১৪ নভেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

জয় ছাড়া অন্য কিছু ভাবছে না টাইগাররা

জয় ছাড়া অন্য কিছু ভাবছে না টাইগাররা
  • জিম্বাবুইয়ের বিপক্ষে প্রথম ওয়ানডে আজ

মিথুন আশরাফ ॥ দেখতে দেখতে ওয়ানডে ক্রিকেটে বাংলাদেশের ৩২ বছর সাত মাস হয়ে গেল। এই দীর্ঘ সময়ে বাংলাদেশ দল ৩৪৯ আন্তর্জাতিক ওয়ানডে ম্যাচও খেলে ফেলেছে। আজ বাংলাদেশ ও জিম্বাবুইয়ের মধ্যকার প্রথম ওয়ানডে হবে। ম্যাচটি বাংলাদেশ দলের ৩৫০তম ওয়ানডে ম্যাচ হবে। মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে দুপুর আড়াইটায় ম্যাচটি শুরু হবে। ম্যাচটি দিয়ে দুই দলের মধ্যকার তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজও শুরু হয়ে যাবে। ম্যাচশেষে চট্টগ্রাম জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে বুধবার দ্বিতীয় ও শুক্রবার তৃতীয় ও শেষ ওয়ানডে ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে।

এ ম্যাচটি কী স্মরণীয় করে রাখতে পারবে বাংলাদেশ? দেশের মাটিতে সেই ২০১৬ সালের অক্টোবরে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সর্বশেষ দ্বিপক্ষীয় ওয়ানডে সিরিজ খেলে বাংলাদেশ। দুই বছর পর আবার দেশের মাটিতে দ্বিপক্ষীয় ওয়ানডে সিরিজে খেলতে নেমে জিম্বাবুইয়ের বিপক্ষে সিরিজ নিজেদের করে নিতে পারবে বাংলাদেশ?

১৯৮৬ সালের ৩১ মার্চ প্রথম আন্তর্জাতিক ওয়ানডে ম্যাচ খেলে বাংলাদেশ। পাকিস্তানের বিপক্ষে এশিয়া কাপের ম্যাচটিতে হারে বাংলাদেশ। এরপর ৫০তম ম্যাচে ২০০২ সালে পাকিস্তানের বিপক্ষে ৮ উইকেটে হারে। তবে ১০০তম ম্যাচে ২০০৪ সালে ভারতের বিপক্ষে ১৫ রানে জেতার পর ১৫০তম ম্যাচেও ভারতের বিপক্ষে ২০০৭ সালে ৫ উইকেটে জিতে বাংলাদেশ। ২০০তম ম্যাচে গিয়ে ২০০৯ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজকেও ৩ উইকেটে হারায় বাংলাদেশ। ২৫০তম ম্যাচে গিয়ে ২০১১ সালে জিম্বাবুইয়ের কাছে হারের পর ৩০০তম ম্যাচে গিয়ে ভারতের কাছে ২০১৫ সালে ১০৯ রানে হারে বাংলাদেশ। মাইলফলকের ম্যাচগুলো অম্লমধুর স্মৃতি আছে বাংলাদেশের। তবে নিজেদের ৩৫০তম ওয়ানডে ম্যাচটিতে জিতে স্মৃতি মধুর করে রাখতে পারে বাংলাদেশ। জিম্বাবুইয়ের বিপক্ষে খেলবে মাশরাফি। ম্যাচটি স্মরণীয় করে রাখা সম্ভব। এ জন্য জিততে হবে। জিতলে সিরিজেও এগিয়ে যাওয়া যাবে।

জিম্বাবুইয়ে দলটি এখন আর বাংলাদেশের জন্য আতঙ্কের দল নয়। যে দলটি এক সময় বাংলাদেশকে শুধুই হারাত, সেই দলটি এখন উল্টো হারের গোলকধাঁধায় আটকে গেছে। বাংলাদেশ ৩৪৯ ওয়ানডে ম্যাচে ১১৩ ম্যাচে জিতেছে। ২২৯ ম্যাচে হেরেছে। সাতটি ম্যাচের রেজাল্ট হয়নি। এর মধ্যে জিম্বাবুইয়ের বিপক্ষেই ৪১টিতে জিতেছে বাংলাদেশ। ৬৯ ম্যাচ খেলে ২৮টিতে হার হয়েছে। জিম্বাবুইয়ের বিপক্ষে ১৯৯৭ সাল থেকেই ওয়ানডে ম্যাচ খেলে বাংলাদেশ। ২০০৪ সালের মার্চের আগে তো কোন ম্যাচেই জিততে পারেনি। টানা ১০ ম্যাচ হেরে। ২০০৪ সালে জয় পাওয়ার পর আবার যখন ২০০৫ সালে প্রথমবার জিম্বাবুইয়ের বিপক্ষে সিরিজ জেতা হলো, এরপর থেকে দৃশ্যপট পাল্টে যেতে থাকল। বাংলাদেশের ঝুলিতে জয়ের পাল্লা বাড়তে থাকল। এখন তো বাংলাদেশই বেশি জিতে। সর্বশেষ টানা ১০ ওয়ানডে ম্যাচেই জিতে বাংলাদেশ। এ বছর জানুয়ারিতে দেশের মাটিতে তিনজাতি সিরিজে জিম্বাবুইয়ের বিপক্ষে সর্বশেষ খেলে বাংলাদেশ। দুটি ম্যাচেই জিতে।

জিম্বাবুইয়ের বিপক্ষে ২০০১ সালে প্রথমবারের মতো দ্বিপক্ষীয় সিরিজে খেলে বাংলাদেশ। এরপর ২০১৫ সাল পর্যন্ত দুই দলের মধ্যকার ১৫টি দ্বিপক্ষীয় সিরিজ খেলা হয়। ৯টি সিরিজে বাংলাদেশ জিতে। ছয়টি সিরিজে হারে বাংলাদেশ। ২০০৪ সাল পর্যন্ত টানা তিন সিরিজে হারে বাংলাদেশ। এরপর ২০০৫ সালে যে বাংলাদেশ প্রথমবার সিরিজে জেতে, এরপর জেতার সংখ্যা বাড়তেই থাকে বাংলাদেশের। ২০১১ সালের পর এখন পর্যন্ত টানা তিন সিরিজে বাংলাদেশই জেতে। দুই দলের মধ্যকার সর্বশেষ ২০১৫ সালে খেলা ওয়ানডে সিরিজেও জিতে বাংলাদেশ। সিরিজটি দেশের মাটিতে জেতা বাংলাদেশের সর্বশেষ দ্বিপক্ষীয় ওয়ানডে সিরিজ ছিল। প্রায় তিন বছর পর আবার দুই দল পরস্পরের বিপক্ষে দ্বিপক্ষীয় সিরিজ খেলবে। সেই সিরিজটির প্রথম ওয়ানডে দিয়ে শুরু হবে আজ।

নির্বাচিত সংবাদ