১৯ মার্চ ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

উন্নয়নের রাজনৈতিক প্রতীক হচ্ছে নৌকা ॥ আইনমন্ত্রী

স্টাফ রিপোর্টার, ব্রাহ্মণবাড়িয়া ॥ আওয়ামী লীগ ও নৌকা মার্কা হচ্ছে উন্নয়নের রাজনৈতিক প্রতীক। তাই আপনাদের কাছে আহ্বান জানাব নৌকা প্রতীকে ভোট দিয়ে আবারও বাংলাদেশের উন্নয়ন গতিশীল করার জন্য। আখাউড়ার মানুষ নৌকা প্রতীককে যেভাবে সম্মান দেখাচ্ছে তা অতুলনীয়। গ্রামে গ্রামে, পাড়ায় পাড়ায় নৌকা প্রতীকের পক্ষে সাড়া পড়েছে। মানুষ উন্নয়ন চায়, শান্তি চায়। তাই তারা নৌকা প্রতীকে ভোট দেবে। ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৪ (কসবা-আখাউড়া) আসনের মহাজোট মনোনীত প্রার্থী আইনমন্ত্রী এ্যাডভোকেট আনিসুল হক এমপি বৃহস্পতিবার আখাউড়া দক্ষিণ ইউনিয়নের নুরপুর গ্রামে নারীদের এক নির্বাচনী জনসভায় এসব কথা বলেন।

আইনমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী নারীদের কল্যাণে, তাদের উন্নয়নে বেশকিছু পদক্ষেপ নিয়েছে। এজন্য নারীরা আজ মাথা উঁচু করে দাঁড়াতে পারছে। তারা আজ স্বাবলম্বী। নারীদের উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, আমি আপনাদের সন্তান, আপনারা আমার মাতৃতুল্য। আপনারা আমাকে হুকুম দিয়ে শুধু বলবেন- আমি সমস্ত উন্নয়ন কাজ করে দেব।

সমাবেশে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন আখাউড়া পৌর মেয়র তাকজিল খলিফা কাজল, আখাউড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক অধ্যক্ষ জয়নাল আবেদীন, উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক আবুল কাশেম ভূঁইয়া, সেলিম ভূঁইয়া, আখাউড়া পৌরসভার সাবেক মেয়র মোঃ নূরুল হক ভূঁইয়া, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি ড. আব্দুল্লাহ ভূঁইয়া বাদল, উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পিয়ারা আক্তার পিওনা, মোগড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মনির হোসেন, দক্ষিণ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জালাল উদ্দিন, ধরখার ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আরিফুল হক বাছির, উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক আব্দুল মমিন বাবুল, উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি শাহাবুদ্দিন বেগ শাপলু, সাখাওয়াত হোসেন নয়ন প্রমুখ।

এছাড়া আইনমন্ত্রী আনিসুল হক দিনব্যাপী আখাউড়ার দক্ষিণ ইউনিয়নসহ সাতটি নির্বাচনী প্রচার সভায় যোগদান করেন। স্থানীয় নেতারা জানান, আইনমন্ত্রী অন্তত ১০ গ্রামে যান। তিনি সেখানকার ভোটারদের সঙ্গে দেখা করে দোয়া চান। তাছাড়া তিনি বিভিন্ন এলাকা ঘুরে ভোটারদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন। এ সময় তিনি আওয়ামী লীগ ও শেখ হাসিনার উন্নয়ন কর্মকান্ড তুলে ধরে নৌকা প্রতীকে ভোট চান। আইনমন্ত্রীর প্রতিটি সভা-সমাবেশ ও গণসংযোগে বিপুল সংখ্যক মানুষ উপস্থিত ছিলেন।