১৯ মার্চ ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

রাঙ্গাবালীতে আওয়ামী লীগ-বিএনপি সংঘর্ষে আহত ৫০, আটক ৮

রাঙ্গাবালীতে আওয়ামী লীগ-বিএনপি সংঘর্ষে আহত ৫০,  আটক ৮

স্টাফ রিপোর্টার, গলাচিপা ॥ পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালী উপজেলার বাহেরচর বন্দরের খোলগোড়ায় একইস্থানে পাল্টাপাল্টি নির্বাচনী পথসভা কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগ-বিএনপির রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে উভয় পক্ষের অন্তত ৫০ জন আহত হয়েছে। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ৮ জনকে আটক করেছে। মঙ্গলবার বিকেল চারটার দিকে এ ঘটনা ঘটেছে।

স্থানীয় লোকজন ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, খালগোড়া বাজারের রাঙ্গাবালী জাহাগিরিয়া শাহ সুফি মমতাজিয়া সুন্নিয়া দাখিল মাদ্রাসা মাঠে বিএনপির ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী বিএনপির কেন্দ্রীয় প্রশিক্ষণ বিষয়ক সম্পাদক এবিএম মোশাররফ হোসেনের উপস্থিতিতে এক সভার আয়োজন করা হয়। পরে একইসময় ওই বাজারের বালুর মাঠে আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকের প্রার্থী পটুয়াখালী জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মহিব্বুর রহমান মহিবের সমর্থকরাও সভার আয়োজন করেন। তবে মহিব্বুর রহমান সেখানে উপস্থিত ছিলেন না।

এতে একই স্থানে একই সময়ে পাল্টাপাল্টি সভা হওয়ায় দুই পক্ষের নেতাকর্মী ও সমর্থকদের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। একপর্যায় উভয় পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। দফায় দফায় দেড়-দুই ঘন্টাব্যাপী দুই পক্ষের সংঘর্ষেÑ এনামুল ইসলাম লিটু, মজিবর রহমান, মশিউর রহমান শিমুল, সোহেল মাতুব্বর, জসিম হাওলাদার, বাবু তালুকদার, মহসিন মৃধা, রাজিব রহমান, জাকির, মিজানুর রহমান, শওকত প্যাদা, মহসিন হাওলাদার, মাসুম হাওলাদার, নাজমুল হোসেন, রাব্বি হাওলাদার, স্বপন, তোতা মিয়া, সাদ্দাম হোসেন ও নিয়াজ আকনসহ অন্তত অর্ধশত নেতাকর্মী ও সমর্থক আহত হয়েছেন। পরে ঘটনাস্থলে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন এবং ঘটনায় জড়িত সন্দেহে ৮জনকে আটক করেন। তবে এতে দুই পক্ষের ডাকা সভা প- হয়ে যায়। এ ঘটনায় স্থানীয় ব্যবসায়ী ও লোকজনের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে।

ঘটনার বিষয়ে স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা ও রাঙ্গাবালী সদর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান সাইদুজ্জামান মামুন অভিযোগ করেন, খালগোড়া বাজারে মঙ্গলবার বিকেলে আওয়ামী লীগ প্রার্থীর প্রথম পূর্ব নির্ধারিত নির্বাচনী পথসভা ছিল। যা স্থানীয় প্রশাসনকে আগেই জানান হয়েছে। সভা শুরুর কিছু আগে বিএনপির একদল সন্ত্রাসী লাটিসোটা নিয়ে দুই দিক থেকে পথসভায় হামলা করে। তারা এলোপাথারি কুপিয়ে পিটিয়ে তাদের দলের ৩০-৩৫ জন নেতাকর্মীকে আহত করে। খবর পেয়ে আওয়ামী লীগের কর্মীরা পাল্টা হামলা চালায়। এতে বিএনপিরও অন্তত ১০-১৫ জন আহত হয়। এসময় গোটা এলাকা রণক্ষেত্রে পরিণত হয় এবং উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। স্থানীয় সংবাদকর্মীরাও অবরুদ্ধ হয়ে পড়েন। ঘটনা সম্পর্কে বিএনপি অভিযোগ করেছে, আওয়ামী লীগই প্রথম হামলা করেছে।

এ ব্যাপারে রাঙ্গাবালী থানার ওসি মিলন কৃষ্ণ মিত্র বলেন, আওয়ামী লীগের উঠোন বৈঠক চলছিল। সেখানে বিএনপির লোকজন গিয়ে আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের ওপর হামলা চালায়। সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করেছি এবং তাৎক্ষনিকভাবে ৮জনকে আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।