১৫ নভেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

অলিম্পিক বাছাই ফুটবলে বাংলাদেশ-মিয়ানমার মুখোমুখি

অলিম্পিক বাছাই ফুটবলে বাংলাদেশ-মিয়ানমার মুখোমুখি

অনলাইন রিপোর্টার ॥ অভিজ্ঞতা এবং ফিফা র‌্যাংকিং-বাংলাদেশের চেয়ে সবদিকেই নারী ফুটবলে এগিয়ে মিয়ানমার। এ দেশটির সঙ্গে আগে কখনো খেলাও হয়নি বাংলাদেশের মেয়েদের। পুরোপুরি অচেনা ও শক্তিশালী এ প্রতিপক্ষের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়েই বৃহস্পতিবার অলিম্পিক গেমস ফুটবলের বাছাই পর্ব খেলতে নামছে সাবিনা-কৃষ্ণারা।

অলিম্পিক ফুটবলে বাংলাদেশের প্রথম অংশগ্রহণ না হলেও প্রতিপক্ষ মিয়ানমার এবং লড়াইটা দুই দেশের জাতীয় দলের বলেই ভয় গোলাম রব্বানী ছোটনের দলের। ইয়াংগুনের থুউন্না স্টেডিয়ামে ম্যাচ শুরু হবে বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা সাড়ে ৫টায়।

বাছাই পর্বে প্রথম রাউন্ডের ‘সি’ গ্রুপের খেলা হচ্ছে মিয়ানমারে। অন্য দুই দল ভারত ও নেপাল। দীর্ঘদিন জাতীয় দলের কোনো খেলা না থাকায় ফিফা র‌্যাংকিংয়ে নেই বাংলাদেশ। দুই বছর আগে বাংলাদেশ ছিল ১১২ নম্বরে। সেখানে মিয়ানমারের অবস্থান ৪৪ এ। ভারতের (৫৯) চেয়েও পনের ধাপ উপরে। নেপালের র্যাংকিং ১০৯।

বয়সভিত্তিক ফুটবলে নারী ফুটবলে সাম্প্রতিক ভালো করছে বাংলাদেশ। বিশেষ করে দক্ষিণ এশিয়াতে রীতিমতো উড়ছে লাল-সবুজ জার্সিধারী মেয়েরা। তারুণ্য নির্ভর বাংলাদেশ দলকেই লড়তে হচ্ছে অভিজ্ঞ মিয়ানমারের সঙ্গে। বাংলাদেশ দলে সিনিয়র খেলোয়াড় বলতে একজন-অধিনায়ক সাবিনা খাতুন।

মিয়ানমার যাওয়ার আগে বাংলাদেশ দলের কোচ গোলাম রব্বানী ছোটন জানিয়েছেন, এ টুর্নামেন্ট থেকে তারা অভিজ্ঞতা অর্জন করতে চান আগামীর জাতীয় দলের জন্য।

বুধবার ইয়াংগুনে অফিসিয়াল সংবাদ সম্মেলনেও একই কথা বলেছেন সাবিনাদের কোচ, ‘আমরা এখানে এসেছি অভিজ্ঞতা অর্জনের জন্য। আমাদের এক বছরের ভালো প্রস্তুতি আছে। আমরা এখানে ভালো ফুটবল খেলতে চাই। এখানে সব দলই শক্তিশালী। আমার দল তারুণ্য নির্ভর। আমার বিশ্বাস এখানে খেলে আমাদের মেয়েরা আরো অভিজ্ঞতা অর্জন করতে পারবে।’

অধিনায়ক সাবিনা খাতুন বলেছেন, ‘মিয়ানমার খুবই শক্তিশালী দল। তাদের বিরুদ্ধে আমরা প্রথমবার খেলতে নামবো। আমরা স্বাগতিকদের বিরুদ্ধে ভালো ম্যাচ খেলতে চাই। নিজেদের সেরাটা দিয়ে খেলে ভালো কিছু করার লক্ষ্য আমাদের। আমরা দেশবাসীর কাছে দোয়া চাই যাতে সেরাটা খেলতে পারি।’ মিয়ানমারের কোচ উইন থু মোয়ে নিজেদের ফেভারিটই বলছেন, ‘আমরা এই গ্রুপের ফেভারিট। ফিফা র্যাংকিংয়েও সবার উপরে আছি। এ টুর্নামেন্ট সামনে রেখে আমরা কয়েকটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলেছি চীন ও জাপানের বিরুদ্ধে। আমাদের লক্ষ্য দ্বিতীয় রাউন্ডে ওঠা।’

বাংলাদেশ প্রসঙ্গে মিয়ানমারের কোচ বলেছেন, ‘বাংলাদেশ এখন বেশ সুসংগঠিত একটি দল। এটা ঠিক, তারা অভিজ্ঞতায় পিছিয়ে আমাদের চেয়ে। তবে দ্বিতীয় রাউন্ডে ওঠার সুযোগ আছে তাদের সামনেও।’