২১ মার্চ ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

মিউচুয়াল ফান্ডে বিনিয়োগে সঞ্চিতি সংরক্ষণে ছাড়

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ মেয়াদী ও বে-মেয়াদী মিউচুয়াল ফান্ডে বিনিয়োগজনিত ক্ষতির বিপরীতে সঞ্চিতি সংরক্ষণের ক্ষেত্রে মার্চেন্ট ব্যাংকগুলোকে ছাড় দিয়েছে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ এ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। সম্প্রতি বিএসইসির চেয়ারম্যান ড. এম খায়রুল হোসেন স্বাক্ষরিত এ-সংক্রান্ত একটি নির্দেশনা জারি করা হয়েছে। ফলে এখন থেকে মিউচুয়াল ফান্ডে বিনিয়োগের ক্ষেত্রে উদ্ভূত ক্ষতির বিপরীতে সঞ্চিতি সংরক্ষণে ব্যাংক, আর্থিক প্রতিষ্ঠান ও মিউচুয়াল ফান্ডের মতো একই ছাড় পাবে মার্চেন্ট ব্যাংকগুলো।

বিএসইসির জারি করা নির্দেশনায় বলা হয়েছে, কোন মেয়াদী মিউচুয়াল ফান্ডের গড় ক্রয়মূল্য যদি ফান্ডটির ফেয়ার ভ্যালুর সমান কিংবা কম হয় অথবা বিদ্যমান বাজারমূল্যে নিট এ্যাসেট ভ্যালুর (এনএভি) ৮৫ শতাংশ কিংবা তার কম হয়, তবে সেক্ষেত্রে মার্চেন্ট ব্যাংককে কোন সঞ্চিতি সংরক্ষণ করতে হবে না।

অন্যদিকে মেয়াদী মিউচুয়াল ফান্ডের গড় ক্রয়মূল্য যদি ফান্ডটির ফেয়ার ভ্যালুর বেশি হয় অথবা বিদ্যমান বাজারমূল্যে নির্ণীত এনএভির ৮৫ শতাংশের বেশি হয়, তবে মার্চেন্ট ব্যাংককে অবশ্যই সঞ্চিতি সংরক্ষণ করতে হবে। এক্ষেত্রে যখন ফান্ডের ফেয়ার ভ্যালু বিদ্যমান বাজারমূল্যে এনএভির ৮৫ শতাংশ বা তার বেশি হবে, তখন গড় ক্রয়মূল্য থেকে ফেয়ার ভ্যালু বাদ দিয়ে যা থাকবে, সেটি সঞ্চিতি হিসেবে সংরক্ষণ করতে হবে। আর যখন ফান্ডের ফেয়ার ভ্যালু বিদ্যমান বাজারমূল্যে এনএভির ৮৫ শতাংশের কম হবে, তখন গড় ক্রয়মূল্য থেকে বাজারমূল্যে এনএভির ৮৫ শতাংশ বাদ দিয়ে যা থাকবে, সেটি সঞ্চিতি হিসেবে সংরক্ষণ করতে হবে।

মিউচুয়াল ফান্ডের যৌক্তিক মূল্য হিসাব করার ক্ষেত্রে মার্চেন্ট ব্যাংকারকে বাংলাদেশ এ্যাকাউন্টিং স্ট্যান্ডার্ড (বিএএস), বাংলাদেশ ফিন্যান্সিয়াল রিপোর্টিং স্ট্যান্ডার্ডের (বিএফআরএস) পাশাপাশি সিকিউরিটিজ ও এক্সচেঞ্জ কমিশন (মিউচুয়াল ফান্ড) বিধিমালা ২০০১ অনুসরণ করতে হবে। বে-মেয়াদী মিউচুয়াল ফান্ডের ক্ষেত্রে যখন গড় ক্রয়মূল্য ফান্ডটির সর্বশেষ পুনঃক্রয়মূল্যের কিংবা সমর্পণ মূল্যের তুলনায় কম বা সমান হবে, তখন মার্চেন্ট ব্যাংককে কোন ধরনের সঞ্চিতি সংরক্ষণ করতে হবে না।

অন্যদিকে যখন কোন বে-মেয়াদী মিউচুয়াল ফান্ড ইউনিটের গড় ক্রয়মূল্য ফান্ডটির সর্বশেষ পুনঃক্রয়মূল্য কিংবা সমর্পণ মূল্যের তুলনায় বেশি হবে, তখন মার্চেন্ট ব্যাংককে সঞ্চিতি সংরক্ষণ করতে হবে। এক্ষেত্রে গড় ক্রয়মূল্য থেকে সর্বশেষ সমর্পণ মূল্য (বিদ্যমান বাজারমূল্যে এনএভি থেকে সর্বোচ্চ ৫ শতাংশ কম) বাদ দিয়ে যা থাকবে, সেটি সঞ্চিতি হিসেবে সংরক্ষণ করতে হবে।

মার্চেন্ট ব্যাংকারকে সিকিউরিটিজ ও এক্সচেঞ্জ কমিশন (মিউচুয়াল ফান্ড) বিধিমালা ২০০১-এর ৬০ ও ৬১ বিধির নিয়মানুসারে সর্বশেষ বাজারমূল্যে এনএভি বিবেচনা করতে হবে বলে নির্দেশনায় উল্লেখ করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, এর আগে বিএসইসির ৬৬৬তম কমিশন সভা শেষে জানানো হয় মিউচুয়াল ফান্ডে বিনিয়োগের ক্ষেত্রে মূল্যহ্রাসজনিত ক্ষতির বিপরীতে সঞ্চিতি সংরক্ষণ-সংক্রান্ত যে সুবিধা আর্থিক প্রতিষ্ঠান ও মিউচুয়াল ফান্ডগুলো পেয়ে থাকে, মার্চেন্ট ব্যাংকগুলোও এখন থেকে সে সুবিধা পাবে।