১৭ নভেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ঐক্যফ্রন্টের রুদ্ধদ্বার বৈঠক ॥ সিলেটে শোডাউনের প্রস্তুতি

স্টাফ রিপোর্টার ॥ সিলেটে শোডাউনের প্রস্তুতি নিচ্ছে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। ২৪ অক্টোবর সিলেটের জনসভা ও পরবর্তী কর্মসূচীর প্রস্তুতি জোরদার করতে রুদ্ধদ্বার বৈঠক করেছেন ঐক্যফ্রন্ট নেতারা। রবিবার বিকেলে গণফোরামের মতিঝিল কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত বৈঠকে সিলেটে জনসভার আগেই আমির খসরুকে মুক্তি দিতে আল্টিমেটাম দিয়ে বলা হয়, অন্যথায় পরিণতি হবে ভয়াবহ। এ ছাড়া ঐক্যফ্রন্ট ঘোষিত ৭ দফা দাবি ও ১১ দফা লক্ষ্য সরকার ও (ইসি) কাছে লিখিত তুলে ধরার সিদ্ধান্ত হয়।

বৈঠকে আমির খসরু গ্রেফতারের ঘটনায় নিন্দা ড. কামালকে সিলেটের সমাবেশে প্রধান অতিথি করার সিদ্ধান্ত হয়। সমাবেশ সফল করতে বিএনপিসহ ঐক্যফ্রন্টভুক্ত প্রতিটি দলের নেতাকর্মীদের প্রতি আহবান জানানো হয়।

বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের জেএসডি সভাপতি আব্দুর রব বলেন, সিলেটের জনসভা নিয়ে সরকার ক‚টকৌশল করেছে। জনসভা ছিল জনগণের কাছে যাওয়ার প্রথম কর্মসূচী। কিন্তু পুলিশ অনুমতি দিয়েও পরে তা বাতিল করে। আদালতের দ্বারস্থ হলে রিট শুনানির আগেই আবার অনুমতি দেয়া হয়। জনসভা নিয়ে সরকার এভাবে খেলা করছে। সরকারের প্রতি হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে তিনি বলেন, কর্মসূচীতে বাধা দিলে লড়াই বাঁধবে। স্বৈরাচারী আচরণ করলে পরিণতি ভয়াবহ হবে।

২৪ অক্টোবরের আগে আমীর খসরুকে মুক্তি দিন, না হলে সিলেটের জনসভা থেকে নতুন বার্তা দেয়া হবে। ধারাবাহিক কর্মসূচীর অংশ হিসেবে ২৬ অক্টোবর হোটেল পূর্বানীতে বিকেল ৩টায় সুশীল সমাজের সঙ্গে বৈঠক ও ২৭ অক্টোবর চট্টগ্রামে সমাবেশ করা হবে। রব বলেন, আর জোটের শরিক জেএসডির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর কারণে রাজশাহীর জনসভার তারিখ পরিবর্তন করে ২ নবেম্বর নির্ধারণ করা হয়েছে।

সিলেটে জনসভার অনুমতি দেয়ায় সরকারকে ধন্যবাদ জানিয়ে রব বলেন, সরকার ডিজিটাল আইন করে গণমাধ্যমের গলায় ছুরি দিয়েছে। তারপরেও সাংবাদিকরা কষ্ট করে যেভাবে আমাদের সংবাদ কাভারেজ দিচ্ছেন, সেজন্য ধন্যবাদ জানাই।

বৈঠক সূত্রে জানা যায়, গণফোরামের সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মহসিন মন্টুর সভাপতিত্বে বৈঠকে প্রথমেই কথা বলেন ঐক্যফ্রন্টের স্টিয়ারিং কমিটির সদস্য ও বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল। আমির খসরুকে গ্রেফতারের নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান তিনি। এ ছাড়া বিকল্প ধারার ভাঙ্গন নিয়েও কথা বলেন।

বৈঠকে আরও উপস্থিত ছিলেন মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ, ভাইস চেয়ারম্যান বরকতউল্লাহ বুলু, জেএসডির তানিয়া রব, আবদুল মালেক রতন, শহীদউদ্দিন মাহমুদ স্বপন, নাগরিক ঐক্যের মাহমুদুর রহমান মান্না, গণফোরামের কার্যকরী সভাপতি সুব্রত চৌধুরী, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডাঃ জাফরুল্লাহ চৌধুরী ও ঢাকসুর সাবেক ভিপি সুলতান মোহাম্মদ মনসুর।