১২ ডিসেম্বর ২০১৮

স্বাধীনতা সার্বভৌমত্ব রক্ষায় আধুনিক বিমান বাহিনী অপরিহার্য

  স্বাধীনতা সার্বভৌমত্ব রক্ষায় আধুনিক বিমান বাহিনী অপরিহার্য

স্টাফ রিপোর্টার, যশোর অফিস ॥ রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ বলেছেন, দেশের স্বাধীনতা সার্বভৌমত্ব রক্ষায় যে কোন জাতির জন্য একটি পেশাদার ও আধুনিক বিমান বাহিনী অপরিহার্য। আর সে লক্ষ্যেই বিমান বাহিনীর সার্বিক উন্নয়নে বর্তমান সরকার কাজ করে যাচ্ছে। বর্তমানে আমাদের বিমান বাহিনীতে যোগ হয়েছে অত্যাধুনিক যুদ্ধবিমান, পরিবহন বিমান, হেলিকপ্টার, উচ্চক্ষমতা সম্পন্ন আকাশ প্রতিরক্ষা রাডার, ক্ষেপণাস্ত্র এবং অত্যাধুনিক সমরাস্ত্র। বিমান বাহিনীর সক্ষমতা বহুলাংশে বৃদ্ধি পেয়েছে। আমার বিশ্বাস ফোর্সেস গোল ২০৩০ বাংলাদেশ বিমান বাহিনীকে আরও শক্তিশালী করবে। বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর ৭৫তম বাফা কোর্স ও ডিরেক্ট এন্ট্রি ২০১৮ কোর্সের কমিশন প্রাপ্তি উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি কুচকাওয়াজে প্রধান অতিথির ভাষণে তিনি এ কথা বলেন। বুধবার বেলা সাড়ে এগারোটায় যশোরে অবস্থিত বিমান বাহিনী একাডেমি প্যারেড গ্রাউন্ডে এ কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠিত হয়। রাষ্ট্রপতি প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে কুচকাওয়াজ পরিদর্শন, অভিবাদন গ্রহণ এবং ফ্লাইট কাডেটদের মাঝে পদক, সনদপত্র ও ব্যাজ বিতরণ করেন।

ফ্লাইট ক্যাডেট স্কোয়াড্রন জুনিয়র আন্ডার অফিসার রিয়ানা আজাদ ৭৫তম বাফা কোর্সে সেরা চৌকস কৃতিত্বের জন্য ‘সোর্ড অব অনার’ ও ফ্লাইট কাডেট বিএম তানভীর ইসলাম রাব্বি জেনারেল সার্ভিস প্রশিক্ষণ কৃতিত্বের জন্য ‘কমান্ড্যান্টস ট্রফি’ লাভ করেন। উড্ডয়ন সেরা কৃতিত্বের জন্য ফ্লাইট ক্যাডেট আর এইচ এম নাফি ‘বীরশ্রেষ্ঠ মতিউর রহমান ট্রফি’ অর্জন করেন। ৭৫তম ফ্লাইট ক্যাডেট কোর্সে সেরা কৃতিত্বের জন্য ফ্লাইট ক্যাডেট নাফিজ আল মানার ‘বিমান বাহিনী প্রধান’ ট্রফি অর্জন করেন। এছাড়া ১ নম্বর স্কোয়াড্রন চ্যাম্পিয়ন বিবেচিত হয়ে একাডেমি পতাকা লাভ করে।

প্রসঙ্গত, বাংলাদেশ বিমান বাহিনীতে ২০০০ সালে নারী কর্মকর্তা অন্তর্ভুক্তির পর এবারই প্রথম কোন নারী ক্যাডেট সেরা চৌকসের কৃতিত্বের জন্য ‘সোর্ড অব অনার’ লাভের গৌরব অর্জন করল। এবার ১০ জন মহিলা ক্যাডেটসহ ৬১ জন ফ্লাইট ক্যাডেট কমিশন লাভ করেছে। কুচকাওয়াজ শেষে বিমান বাহিনী একাডেমির বিভিন্ন প্রকার বিমানের মনোজ্ঞ ফ্লাইপাস্ট অনুষ্ঠিত হয়।

এর আগে রাষ্ট্রপতি বিমান বাহিনী একাডেমির প্যারেড গ্রাউন্ডে এসে পৌঁছালে বিমান বাহিনী প্রধান এয়ার চীফ মার্শাল মাসিহুজ্জামান সেরনিয়াবাত এবং বিামন বাহিনী একাডেমির কমান্ড্যান্ট এয়ার কমডোর মুহাম্মদ শাফকাত আলী তাঁকে স্বাগত জানান।