২২ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

শেয়ারবাজারে বড় ধস

  • ডিএসইতে লেনদেন ৫৮০ কোটি টাকা ॥ সিএসইতে লেনদেন ৩৫ কোটি টাকা

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ রবিবারের ধারাবাহিকতায় সোমবারও দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) এবং অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) বড় ধস হয়েছে। ডিএসইর প্রধান মূল্যসূচক ডিএসইএক্স এবং সিএসইর সার্বিক মূল্যসূচক সিএসসিএক্স কমেছে এক শতাংশের বেশি। এদিন সবকটি খাতেরই বেশিরভাগ শেয়ার ও ইউনিটের দরপতন হয়েছে।

ডিএসইতে লেনদেনে অংশ নেয়া মাত্র ৪৯টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম আগের দিনের তুলনায় বেড়েছে। বিপরীতে দাম কমার তালিকায় স্থান করে নিয়েছে ২৬৫টি প্রতিষ্ঠান। আর অপরিবর্তিত রয়েছে ২৩টির। বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম কমায় ডিএসইএক্স আগের দিনের তুলনায় ৫৭ পয়েন্ট কমে ৫ হাজার ৩৫৭ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। এর মাধ্যমে টানা তিন কার্যদিবসে পতনের ফলে ডিএসইর প্রধান মূল্যসূচকটি কমল প্রায় দেড় শ’ পয়েন্ট। ডিএসইর অপর দুটি মূল্যসূচকের মধ্যে সোমবার ডিএসই-৩০ আগের দিনের তুলনায় ১৩ পয়েন্ট কমে ১ হাজার ৮৮৩ পয়েন্টে অবস্থান করছে। আর ডিএসই শরীয়াহ্ সূচক ১৬ পয়েন্ট কমে ১ হাজার ২৩৩ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম কমায় আজ ডিএসইর বাজার মূলধন কমেছে প্রায় ৪ হাজার কোটি টাকা। দিনের লেনদেন শেষ ডিএসইর বাজার মূলধন দাঁড়িয়েছে ৩ লাখ ৮৪ হাজার ৮৪৭ কোটি টাকা। যা আগের কার্যদিবস শেষে ছিল ৩ লাখ ৮৮ হাজার ৫৮৮ কোটি টাকা। অর্থাৎ বাজারটির বাজার মূলধন কমেছে ৩ হাজার ৭৪১ কোটি টাকা। মূল্যসূচক ও বাজার মূলধনের পাশাপাশি বাজারটিতে কমেছে লেনদেনের পরিমাণও। দিনভর ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৫৮০ কোটি ৮ লাখ টাকার শেয়ার। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয় ৭৪২ কোটি ৩৯ লাখ টাকার শেয়ার। সে হিসাবে লেনদেন কমেছে ১৬২ কোটি ৩১ লাখ টাকা। টাকার অঙ্কে এদিন ডিএসইতে সব থেকে বেশি লেনদেন হয়েছে কেপিসিএলের শেয়ার। সোমবার কোম্পানিটির মোট ৬৪ কোটি ৮৮ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে।

দ্বিতীয় স্থানে থাকা ইউনাইটেড পাওয়ার জেনারেশনের শেয়ার লেনদেন হয়েছে ৪০ কোটি ২২ লাখ টাকার। আর ৩৩ কোটি ৫৪ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেনে তৃতীয় স্থানে রয়েছে শাশা ডেনিম। লেনদেনে এরপর রয়েছে- ইফাদ অটোস, এ্যাকটিভ ফাইন, বিবিএস কেবলস, নাহি এ্যালুমেনিয়াম, সায়হাম টেক্সটাইল, ন্যাশনাল হাউজিং ফাইন্যান্স এবং আমান ফিড। অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের সার্বিক মূল্যসূচক সিএসসিএক্স ১২৬ পয়েন্ট কমে ৯ হাজার ৯৮৮ পয়েন্টে অবস্থান করছে। বাজারটিতে লেনদেন হয়েছে ৩৫ কোটি ৬১ লাখ টাকার শেয়ার। লেনদেন হওয়া ২৪৫টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে মাত্র ২৭টির শেয়ারের দাম বেড়েছে। বিপরীতে দাম কমেছে ২০৫টির। আর অপরিবর্তিত রয়েছে ১৩টির দাম।