১৫ নভেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

টেকনোক্র্যাট মন্ত্রীদের দায়িত্ব চালিয়ে যাওয়ার নির্দেশ

টেকনোক্র্যাট মন্ত্রীদের দায়িত্ব চালিয়ে যাওয়ার নির্দেশ

অনলাইন রিপোর্টার ॥ প্রজ্ঞাপন জারি না হওয়া পর্যন্ত পদত্যাগপত্র জমা দেওয়া মন্ত্রিসভার চার টেকনোক্র্যাট সদস্যকে দায়িত্ব পালনের নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বুধবার (৭ নবেম্বর) দুপুরে ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্য প্রযুক্তি বিষয়ক মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার গণমাধ্যমকে বিষয়টি জানান। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী আমাদের বলেছেন-কাজ করে যাওয়ার জন্য।

পদত্যাগপত্র জমা দেওয়ার পর দায়িত্ব পালনের নৈতিক ভিত্তি নিয়ে মোস্তাফা জব্বার বলেন, যেহেতু আমরা স্বেচ্ছায় পদত্যাগ করিনি। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে আমরা পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছি। তাই তা গ্রহণ না হওয়া পর্যন্ত স্বপদে দায়িত্ব পালনে কোনো বাধা নেই।

যোগাযোগ করা হলে এ বিষয়ে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র জনসংযোগ কর্মকর্তা মোহাম্মদ আনোয়ার হোসাইন বলেন, ধর্মমন্ত্রী অধ্যক্ষ মতিউর রহমান স্যার সকালে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করেছেন। তাকে তিনি দায়িত্ব পালন করে যেতে বলেছেন। আগের মতোই প্রটোকলসহ সব ধরনের সুযোগ- সুবিধা পাবেন তিনি।

তিনি আরও বলেন, অন্য তিন টেকনোক্র্যাট মন্ত্রীর ক্ষেত্রেও বিষয়টি প্রযোজ্য হবে। এদিকে সকালে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী হিসেবেই নূরুল ইসলাম বিএসসি পূর্ব নির্ধারিত একটি অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছেন।

মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে পদত্যাগপত্র জমা দেওয়া চার মন্ত্রীর কেউ-ই সচিবালয়ে আসেননি। এর আগে মঙ্গলবার (৬ নবেম্বর) সকালে শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে মন্ত্রিসভা বৈঠকের পর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের সাংবাদিকদের বলেছিলেন, টেকনোক্র্যাট মন্ত্রীদের পদত্যাগ করতে নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।

তিনি বলেন, আজকে মন্ত্রিসভার বৈঠকের আনুষ্ঠানিক সমাপ্তি শেষে অনানুষ্ঠানিক বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী সভার টেকনোক্র্যাট মিনিস্টারদের পদত্যাগ করতে নির্দেশ দিয়েছেন, অন্যরা স্ব-পদে বহাল থাকবেন। এর পর ওইদিন সন্ধ্যায় একে একে টেকনোক্র্যাট মন্ত্রীরা পদত্যাগপত্র জমা দেন।

নিয়ম অনুযায়ী, চার মন্ত্রীর পদত্যাগপত্র মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে প্রধানমন্ত্রীর কাছে পাঠানো হবে। প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদনের পর তা যাবে রাষ্ট্রপতির কাছে। রাষ্ট্রপতি তাদের পদত্যাগের ফাইলে স্বাক্ষর করলে এদের অব্যাহতি দিয়ে আদেশ জারি করবে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ।

শেখ হাসিনার মন্ত্রিসভায় এই চারজনই টেকনোক্র্যাট ছিলেন; অর্থাৎ তারা নির্বাচিত সংসদ সদস্য নন। বাংলাদেশের সংবিধান অনুসারে, মন্ত্রিসভার মোট সদস্যের এক-দশমাংশ অনির্বাচিত হতে পারেন।

চলতি বছর জানুয়ারিতে মন্ত্রিসভায় সর্বশেষ রদবদলের পর ৩০ জন মন্ত্রী, ১৭ জন প্রতিমন্ত্রী এবং দুজন উপমন্ত্রী দায়িত্ব পালন করে আসছেন। তাদের মধ্যে কেবল পদত্যাগী চারজনই ছিলেন টেকনোক্র্যাট।

এদের মধ্যে চট্টগ্রামের নুরুল ইসলাম বিএসসি ও ময়মনসিংহের মতিউর রহমান আগে সংসদ সদস্য ছিলেন। জোটের স্বার্থে ২০১৪ সালের দশম সংসদ নির্বাচনে দুজনকেই নিজ নিজ আসন ছেড়ে দিতে হয়েছিল। প্রকৌশলী ইয়াফেস ওসমান শুরু থেকে মন্ত্রিসভায় থাকলেও তথ্য প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞ মোস্তাফা জব্বার চলতি বছরের জানুয়ারিতে মন্ত্রী হিসেবে শপথ নিয়েছিলেন।

মন্ত্রিসভার সদস্যরা ছাড়াও মন্ত্রীর পদমর্যাদায় প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ দূতের দায়িত্বে আছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদ। এছাড়া মন্ত্রীর পদমর্যাদায় প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা হিসেবে আছেন আরও পাঁচজন।