১৮ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

মানুষ এখন নির্বাচনমূখী : স্বাস্থ্যমন্ত্রী

মানুষ এখন নির্বাচনমূখী : স্বাস্থ্যমন্ত্রী

স্টাফ রিপোর্টার ॥ স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, দেশের মানুষ বিপুল উৎসাহ উদ্দীপনা নিয়ে নির্বাচনমূখী হয়ে উঠেছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আহ্বানে নির্বাচনে সব দল আসায় দেশে ভোটের উৎসবের পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে। বর্তমান সরকার দেশ থেকে জঙ্গীবাদ নির্মূল করেছে, বিদ্যুৎ সংকটের সমাধান করেছে। জনগণের দোরগোড়ায় আধুনিক ও মানসম্মত স্বাস্থ্য সেবা পৌঁছে দিয়েছে।

পদ্মা সেতু নির্মাণ শুরু করাসহ যোগাযোগ ব্যবস্থায় আমূল পরিবর্তন এনেছে। গ্রামে গ্রামে তথ্য প্রযুক্তি সেবা সহজলভ্য করেছে। তাই আগামী নির্বাচনেও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে উন্নয়নের ধারাবাহিকতা রাখতে জনগণ ঐক্যবদ্ধ থাকবে বলে মন্ত্রী আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

রবিবার রাজধানীর মুগদা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল পরিদর্শনকালে সাংবাদিকদের সাথে মত বিনিময়ের সময়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী একথা বলেন। এসময় স্থানীয় সংসদ সদস্য সাবের হোসেন চৌধুরী, কলেজের অধ্যক্ষ ডা. শাহ গোলাম নবী, হাসপাতালের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক ডা. আমিন আহমেদ খান উপস্থিত ছিলেন। স্বাস্থ্যমন্ত্রী হাসপাতালের বিভিন্ন ওয়ার্ড পরিদর্শন করে চিকিৎসধীন রোগীদের সাথে কথা বলেন এবং হাসপাতালের সেবার মান সম্পর্কে খোঁজ খবর নেন।

পরে মন্ত্রী হাসপাতালের সভাকক্ষে চিকিৎসকদের সাথে মতবিনিময়কালে বলেন, সরকার জনগণের স্বাস্থ্যমান পৌঁছে দিতে রাজধানীসহ সারাদেশে নতুন নতুন হাসপাতাল নির্মাণ করে অত্যাধুনিক চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত করেছে। রাজধানীর বিভিন্ন প্রান্তে সরকারি হাসপাতাল নির্মাণের উদ্যোগ হিসাবে মুগদায় পাঁচশত শয্যার অত্যাধুনিক হাসপাতাল নির্মাণ করেছে যাতে শহরের উপকন্ঠের জনগণ দ্রুত চিকিৎসা নিতে পারে। তিনি চিকিৎসদেরকে আন্তরিকতার সাথে রোগীদের পাশে থেকে চিকিৎসা নিশ্চিত করতে এসময় আহ্বান জানান।

চিকিৎসাসেবা ও চিকিৎসা শিক্ষার উপর গুরুত্বপূর্ণ দিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, দেশের হাসপাতালগুলোর চিকিৎসাসেবা এবং চিকিৎসা শিক্ষার মান উন্নয়নে বহুমুখী কর্মসূচী বাস্তবায়ন করে যাচ্ছে সরকার। গড়ে তোলা হয়েছে নতুন নতুন অবকাঠামো। নিয়োগ দেয়া হয়েছে বিশাল সংখ্যার নতুন জনবল। শিক্ষকদের পদায়নে এসেছে গতি। প্রতিটি হাসপাতাল ও মেডিক্যাল কলেজে অব্যাহত রেখেছে মনিটরিং কার্যক্রম। প্রশ্নবিদ্ধ মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালগুলোর বিষয়ে কোন ছাড় দেয়া হচ্ছে না। বেশ কিছু মেডিক্যাল কলেজের কার্যক্রম ইতোমধ্যে বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।

কয়েকটি কলেজকে সতর্ক করে দেয়া হয়েছে। মেডিক্যাল কলেজগুলোর মান বজায় রাখতে হবে। নিম্নমানের কলেজ থেকে বের হয়ে একজন দক্ষ চিকিৎসক এবং মানসম্মত চিকিৎসাসেবা দেয়া সম্ভব নয়। এ ধরনের চিকিৎসকরা অনেক সময় জাতির জন্য হুমকি হয়ে ওঠেন। ভাড়াটে ক্যাম্পাসে স্বাস্থ্যকর পরিবেশ থাকে না। নতুন কলেজ অনুমোদন দেয়ার ক্ষেত্রে সতর্ক রয়েছে সরকার।