২৪ জানুয়ারী ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

করদাতাদের হয়রানি বরদাস্ত করব না

করদাতাদের হয়রানি বরদাস্ত করব না

অর্থনৈতিক রিপোর্টার॥ জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া বলেছেন, ‘করদাতারা যাতে হয়রানি ছাড়াই নির্ভয়ে ও স্বাচ্ছন্দ্যে কর পরিশোধ করতে পারে সে পরিবেশ নিশ্চিত করতে হবে। কোনোভাবেই হয়রানি বরদাস্ত করব না।’

বুধবার দুপুরে রাজধানীর বেইলী রোডে অফিসার্স ক্লাবে আয়কর মেলায় ‘কর শিক্ষণ ফোরামে’র কুইজ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

এনবিআর চেয়ারম্যান বলেন, ‘আয়কর মেলায় করদাতাদের উপস্থিতি দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। মানুষের আগ্রহের পরিমাণ ক্রমাগতভাবে বাড়ছে। মানুষ দলে দলে মেলায় রিটার্ন জমা দিচ্ছে। কোনো রকম হয়রানি ছাড়াই নির্ভয়ে ও স্বাচ্ছন্দ্যে রিটার্ন জমা দিয়ে রশিদ নিচ্ছে।’ কর্মকর্তাদের উদ্দেশে তিনি বলেন, আয়কর দিতে গিয়ে কেউ যেন ভীতির সম্মুখীন না হয়, সে বিষয়ে সচেতন থাকতে হবে। তবেই করদাতার সংখ্যা বাড়বে।

সচেতনতার অভাব ও ট্যাক্স না দিয়ে থাকার প্রবণতার কারণে বেশিরভাগ লোক করের আওতার বাইরে রয়েছে, উল্লেখ করে মোশাররফ হোসেন ভূইয়া বলেন, গ্রামের মানুষের মধ্যে কর না দেওয়ার প্রবণতা বেশি। পাশাপাশি শহরের মধ্যে পড়াশুনা কম থাকা ব্যক্তিরাই কর দিচ্ছে কম। বাজেটে আয়কর আদায়ে বড় লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে। তার জন্য ভ্যাট ও ট্যাক্সের পরিমাণ বৃদ্ধি করতে হবে। তার জন্য সাধারণ মানুষকে মোটিভেট করছি। পাশাপাশি খবর সংগ্রহ করে যারা করে আওতায় আছেন, তাদের চিহ্নিত করে করের আওতায় আনার চেষ্টা করছি।

তিনি বলেন, জনবল বৃদ্ধি ও নতুন অফিস তৈরি করার কর্মপন্থা নিয়েছি। আশা করছি, আগামী ২-৩ বছরে রাজস্ব আহরণে আমূল পরিবর্তন আসবে। এই দুটো করতে পারলে একটা জাম্প দিয়ে রাজস্ব আহরণ বাড়বে। বর্তমানে যা আহরণ হচ্ছে তার দ্বিগুণ রাজস্ব আদায় হবে।

‘সরকারি চাকরির উদ্দেশ্য শুধু পয়সা উপার্জন করা নয়, সাধারণ মানুষকে সেবা দেওয়া। দেশের উন্নয়নের জোয়ার চলছে। এর পেছনে খেটে খাওয়া মানুষ থেকে শুরু করে সরকারের সর্বোচ্চ পর্যায়ের মানুষের অবদান রয়েছে,’ বলেন জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের চেয়ারম্যান।

এই মাত্রা পাওয়া