১৭ নভেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

আগামী সংসদে রাজাকাররা যেন স্থান না পায় ॥ শাহরিয়ার কবির

নিজস্ব সংবাদদাতা, নাটোর, ২২ অক্টোবর ॥ একাত্তরের ঘাতক-দালাল নির্মূল কমিটির কেন্দ্রীয় সভাপতি সাংবাদিক শাহরিয়ার কবির বলেছেন, আমরা আগামীতে রাজাকারমুক্ত জাতীয় সংসদ চাই। আগামী জাতীয় সংসদে যাতে কোন রাজাকার, রাজাকারের পরিবারের সদস্য, জামায়াত-বিএনপি ঘেঁষা, মুক্তিযুদ্ধের চেতনার বিপক্ষে যাদের অবস্থান তারা যেন স্থান না পায় সেজন্য তিনি প্রধানমন্ত্রীর কাছে দাবি জানিয়েছেন। তিনি বলেন, যারা মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ^াসী, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও আদর্শ বুকে লালনপালন করেন তারাই দেশের আসল মা। আগামী নির্বাচনে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও আদর্শে বিশ^াসীদের ভোট দিলে দেশ ভাল থাকবে। মুক্তিযুদ্ধের চেতনার বিপক্ষে যাদের অবস্থান তারা কখনও দেশের উন্নতি করতে পারে না। ‘আমার ভোট আমি দেব, দেখে-শুনে-বুঝে দেব’ স্লোগান নিয়ে সোমবার সকালে একাত্তরের ঘাতক-দালাল নির্মূল কমিটির জেলা শাখার আয়োজনে শহরের কান্দিভিটুয়ার জেলা আওয়ামী লীগের অস্থায়ী কার্যালয়ে আয়োজিত আলোচনা সভা ও মবিনিময় সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

নির্বাচনকে কেন্দ্র করে বিএনপি-জামায়াতরা দেশে বসবাসরত সংখ্যালঘুদের ওপর নির্যাতন, খুন, ধর্ষণের হুমকি দিচ্ছে উল্লেখ করে শাহরিয়ার কবির বলেন, দেশের মানুষ সুষ্ঠু, অবাধ নির্বাচন চাই। আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনের সময় স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধের বিপক্ষের শক্তিরা যাতে দেশের সংখ্যালঘুদের ওপর নির্যাতন, খুন, ধর্ষণ চালাতে না পারে সেজন্য নির্বাচন কমিশনকে তৎপর হতে হবে। ২০০১ এবং ২০১৪ সালের মতো সংখ্যালঘু নির্যাতনের পুনরাবৃত্তি আমরা দেখতে চাই না।

ড. কামাল হোসেনের সমালোচনা করে তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ড. কামালকে সংবিধানের খসড়া প্রণয়নের দায়িত্ব দিয়েছিলেন। তিনি বঙ্গবন্ধুর সেই বিশ^াসের অমর্যাদা করেছেন। বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া বলেছেন, বিএনপি ক্ষমতায় এলে এই ট্রাইব্যুনাল ভেঙ্গে ফেলা হবে। কিন্তু এই ট্রাইব্যুনালের কারণেই দেশে যুদ্ধাপরাধীদের বিচার হয়েছে, হচ্ছে। একই সঙ্গে তিনি যুদ্ধাপরাধীদের মরণোত্তর বিচার দাবি করেন।

বিএনপি-জামায়াতের সমালোচনা করে তিনি বলেন, জামায়াত দেশের সংবিধানকে বিশ^াস করে না, মানে। তাদের নীতিমালা দেশের সংবিধানের সঙ্গে সাংঘর্ষিক। তবে জামায়াত কিভাবে নির্বাচনে অংশ নিতে পারে, সে ব্যাখ্যা নির্বাচন কমিশনের কাছে চাওয়া হবে। নির্বাচনে আসতে হলে বিএনপি অবশ্যই জামায়াতকে বর্জন করতে হবে। তিনি বলেন, বিএনপি ক্ষমতায় গেলে দেশটা আবার পাকিস্তান হয়ে যাবে। দেশের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে হলে আবার মুক্তিযুদ্ধের চেতনার পক্ষে যারা আছেন তাদের ভোট দিয়ে ক্ষমতায় আনতে হবে।

কোটার সংস্কারের বিষয়ে তিনি বলেন, মুক্তিযোদ্ধারা ভিক্ষা করার জন্য যুদ্ধ করেননি। দেশের মন্ত্রী, মিনিস্টারের কোটার দরকার কি? মুক্তিযোদ্ধা, অবহেলিত নৃগোষ্ঠীদের জন্য কোটা রাখা উচিত।

একাত্তরের ঘাতক-দালাল নির্মূল কমিটি নাটোর জেলা শাখার সভাপতি ও পৌর মেয়র উমা চৌধুরী জলির সভাপতিত্বে ও সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক ও জেলা আওয়ামী লীগর সাংগঠনিক সম্পাদক মালেক শেখের সঞ্চালনায় আয়োজিত এই মতবিনিময় সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, ঘাতক-দালাল নির্মূল কমিটির কেন্দ্রীয় নিরাপত্তা বিশ্লেষক ও উপদেষ্টা জেনারেল আবদুর রশিদ, জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা সাজেদুর রহমান খান, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও নাটোর সদর উপজেলা চেয়ারম্যান শরিফুল ইসলাম রমজান।