২৪ জানুয়ারী ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ট্রাম্পের বিরুদ্ধে সিএনএনের মামলা

ট্রাম্পের বিরুদ্ধে সিএনএনের মামলা

অনলাইন ডেস্ক ॥ মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও তাঁর শীর্ষ কয়েক সহযোগীর বিরুদ্ধে মামলা করেছে দেশটির প্রভাবশালী সংবাদমাধ্যম সিএনএন।

সংবাদ সম্মেলনে ট্রাম্পের সঙ্গে বিতর্কে জড়ানোর পর সিএনএনের প্রধান হোয়াইট হাউস সংবাদদাতা জিম অ্যাকোস্টার হোয়াইট হাউসে প্রবেশে মার্কিন প্রশাসন নিষেধাজ্ঞা আরোপের পর এই মামলা দায়ের করা হলো। হোয়াইট হাউসে অ্যাকোস্টার প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা সংবিধান লঙ্ঘনের শামিল—এ অভিযোগ এনে তাঁর প্রেস ক্রেডেনশিয়াল ফিরিয়ে দেওয়ার দাবিতে মঙ্গলবার ওয়াশিংটন ডিসির ডিস্ট্রিক্ট আদালতে মামলা করে সিএনএন।

ধর্ম, বাকস্বাধীনতা ও অন্যান্য বিষয়ে সরকারের আইন পরিবর্তন ক্ষমতা কমানোর জন্য যুক্তরাষ্ট্রের সংবিধানের প্রথম সংশোধনীর বিষয়ে গত সপ্তাহে এক সংবাদ সম্মেলনে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পকে প্রশ্ন করতে চাইলে অ্যাকোস্টাকে বিরত রাখতে একপর্যায়ে তাঁর মাইক্রোফোন কেড়ে নেওয়া হয়।

এ ঘটনায় অ্যাকোস্টা ও সিএনএনের সাংবিধানিক অধিকার কেড়ে নেওয়া হয়েছে বলে মামলায় দাবি করেছে সিএনএন।

মামলায় ট্রাম্পের পাশাপাশি চিফ অব স্টাফ জন কেলি ও ঘটনার দিন অ্যাকোস্টার সঙ্গে দুর্ব্যবহার করা হোয়াইট হাউসের প্রেস সেক্রেটারি সারাহ স্যান্ডার্সকে বিবাদী করা হয়েছে।

অন্যদিকে মঙ্গলবার সারাহ স্যান্ডার্স এক বিবৃতিতে বলেছেন, ‘অ্যাকোস্টা সিএনএন নেটওয়ার্কের প্রায় ৫০ জন প্রবেশাধিকার পাসধারী সাংবাদিকের একজন। অ্যাকোস্টার দ্বারা অন্য সাংবাদিকদের অসুবিধা সৃষ্টির ঘটনা এটাই প্রথম নয়।’

উপস্থিত দেড়শ সাংবাদিকের মধ্যে একজনের আচরণের কারণে প্রথম সংশোধনীই ভেস্তে গেছে বলে বিবৃতিতে দাবি করা হয়েছে।

এ ছাড়া হোয়াইট হাউসের এই প্রেস সেক্রেটারি অ্যাকোস্টার বিরুদ্ধে হোয়াইট হাউসের একজন শিক্ষানবিশ নারীকর্মীকে হেনস্তার অভিযোগও তুলেছেন। তবে অ্যাকোস্টা একে ‘সম্পূর্ণ মিথ্যা’ বলে অ্যাখ্যা দিয়ে অভিযোগ শক্তভাবে প্রত্যাখ্যান করেছেন।

জিম অ্যাকোস্টা এক টুইট বার্তায় জানিয়েছে, হোয়াইট হাউস থেকে আসা মিথ্যা কথা বিশ্বাস করবেন না। পাশে থাকার জন্য সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়ে তিনি বলেন, ‘আমরা পড়ে যাব না।’

সিএনএন এক বিবৃতিতে বলেছে, ‘আমরা আদালতকে জিম অ্যাকোস্টার প্রবেশাধিকার পাস ফিরিয়ে দিতে ব্যবস্থা নেওয়ার আবেদন জানিয়েছি। এটা আজ সিএনএন এবং জিম অ্যাকোস্টার সঙ্গে করা হয়েছে, কাল তা অন্য যে কারো সঙ্গে করা হতে পারে।’

সিএনএন আরো বলেছে, ‘হোয়াইট হাউসের এই অপকর্মকে ছেড়ে দেওয়া হলে আমাদের নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিদের কাভার করতে যাওয়া সাংবাদিকরা ভয়াবহ পরিস্থিতির মুখে পড়বে।’

এই মাত্রা পাওয়া