১৯ মার্চ ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ঈশ্বরদী হাসপাতালে মৃত স্ত্রীকে রেখে পালিয়ে গেল স্বামী

ঈশ্বরদী হাসপাতালে মৃত স্ত্রীকে রেখে পালিয়ে গেল স্বামী

স্টাফ রিপোর্টার, ঈশ্বরদী ॥ ঈশ্বরদী সদর হাসপাতালে মৃত স্ত্রীকে রেখে পালিয়ে গেছে স্বামী। ঘটনাটি ঘটেছে সোমবার রাতে । মৃত গৃহবধূর নাম সীমা আক্তার (২৫)। সে ঈশ্বরদীর দিয়াড় বাঘইল গ্রামের আব্দুর রহমানের ছেলে আবু রায়হান রাজেশের স্ত্রী। সীমার গলায় দড়ির দাগ রয়েছে। স্বজনদের দাবি সীমাকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে।

সীমার মামাতো ভাই রনি জানান, তাদের পাঁচ বছর ধরে বিয়ে হয়েছে এবং তাদের চার বছর বয়সী একটি পুত্র সন্তান আছে। যৌতুকের জন্য প্রায়ই সীমাকে নির্যাতন করতো রাজেশ । সে একটি বেসরকারি ঔষধ কোম্পানীর বিক্রয় প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করেন। ঘটনার পর ঐদিন রাতে লোক মারফত খবর পেয়ে হাসপাতালে এসে সীমাকে মৃত অবস্থায় দেখেছেন। সীমাকে তার স্বামী হাসপাতালে এনেছিলেন।

কর্তব্যরত চিকিৎসক যখন সীমা মারা গেছেন বলে রাজেশকে জানান, তখন সে সীমাকে হাসপাতালে রেখে পালিয়ে যায়। সীমার গলায় দড়ির আঘাতের দাগ রয়েছে। তাকে হত্যা করা হয়েছে। সীমা ঈশ্বরদী শহরের শৈলপাড়া এলাকার মৎস্য ব্যবসায়ী নূর আলীর মেয়ে। সীমার মৃত্যু খবর পেয়ে পরিবারের লোকজন হাসপাতালে এসে কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন।

ঈশ্বরদী সদর হাসপাতালের চিকিৎসক ডাঃ কাবেরি সাহ জানান, সীমা আক্তারের গলায় ফাঁসের দাড়ির দাগ রয়েছে। ময়নাতদন্তের পর মৃত্যুর প্রকৃত রহস্য জানা যাবে।