২১ জানুয়ারী ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

শেয়ারবাজারে সপ্তাহব্যাপী দরপতন

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ পতনের বৃত্তে আটকা পড়েছে দেশের শেয়ারবাজার। বৃহস্পতিবারও পতনে শেষ হয়েছে শেয়ারবাজারের লেনদেন। এই দিনের পতন নিয়ে টানা ছয় কার্যদিবস পতনে দেশের শেয়ারবাজার। ঢাকা ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই ও সিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

এদিন ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ১৫ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ৫ হাজার ২৫১ পয়েন্টে। অপর সূচকগুলোর মধ্যে শরীয়াহ সূচক ৪ ও ডিএসই-৩০ সূচক ১ পয়েন্ট কমেছে দাঁড়িয়েছে যথাক্রমে ১ হাজার ২০৬ ও ১ হাজার ৮৪৩ পয়েন্টে।

ডিএসইতে ৪৯৯ কোটি ৬৯ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। যা আগেরদিন থেকে ১২ কোটি টাকা বেশি। আগেরদিন ডিএসইতে লেনদেন হয়েছিল ৪৮৭ কোটি টাকার।

এদিকে ডিএসইতে লেনদেন হওয়া ৩৩৯টি কোম্পানির মধ্যে ১১২টি বা ৩৩ শতাংশ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম বেড়েছে। অন্যদিকে দাম কমেছে ১৮৩টি বা ৫৪ শতাংশ কোম্পানির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৪৪টি বা ১৩ শতাংশ কোম্পানির।

টাকার অঙ্কে ডিএসইতে সবচেয়ে বেশি লেনদেন হয়েছে স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যালসের শেয়ার। এদিন কোম্পানির ২৩ কোটি ৬৭ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। লেনদেনে দ্বিতীয়স্থানে থাকা ইউনাইটেড পাওয়ারের ১৯ কোটি ৫১ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। ১৪ কোটি ২৬ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেনের মাধ্যমে তৃতীয় স্থানে রয়েছে জেএমআই সিরিঞ্জ। লেনদেনে এরপর রয়েছে - ওয়াটা কেমিক্যাল, মেঘনা লাইফ ইন্স্যুরেন্স, আল-হাজ্ব টেক্সটাইল, ন্যাশনাল টি, রূপালী লাইফ ইন্স্যুরেন্স, অলিম্পিক ও ইফাদ অটোস। অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক সূচক সিএএসপিআই এদিন ২৭ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ১৬ হাজার ১৩২ পয়েন্টে। এদিন সিএসইতে হাত বদল হওয়া ২৫২টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে শেয়ার দর বেড়েছে ৯৪টির, কমেছে ১২০টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৩৮টির দর। সিএসইতে মোট ১৫ কোটি ৪৪ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে।

নির্বাচিত সংবাদ