২১ মার্চ ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

আওয়ামী লীগ-বিএনপি সংঘর্ষ, ধাওয়া পাল্টাধাওয়া গাড়ি ভাংচুর ॥ নিহত ১

  • নির্বাচনী সহিংসতা

জনকণ্ঠ ডেস্ক ॥ সারাদেশে নির্বাচনী সহিংসতা চলছেই। বুধবার রাত ও বৃহস্পতিবারও দেশের বিভিন্ন জেলায় হামলা, পাল্টাহামলা, গাড়ি ভাংচুর, গোলাগুলির ঘটনা ঘটেছে। নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে দুটি স্থানে সংঘর্ষ হয়েছে। এ সময় ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া ও ইট পাটকেল নিক্ষেপের ঘটনা ঘটে। এতে কমপক্ষে ২৫ জন আহত হয়েছে। নেত্রকোনার কেন্দুয়ায় আওয়ামী লীগ ও বিএনপির সমর্থকদের সংঘর্ষ হয়েছে। এ সময় গুলি ও গাড়ি ভাংচুরের ঘটনা ঘটে। দুই প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে পাল্টাপাল্টি হামলার ঘটনা ঘটে। নোয়াখালী-১ আসনে বিএনপির প্রার্থী ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকনের গাড়িবহরে হামলা ও ভাংচুরের অভিযোগ করা হয়েছে। বগুড়ার সারিয়াকান্দিতে আওয়ামী লীগ প্রার্থীর মাইক কেড়ে নিয়ে তাতে আগুন ধরিয়ে দেয়া হয়েছে। পাবনা-১ আসনে ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী অধ্যাপক আবু সাইয়িদের গাড়িবহরে হামলা হয়েছে। এতে ১০ জন আহত হয়েছে বলে দাবি করা হয়। কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে আওয়ামী লীগ কর্মীদের ওপর হামলার পর বিএনপি নেতার বাড়ি পুড়িয়ে দেয়া হয়েছে। ভাংচুর করা হয়েছে দুটি মোটরসাইকেল। নির্বাচনী প্রচারের সময় সিরাজগঞ্জের তাড়াশে আওয়ামী লীগ নেতাকে কুপিয়ে জখম করা হয়েছে। ঝালকাঠিতে বিএনপির প্রার্থী জেবা আমিনা খানের গাড়িবহরে হামলা করে দুটি গাড়ি ভাংচুর করা হয়েছে। কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচরে বিএনপির নির্বাচনী সভায় বেপরোয়া লাঠিচার্জ করে পুলিশ। এতে বিএনপির প্রার্থীসহ কমপক্ষে ১৫ জন আহত হয়। এখান থেকে আটক করা হয় পাঁচজনকে। এদিকে হবিগঞ্জে আওয়ামী লীগ নেতা ও এক ইউপি সদস্যের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে একজন নিহত হয়েছে। আহত হয়েছে কমপক্ষে ৭৫ জন। নোয়াখালীর হাতিয়ায় আওয়ামী লীগ ও বিএনপির প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে কমপক্ষে ২০ জন আহত হয়েছে। এ সময় কয়েকটি গাড়ি ও দোকান ভাংচুর করা হয়। খবর স্টাফ রিপোর্টার ও নিজস্ব সংবাদদাতাদের।