১৯ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বিএনপি সংঘাত সৃষ্টির জন্যই শনিবার সমাবেশ করছে : স্বাস্থ্যমন্ত্রী

বিএনপি সংঘাত সৃষ্টির জন্যই শনিবার সমাবেশ করছে : স্বাস্থ্যমন্ত্রী

স্টাফ রিপোর্টার ॥ সংঘাত সৃষ্টির জন্যই বিএনপি তাদের পূর্ব নির্ধারিত সমাবেশের তারিখ দু’দিন বাড়িয়ে শনিবার করেছে বলে অভিযোগ করেছেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য এবং স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম। তিনি বলেন, গত কয়েক দিন আগে রাজধানীর মহানগর নাট্যমঞ্চে আওয়ামী লীগসহ ১৪ দলের সমাবেশ করার ঘোষণা দেয়া হয়েছে। কিন্তু বিএনপি সংঘাত সৃষ্টির জন্যাই তাদের পূর্ব নির্ধারিত সমাবেশের তারিখ দুইদিন বাড়িয়ে শনিবার করেছে। এটা কার উসকানি হয়েছে তা খতিয়ে দেখা দরকার।

বুধবার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে বেসরকারি ক্লিনিক ও ডায়াগনোস্টিক ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের দ্বিতীয় সম্মেলন উপলক্ষে আয়োজিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে মোহাম্মদ নাসিম এই কথা বলেন। সভায় অন্যন্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ মেডিকেল এসোসিয়েশনের সভাপতি ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক ডা. এহতেশামুল হক দুলাল, ওষুধ প্রশাসন অধিদফতরের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল ডা. মোস্তাফিজুর রহমান এবং বেসরকারি ক্লিনিক-ডায়াগনোস্টিক ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের নেতৃবৃন্দ।

১৪ দলের মুখপাত্র মোহাম্মদ নাসিম বলেন, দেশে সংবিধান অনুযায়ী নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। খেলার মাঠে দুইটি দল থাকে। খেলা পরিচালনার জন্য যেমন রেফারি থাকে তেমননি নির্বাচন পরিচালনার জন্য নির্বাচন কমিশন দায়িত্ব পালন করবে।

মানহীন ক্লিনিক বন্ধ করে দেয়া হবে জানিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, যেসব ক্লিনিকের মান নেই, ডাক্তার নেই, নার্স নেই। সেগুলো বন্ধ করে দেয়া হবে। ইতোমধ্যে এসব ক্লিনিকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। মানহীন এসব ক্লিনিকের কারণে দেশের স্বনামধন্য প্রতিষ্ঠানের বদনাম হচ্ছে। তিনি আরও বলেন, দেশের নামিদামি হাসপাতালে মৃতদেহ আটকে রেখে বাণিজ্য হচ্ছে। এসব হাসপাতালের আইসিইউতে রোগী মারা যাওয়ার পরও তাদেরকে মৃতদেহ আটকে রেখে টাকা কামাচ্ছেন। দুই একটি হাসপাতালে আমি নিজে ফোন করে মৃতদেহ ছাড়িয়েছি। সাভারের একটি হাসপাতালে মৃতদেহ আটকে রাখা হয়েছিল।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী ক্লিনিক ও ডায়াগনোস্টিক সেন্টারের মালিকদের বিভিন্ন দাবি মেনে নেয়ার আশ্বাস দিয়ে বলেন, এবার আমারও কিছু দাবি আছে, সেগুলো আপনাদের পূরণ করতে হবে। আপনাদের সেবার মান বাড়াতে হবে। তা না হলে সভাপতি-সেক্রেটারিকে নিয়ে ক্লিনিক বন্ধ করে দেয়া হবে। অনলাইন রেজিষ্ট্রেশনে সময় লাগবে। এজন্য তিনি আরো সময় বৃদ্ধি করা হবে বলে ঘোষণা দেন।

মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষা প্রসঙ্গে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষায় অত্যন্ত স্বচ্ছভাবে সম্পন্ন করা হচ্ছে। প্রতিটি পদক্ষেপে দক্ষ লোকবল রাখা হয়েছে যাতে কোনো ধরণের কারচুপি না হয়। রোহিঙ্গাদের প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, মায়ের মমতা ও বোনের স্নেহ দিয়ে এ দেশে ১০ লাখ রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দেয়া হয়েছে। অথচ ইউরোপের অনেক ধনী দেশ এক লাখ শরনার্থী গ্রহন করতে অস্বীকৃতি জানায়।

নির্বাচিত সংবাদ