১২ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

এক সঙ্গে পাঁচটি ধারাবাহিক করতে অসুবিধা নেই -ঈশানা

মৌনতা খান ঈশানা। এ সময়ের টিভি পর্দার জনপ্রিয় ও পরিচিত মুখ ঈশানা। লাক্স তারকা হয়ে মিডিয়াতে তার আগমন। নাটক ছাড়াও মডেলিং ও বিজ্ঞাপনে কাজ করেন তিনি। সমসাময়িক কাজ ও বিভিন্ন বিষয়ে তার সঙ্গে কথা বলেছেন- রুহুল আমিন ভূঁইয়া

আনন্দকণ্ঠ : সমসাময়িক ব্যস্ততা-

ঈশানা : কক্সবাজারে টানা ছয় দিনে পাঁচটি নাটকের কাজ শেষ করে ঢাকায় ফিরে দুটি নাটকে কাজ করলাম। কাজ দুটি শেষ করে চার দিনের বেড রেস্ট নিতে হয়েছে একটু অসুস্থ। তবে ডাক্তার সাত দিনের বেড রেস্ট নিতে বলেছেন। কিন্তু ফের বুধবার থেকে ক্যামেরার সামনে দীপ্ত টিভির খলনায়ক সিরিয়ালের জন্য দাঁড়াতে হয়েছে। সিরিয়ালে মেঘ চরিত্রে দেখা যাবে আমাকে। কাজের চাপের কারণে রেস্ট নেয়ার সুযোগ নেই।

আনন্দকণ্ঠ : ছয় দিনে পাঁচটি নাটক কি ভাবে সম্ভব?

ঈশানা : এক দিনে একটি নাটক করায় আমি কখনও পক্ষপক্ষিত্ব নই। এই প্রজেক্ট করতে আমাদের কারও কষ্ট হয়নি। ভাল পরিচালক ছিল এবং নাটকের টিমটি যথেষ্ট ভাল ছিল। যার কারণে সমস্যা হয়নি। গল্প লোকেশন পরিকল্পনা সব কিছু সুন্দরভাবে গোছানো ছিল। যেহেতু সময় কম ছিল তাই আমি চেষ্টা করেছি প্রত্যেকটি চরিত্র যথাযথভাবে ফুটিয়ে তুলতে। নির্মাতারাও আমাকে সহযোগিতা করেছেন যার যার অবস্থানে থেকে। যে কারণে অল্প সময়ে এতগুলো নাটকে কাজ করা সম্ভব হয়েছে। আমি কাজ করে মুগ্ধ।

আনন্দকণ্ঠ : খ- নাটকে বেশি দেখা যায়-

ঈশানা : ধারাবাহিকের ক্ষেত্রে একটা ভয় থাকে যে গল্পটি কোথায় যাবে। কিভাবে যাচ্ছে, কি হচ্ছে। সব সময় এটা আমাদের হাতে থাকে না। এ পর্যন্ত যতগুলো ধারাবাহিকে কাজ করেছি কাজগুলো নিয়ে আমি সন্তুষ্ট। ধারাবাহিকে কাজ করে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করি। গল্প চরিত্র ভাল হলে এক সঙ্গে পাঁচটি ধারাবাহিক করতে অসুবিধা নেই।

আনন্দকণ্ঠ : নাটকের আকর্ষণ হারাচ্ছে?

ঈশানা : নাটকের আকর্ষণ হারাচ্ছে না বরং আকর্ষণ বাড়ছে। গত কয়েক বছর যাবদ নাটকের মান অনেক ভাল হচ্ছে। বরাবরই আমাদের দেশের নাটক অনেক সুন্দর হচ্ছে। তবে ভাল-মন্দ থাকবেই। সব সময় এক রকম যায় না। তাই বলে মন্দর পরিমাণ বেশি নয়, বরং ভালর পরিমাণ বেশি। বিগত কয়েক বছর যাবত আমাদের নাটক খুবই ভাল হচ্ছে।

আনন্দকণ্ঠ : কত ধরনের গল্পেই অভিনয় করছেন। বিভিন্ন দেশে শুটিং করতে যাওয়া হয়। হুট করে কি মাথায় কোন গল্প বা বিষয় গেঁথে যায়। যেটা নিয়ে নাটক সিনেমা বানাতে মন চায়?

ঈশানা : আমরা অভিনেত্রী হিসেবে লাকী যে, একসঙ্গে অনেকগুলো জীবন ধারণ করার সুযোগ পাচ্ছি। ছোটবেলা থেকে যা যা ইচ্ছে ছিল আমার মনে হয় সব পেয়ে গেছি। আমাদের আশপাশে অনেক গল্প আছে যেগুলো নিয়ে নাটক সিনেমা বানানো সম্ভব। যেমন শূটিং সেটে ঘটে যাওয়া বিভিন্ন বিষয় নিয়ে নাটক বানানো যেতে পারে। শূটিং সেটে অনেক ঘটনা ঘটে। শূটিয়ের সেট নিয়ে যদি নাটক বানায় তাহলে নাটকটি হিট হবে। শূটিং ইউনিটের দৃশ্য নিয়ে নাটক সিনেমা বানাতে ইচ্ছে করে।

আনন্দকণ্ঠ : নাটক দেখার মাধ্যম পরিবর্তন-

ঈশানা : দর্শক হিসেবে যদি বলি এটা খুবই ভাল। বেশ কিছুদিন আগে আমার একটি নাটক টিভিতে প্রচারিত হয়েছে। শূটিংয়ের কারণে আমি নাটকটি দেখতে পারিনি। নাটকটি আমার খুব পছন্দের। নাটকটি দেখার জন্য ইউটিউবে লিংক দেয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হয়েছিল। ইউটিউব না থাকলে এটা আমি দেখতে পেতাম না। ইউটিউবের কারণে দেখতে পেলাম। তবে টিভিতেও মানুষ নাটক দেখছে। টিভিতে নাটক দেখার পক্ষে আমি। টিভিকেই নাটক দেখার মাধ্যম হিসেবে এগিয়ে রাখব। টিভিতে দেখছে না এটা ভুল কথা। সময় স্বল্পতা ব্যস্ততা সব কিছু মিলিয়ে টিভিতে নাটক দেখতে না পেরে ইউটিউবে দেখছে। এটা খারাপ কিছু না। ইউটিউবের জন্য ওয়েব সিরিজ করে অনেক ভাল রেসপন্স পেয়েছি। তবে আমার কাছে মনে হয় টিভিতে দেখতে ভাল লাগে। সবাই মিলে এক সঙ্গে নাটক দেখার জন্য অপেক্ষা করা। আগ্রহ নিয়ে বসে থাকা এটা আমার কাছে খুব ভাল লাগে।

নির্বাচিত সংবাদ