ২০১৫ সালে পাকিস্তানের বিপক্ষে সিরিজ জিতেছিল বাংলাদেশ। এরপর আর দুই দলের দেখা হয়নি ওয়ানডেতে। প্রায় সাড়ে তিন বছর পর আবার মুখোমুখি হচ্ছে দুই দল। বুধবার অলিখিত সেমিফাইনালের আগে মুখোমুখি লড়াইয়ের আগে প্রতিপক্ষ কোচের এমন বক্তব্য টাইগার শিবিরে বাড়তি আত্মবিশ্বাস যোগবে। ভারতের বিপক্ষে পর পর দুই ম্যাচে এভাবে নাকানিচুবানি খেতে হবে, তারা ভাবেনি। এই ভারতকে হারিয়েই বছরখানেক আগে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি জিতেছিল পাকিস্তান। সেই দলটাকেই এবারের এশিয়া কাপে কেমন যেন ছন্নছাড়া দেখাচ্ছে। কাল তো পাকিস্তানের দেয়া ২৩৮ রানের লক্ষ্য ভারতের দুই ওপেনারই খেয়ে ফেললেন প্রায়। রোহিত শর্মা আর শিখর ধাওয়ান দুজনই করেছেন সেঞ্চুরি। উদ্বোধনী জুটিতে ২১০ রান উঠে গেলে বোলারদের ঘামের সঙ্গে সঙ্গে মানসিক শক্তির শেষ বিন্দুটাও তো বেরিয়ে যায়!

মিকি আর্থার সে কথাই বলেছেন। শুধু তো ব্যাটে নয়, বোলিংয়েও পাকিস্তানের অন্যতম ভরসা মোহাম্মদ আমিরের অবস্থা যাচ্ছেতাই। টানা ৫ ওয়ানডেতে উইকেট শূন্য আমির।