২৩ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

এই রায়ে যোগ্য বিচার হয়েছে ॥ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

এই রায়ে যোগ্য বিচার হয়েছে ॥ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

অনলাইন রিপোর্টার ॥ আজ বুধবার দুপুরে ঢাকার বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে ২১ অগাস্ট গ্রেনেড হামলার রায়ের প্রতিক্রিয়ায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল সাংবাদিকদের বলেন, “বাংলাদেশের মানুষ মনে করে, এই রায়ে যোগ্য বিচার হয়েছে। দেশে যারাই অপকর্ম করবে তাদের শাস্তি যে হবে এই রায়ের মাধ্যমে তা আবারও প্রমাণিত হয়েছে।”

ঢাকার এক নম্বর দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক শাহেদ নূর উদ্দিন এই মামলার রায়ে বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী লুৎফুজ্জামান বাবর, সাবেক উপমন্ত্রী আবদুস সালাম পিন্টুসহ ১৯ জনের মৃত্যুদণ্ডের রায় দিয়েছেন। খালেদা জিয়ার বড় ছেলে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান, খালেদা জিয়ার রাজনৈতিক সচিব হারিছ চৌধুরীসহ ১৯ জনকে দেওয়া হয়েছে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড।এছাড়া এ মামলার আসামি ১১ পুলিশ ও সেনা কর্মকর্তাকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

২০০৪ সালের ২১ অগাস্ট বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের সন্ত্রাসবিরোধী শোভাযাত্রায় গ্রেনেড হামলায় আইভি রহমানসহ ২৪ জন নিহত হন; আহত হন কয়েকশ নেতাকর্মী। সেদিন অল্পের জন্য প্রাণে বেঁচে যান আজকের প্রধানমন্ত্রী আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা। কিন্তু গ্রেনেডের প্রচণ্ড শব্দে তার শ্রবণশক্তি নষ্ট হয়। শেখ হাসিনাকে হত্যা করে দলকে নেতৃত্বশূন্য করতেই এই হামলা হয়েছিল এবং তাতে তৎকালীন ক্ষমতাসীন বিএনপি-জামায়াত জোটের শীর্ষ নেতাদের প্রত্যক্ষ মদদ ছিল বলে এ মামলার রায়ে উঠে আসে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, “আজকে জাতির জন্য বড় একটা দিন। আমরা মনে করি, জাতির আরও একটি কালিমা যেটা লেপন করেছিল… সেই কালিমা আজকে দূর হল।

“আমরা মনে করি, বাংলাদেশের মানুষ স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলবে যে এদেশে বিচার প্রতিষ্ঠিত হয়েছে এখানে ন্যায় বিচার হয় এবং যারাই এ ধরনের কর্ম করবে তাদের বিচার অবশ্যই হবে।”

খালেদা জিয়ার বড় ছেলে তারেক রহমানসহ ১৮ জনকে পলাতক দেখিয়েই এ মামলার বিচার কাজ চলে।

সাজাপ্রাপ্ত এই পলাতক আসামিদের দেশে ফিরিয়ে আনতে সরকারের তরফ থেকে উদ্যোগ নেওয়া হবে বলে জানান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।