২১ মার্চ ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

রনি-আশরাফুলের অপরাজিত সেঞ্চুরি

  • বিসিএলে রানের পাহাড় পূর্বাঞ্চলের, মধ্যাঞ্চলের ব্যাটিং বিপর্যয়

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ সপ্তম বাংলাদেশ ক্রিকেট লীগের (বিসিএল) চতুর্থ রাউন্ডের প্রথমদিনেই সেঞ্চুরি পেয়েছেন মোহাম্মদ আশরাফুল। দল না পাওয়ার কারণে প্রথম দুই রাউন্ড খেলতে পারেননি। শেষ পর্যন্ত ইসলামী ব্যাংক পূর্বাঞ্চল তাকে টেনে নিয়ে তৃতীয় রাউন্ডে নামিয়েছিল। ব্যাট হাতে আগের রাউন্ডে একটি অর্ধশতক ও বল হাতে ৪ উইকেটও নিয়েছিলেন। আর মঙ্গলবার রাজশাহীর শহীদ কামরুজ্জামান স্টেডিয়ামে বিসিবি উত্তরাঞ্চলের বিপক্ষে অপরাজিত থাকলেন ১০৭ রানে, ওপেনার রনি তালুকদারও ১৮৩ রানে ব্যাট করছেন। দু’জনের ব্যাটে ভর দিয়ে প্রথমদিন শেষে ৩ উইকেটে ৩৫৪ রান তুলে ইতোমধ্যেই বিশাল সংগ্রহ গড়ে তুলেছে পূর্বাঞ্চল। তবে চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে প্রথমদিনেই ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়েছে ওয়ালটন মধ্যাঞ্চল। প্রাইম ব্যাংক দক্ষিণাঞ্চলের বিপক্ষে প্রথমদিন শেষ করেছে তারা ৮ উইকেটে ২৩৪ রান নিয়ে।

পূর্বাঞ্চল-উত্তরাঞ্চল ম্যাচ (রাজশাহী) ॥ টস জিতে আগে পূর্বাঞ্চলকে ব্যাটিংয়ে পাঠায় উত্তরাঞ্চল। দ্বিতীয় ওভারেই ওপেনার সাদিকুর রহমান (০) ও দলীয় ৪১ রানে নির্ভরযোগ্য মুমিনুল হক (২৬) সাজঘরে ফেরেন। তৃতীয় উইকেটে রনির সঙ্গে ৭২ রানের জুটি গড়ে সেই বিপর্যয় কিছুটা কাটিয়ে তোলেন মাহমুদুল হাসান। তিনিও ২৯ রান করে সাজঘরে ফেরেন। এরপর আশরাফুল উইকেটে এসে দারুণ ধৈর্যের পরিচয় দেন। রনির পর তিনিও সেঞ্চুরি আদায় করে নেন। দু’জন অবিচ্ছিন্ন থেকে ২৪১ রানের জুটি গড়ে পূর্বাঞ্চলকে দারুণ এক সংগ্রহে পৌঁছে দিয়েছেন। রনি ২৪১ বলে ১৯ চার, ৫ ছক্কায় ১৮৩ রানে এবং আশরাফুল ১৮৬ বলে ১৩ চারে ১০৭ রানে ব্যাট করছেন।

মধ্যাঞ্চল-দক্ষিণাঞ্চল ম্যাচ (চট্টগ্রাম) ॥ রাজশাহীতেও টস জিতে মধ্যাঞ্চলকে ব্যাটিংয়ে পাঠায় দক্ষিণাঞ্চল। মাত্র ১৬ রানে ২ উইকেট হারালেও তৃতীয় উইকেটে ৮৫ রানের জুটি গড়ে বিপর্যয় কাটান ওপেনার সাদমান ইসলাম ও মার্শাল আইয়ুব। মার্শাল ৪৪ রানে ক্যাচ দিয়ে এবং সাদমান ১৩৮ বলে ৬ চারে ৬০ রানে রানআউট হওয়ার পর ধস নামে মধ্যাঞ্চলের ইনিংসে। এরপর ৭ নম্বরে নেমে তাইবুর রহমান কিছুটা দৃঢ়তা দেখিয়ে ৪৩ রানে অপরাজিত আছেন। দিনশেষে ৮ উইকেটে ২৩৪ রান নিয়ে তেমন স্বস্তিতে নেই মধ্যাঞ্চল। উত্তরাঞ্চলের পক্ষে পেসার আলআমিন হোসেন ৩টি এবং মেহেদী হাসান ও আব্দুর রাজ্জাক দুটি করে উইকেট নিয়েছেন।