১৭ নভেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সৌদির উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রীর ঢাকা ত্যাগ

সৌদির উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রীর ঢাকা ত্যাগ

বিডিনিউজ ॥ বাদশাহ সালমান বিন আব্দুল আজিজ আল সৌদের আমন্ত্রণে চার দিনের সফরে সৌদি আরব পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে ৩টায় বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের উড়োজাহাজ ‘অরুণ আলো’ প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে সৌদি আরবের পথে রওনা হয়। সৌদি আরবের স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ৬টা ৫১ মিনিটে রিয়াদের কিং খালিদ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে উড়োজাহাজটি অবতরণ করে। বিমানবন্দরে প্রধানমন্ত্রীকে লাল গালিচা সংবর্ধনা দেয়া হয়। সেখানে প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানান রিয়াদের গবর্নর এবং সেদেশে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত গোলাম মসিহ্। এই সফরে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে রয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ এইচ মাহমুদ আলী, পররাষ্ট্র সচিব মোঃ শহীদুল হক, আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর বেসরকারী খাত বিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান, তার স্ত্রী সৈয়দা রুবাবা রহমান এবং প্রধানমন্ত্রীর পরিবারের কয়েকজন সদস্য। ঢাকায় বিমানবন্দরে প্রধানমন্ত্রীকে বিদায় জানিয়েছিলেন শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু, বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, বেসরকারী বিমান চলাচল ও পর্যটনমন্ত্রী এ কে এম শাহজাহান কামালসহ ঊর্ধ্বতন সরকারী কর্মকর্তারা।

সৌদি আরবে চলতি বছর এটি প্রধানমন্ত্রীর দ্বিতীয় সফর। সফর শেষে আগামী শুক্রবার তার দেশে ফেরার কথা রয়েছে। আগামী ১৮ অক্টোবর তিনি মক্কায় ওমরাহ পালন করবেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ এইচ মাহমুদ আলী সোমবার এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, প্রধানমন্ত্রীর এ সফরের সময় সৌদি আরবের সঙ্গে প্রতিরক্ষা এবং তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ে সমঝোতা স্মারকে সই হবে। সফরে সৌদি বাদশাহ সালমান বিন আব্দুল আজিজ আল সৌদের সঙ্গেও বৈঠক করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এছাড়া প্রধানমন্ত্রী রিয়াদে নিজস্ব জমিতে নবনির্মিত বাংলাদেশ দূতাবাস ভবনের উদ্বোধন এবং জেদ্দায় বাংলাদেশ কন্স্যুলেট ভবনের ভিত্তি স্থাপন করবেন। সফরের শুরুতে বুধবার সকালে কাউন্সিল অব সৌদি চেম্বার আয়োজিত একটি সেমিনারে অংশ নেবেন শেখ হাসিনা। ১৭ অক্টোবর রাতে তিনি মদিনা যাবেন। সেখানে তিনি মসজিদে নববীতে নামাজ পড়বেন এবং মহানবীর (স.) রওজা জিয়ারত করবেন। গত এপ্রিলে সৌদি আরবসহ ২২ দেশের সঙ্গে ‘গাল্ফ শিল্ড-১’ নামে একটি সামরিক মহড়ায় অংশ নেয় বাংলাদেশ। সৌদি বাদশাহ’র আমন্ত্রণে ওই মহড়ার সমাপনী অনুষ্ঠানে যোগ দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এছাড়া গতবছর মে মাসে তিনি ‘আরব ইসলামিক আমেরিকান সামিটে’ যোগ দেন এবং ওমরাহ পালন করেন।