১৬ নভেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

পারমাণবিক অস্ত্রভাণ্ডার বাড়াবে যুক্তরাষ্ট্র ॥ ট্রাম্প

পারমাণবিক অস্ত্রভাণ্ডার বাড়াবে যুক্তরাষ্ট্র ॥ ট্রাম্প

অনলাইন ডেস্ক ॥ রাশিয়া ও চীনকে চাপে ফেলতে যুক্তরাষ্ট্র তাদের পারমাণবিক অস্ত্রভাণ্ডার বাড়াতে পারে বলে সতর্ক করেছেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

রাশিয়া ১৯৮৭ সালের ইন্টারমিডিয়েট-রেঞ্জ নিউক্লিয়ার ফোর্সেস (আইএনএফ) চুক্তি লঙ্ঘন করেছে, ফের এমন অভিযোগ করে একথা বলেছেন তিনি; খবর বিবিসির।

এই চুক্তি থেকে বের হয়ে যাওয়ার হুমকি আগেই দিয়ে রেখেছেন তিনি। যুক্তরাষ্ট্রের অভিযোগ অস্বীকার করেছে রাশিয়া। শীতল যুদ্ধকালীন ওই মার্কিন-রুশ চুক্তিটিতে পারমাণবিক অস্ত্রবহনে সক্ষম মধ্যবর্তী পাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র নিষিদ্ধ করা হয়েছিল। যুক্তরাষ্ট্র নতুন করে পারমাণবিক অস্ত্রভাণ্ডার বাড়াতে শুরু করলে পাল্টা পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলে সতর্ক করেছে রাশিয়া। ট্রাম্প জানিয়েছেন, ‘লোকজনের চেতনা ফিরে না আসা পর্যন্ত’ যুক্তরাষ্ট্র তার পারমাণবিক অস্ত্রভাণ্ডার বৃদ্ধি করবে।

বলেছেন, “চীন, রাশিয়া থেকে শুরু করে যেই এ খেলা খেলতে চায় এ হুমকি তাদের সবার জন্য, রাশিয়া ওই চুক্তির উদ্দীপনায় বিশ্বাসি নয় অথবা চুক্তিটিতেই বিশ্বাস করে না।”

অপরদিকে আইএনএফ চুক্তি থেকে যুক্তরাষ্ট্রের বের হয়ে যাওয়ার পরিকল্পনার নিন্দা জানিয়েছে রাশিয়া।

এর মধ্যে মস্কোতে যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জন বোল্টন রুশ কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করছেন। সেখানে আইএনএফ চুক্তি থেকে যুক্তরাষ্টের বের হয়ে যাওয়া পারমাণবিক অস্ত্রবিস্তাররোধ চুক্তিতে স্বাক্ষর করা রাষ্ট্রগুলোর জন্য ‘গুরুতর ধাক্কা’ হবে বলে বোল্টনকে সতর্ক করা হয়েছে।

রাশিয়ার নিরাপত্তা পরিষদের সচিব নিকোলাই পাত্রুশেভ বলেছেন, আইএনএফের বিষয়ে ‘পারস্পরিক’ ক্ষোভ নিরসনে ক্রেমলিন যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে কাজ করতে ‘প্রস্তুত’ আছে।

বোল্টনের সফর শুরুর সময়ই মস্কো সতর্ক করে দিয়ে বলেছে, পারমাণবিক শক্তির ভারসাম্য ধরে রাখতে তারাও পদক্ষেপ নিতে পারে।

ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেশকভ বলেছেন, “এই ইস্যুতে আমেরিকান পক্ষের ব্যাখ্যা শোনা দরকার আমাদের। চুক্তিটি পরিত্যাক্ত হলে নিজের নিরাপত্তার বিষয়ে পদক্ষেপ নিতে বাধ্য হবে রাশিয়া।”

তিন দশক আগে শীতল যুদ্ধের শেষ দিকে তৎকালীন সোভিয়েত ইউনিয়নের প্রধান মিখাইল গর্ভাচেভ ও মার্কিন প্রেসিডেন্ট রোনাল্ড রিগান আইএনএফ চুক্তিটি করেছিলেন। ওই চুক্তিতে পারমাণবিক বোমা বহনে সক্ষম ভূমি থেকে নিক্ষেপযোগ্য ৫০০ থেকে সাড়ে ৫ হাজার কিলোমিটার পাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র নিষিদ্ধ করা হয়েছিল।