১৮ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সাক্ষাৎকার কিভাবে নেব এটা আমাদের সিদ্ধান্ত : মির্জা ফখরুল

সাক্ষাৎকার কিভাবে নেব এটা আমাদের সিদ্ধান্ত   :  মির্জা  ফখরুল

অনলাইন রিপোর্টার ॥ বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য নির্বাচন কমিশন (ইসি) এখন পর্যন্ত কোনো পরিবেশ তৈরি করতে সক্ষম হয়নি। এজন্যই তাদের মুখে এই সমস্ত কথা বলা ঠিক নয়। আর আমার দলের মধ্যে আমি কিভাবে সাক্ষাৎকার নেব এটা আমাদের সিদ্ধান্ত। সেটা তাদের কোনো এখতিয়ার আছে বলে আমরা মনে করি না।

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান ভিডিও কনফারেন্সে দলের মনোনয়ন প্রত্যাশীদের সাক্ষাৎকার নিচ্ছেন, এতে নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘন হচ্ছে-ইসিতে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের এমন অভিযোগের জবাবে মির্জা ফখরুল এই কথা বলেন। আজ রবিবার সন্ধ্যায় গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন ফখরুল।

মনোনয়ন প্রত্যাশীদের আপনারা কী নির্দেশনা দিচ্ছেন এমন প্রশ্নের জবাবে বিএনপির মহাসচিব বলেন, ‘নির্বাচন যেন তারা সুষ্ঠুভাবে করার চেষ্টা করে, এবং জয়ের জন্য যে নির্বাচন সেই জয়ের নির্বাচন তারা করে। কেউ যেন কারচুপি করতে না পারে, কেউ যেন আগের মতো দখল করতে না পারে সে বিষয়ে সজাগ এবং সচেতন থাকার জন্যই আমরা তাদেরকে বলেছি।’ মির্জা ফখরুল বলেন, প্রথমদিনে রংপুর বিভাগে ৩৩ আসনে ১৫৮ জনের সাক্ষাৎকার নেওয়া হয়েছে। রাজশাহী বিভাগে ৪১ আসনে ৩৬৮ জনের সাক্ষাৎকার চলছে।

বিএনপির এই নেতা বলেন, গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার ও খালেদা জিয়ার মুক্তির অংশ হিসেবে আমরা নির্বাচনে গেছি। সেই জন্য দলের আনুষ্ঠানিকতার কাজগুলো করছি। আজ আমাদের দলের মনোনয়ন প্রত্যাশীদের সাক্ষৎকার গ্রহণ শুরু হয়েছে।

ফখরুল বলেন, আমরা মনে করছি না অবাধ, সুষ্ঠু ও অংশগ্রহণমূলক নির্বাচনের সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে। যে নির্বাচনের জন্য আমরা দীর্ঘকাল আন্দোলন সংগ্রাম করছি, সরকার এক তরফা, একদলীয় নির্বাচন করার পায়তারা করে যাচ্ছে।

বিএনপির মহাসচিব বলেন, ২০ দল, জাতীয় ঐক্যফ্রন্টসহ একটি ফলপ্রসূ ও অর্থবহ নির্বাচনের দাবি সব সময় তুলে ধরছে। আমরা নিজেরাও সংলাপে গিয়েছি। নিরপেক্ষ নির্বাচনের জন্য সমতল ক্ষেত্র এখনো তৈরি হয়নি। সংসদ ভেঙে দেওয়া হয়নি। মিডিয়া নিরপেক্ষ ভূমিকা পালন করছে না। বিটিভি, সংবাদ সংস্থা, বেসরকারি গণমাধ্যমগুলো সরকারের তথাকথিত উন্নয়নগুলো প্রচার করছে। নিরপেক্ষতা বজায় রাখছে না। গ্রেফতার বন্ধ হয়নি। বার বার বলার পরও গ্রেপ্তার চলছে। দুর্ভাগ্য যে এগুলো সুষ্ঠু নির্বাচনের ক্ষেত্রে বড় অন্তরায় হয়ে দাঁড়াবে।

মির্জা ফখরুল বলেন, আমরা চাই সুষ্ঠু অবস্থা তৈরি হোক, দলগুলো যে অবস্থায় স্বস্তি অনুভব করবে। মামলা-মোকদ্দমা বন্ধ করা হোক। বিটিভিকে নিরপেক্ষতা বজায় রাখতে হবে। তথাকথিত উন্নয়ন প্রচার বন্ধ রাখতে হবে। বিরোধী দলের নেতাকর্মীদেরও সমান সুযোগ দিতে হবে। এই বিষয়গুলো ইসিকে জানানো হয়েছে। আরো অন্যান্য বিষয়গুলো জানানো হবে।