১৩ ডিসেম্বর ২০১৮

সেমিফাইনালে শ্রীলঙ্কার কাছে হেরে বিদায় বাংলাদেশের

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ এসিসি ইমার্জিং টিমস এশিয়া কাপ থেকে বিদায় নিয়েছে বাংলাদেশ অনুর্ধ-২৩ ক্রিকেট দল। টুর্নামেন্টের সেমিফাইনালে শ্রীলঙ্কা অনুর্ধ-২৩ দলের কাছে ৪ উইকেটে হেরে বাদ পড়েছে বাংলাদেশ।

শ্রীলঙ্কার কলম্বোর প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ম্যাচটিতে টস হেরে আগে ব্যাট করে ২৩৭ রান করতে পারে বাংলাদেশ। ৪৯.১ ওভারেই অলআউট হয়ে যায়। ওপেনার মিজানুর রহমানের ৭২, ইয়াসির আলীর ৬৬ রানে এই রান করা যায়। বাকিদের ব্যর্থতায় বড় স্কোর গড়তে পারেনি বাংলাদেশ। পেসার চামিকা করুনারত্নের (৪/৩১) বোলিং দাপটের সামনেই কাত হয় বাংলাদেশ। নাজমুল হোসেন শান্ত, নুরুল হাসান সোহান, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত, আফিফ হোসেন ধ্রুবদের মতো ব্যাটসম্যানরা নিজেদের মেলে ধরতে পারেননি। জবাব দিতে নেমে ৬ উইকেট হারিয়ে ৪৮.৩ ওভারে ২৪১ রান করে জিতে ফাইনালে খেলা নিশ্চিত করে লঙ্কানরা। মিডলঅর্ডার ব্যাটসম্যান কামিন্দু মেন্ডিসের অপরাজিত ৯১ রানে হারে বাংলাদেশ। শরিফুল ইসলাম ২ উইকেট নেন।

এসিসি ইমার্জিং টিমস এশিয়া কাপ খেলতে গিয়ে পাকিস্তানপর্ব রবিবারই শেষ করেছে বাংলাদেশ অনুর্ধ-২৩ দল। এবার পুরো টুর্নামেন্টই শেষ হয়ে গেল বাংলাদেশের। পাকিস্তানের করাচীতে টুর্নামেন্টের গ্রুপপর্বের খেলাগুলো খেলেছে বাংলাদেশ দল। সেমিফাইনাল খেলেছে কলম্বোতে। স্বাগতিক দলের বিপক্ষেই। তাতে হার হয়। বাদও হয় বাংলাদেশ।

টুর্নামেন্টে এবার দুই গ্রুপে চার দল করে আট দল খেলেছে। খেলা হয়েছে শ্রীলঙ্কার কলম্বো ও পাকিস্তানের করাচীতে। ‘এ’ গ্রুপের খেলা হয়েছে কলম্বোতে। ‘বি’ গ্রুপের খেলা হয়েছে করাচীতে। ‘এ’ গ্রুপে ভারত, শ্রীলঙ্কা, আফগানিস্তান ও ওমান খেলে। ‘বি’ গ্রুপে বাংলাদেশ, পাকিস্তান, সংযুক্ত আরব আমিরাত ও হংকং খেলে। দুই গ্রুপের মধ্যে ‘এ’ গ্রুপ থেকে ভারত ও শ্রীলঙ্কা এবং ‘বি’ গ্রুপ থেকে পাকিস্তান ও বাংলাদেশ সেমিফাইনালে ওঠে। দুই গ্রুপের সেরা চার দল হয় এই চার দল। ৬ পয়েন্ট নিয়ে ‘এ’ গ্রুপের অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন হয়ে সেমিফাইনালে খেলা নিশ্চিত করে ভারত। হিসেব অনুযায়ী ‘এ’ গ্রুপের চ্যাম্পিয়ন দলের সঙ্গে ‘বি’ গ্রুপের রানার্সআপ দলের খেলা হওয়ার কথা। কিন্তু এবার দেখা গেছে, ‘এ’ গ্রুপের রানার্সআপ (শ্রীলঙ্কা) ও ‘বি’ গ্রুপের রানার্সআপ (বাংলাদেশ) দলের মধ্যেই সেমিফাইনাল খেলা হয়েছে।

বাংলাদেশ গ্রুপপর্ব থেকেই টালমাটাল অবস্থায় ছিল। দুই ম্যাচ জিতে সেমিফাইনাল খেলা নিশ্চিত করেছে। তবে প্রথম ম্যাচেই হতাশ করেছে বাংলাদেশ। সংযুক্ত আরব আমিরাতের সঙ্গে ৯৭ রানের বড় ব্যবধানে হেরেছে। সেমিফাইনালে খেলাই অনিশ্চিত হয়ে পড়েছিল। দ্বিতীয় ম্যাচে হংকংকে ২৮ রানে হারানোর পর শেষ ম্যাচে পাকিস্তানকে ৮৪ রানে হারিয়ে সেমিফাইনালে খেলার যোগ্যতা অর্জন করে বাংলাদেশ। তাও সংযুক্ত আরব আমিরাত ও হংকংয়ের মধ্যকার ম্যাচটি বৃষ্টির জন্য না হওয়াতে ১ পয়েন্ট করে ভাগাভাগি হয়েছে। তাতেই সেমিফাইনালে খেলার সুযোগ ধরা দেয় বাংলাদেশের। কিন্তু ১৫ ডিসেম্বর ফাইনালে খেলার টিকেট পেল না বাংলাদেশ। পাকিস্তানকে ৭ উইকেটে হারিয়ে ফাইনালে খেলবে ভারত। ভারতের সঙ্গে শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচে লড়াই করবে শ্রীলঙ্কা। বাংলাদেশকে হারিয়ে সেই সুযোগ শ্রীলঙ্কা করে নিয়েছে। বাংলাদেশের বিদায় ঘণ্টা বেজে গেছে।

স্কোর ॥ বাংলাদেশ অনুর্ধ-২৩ দল ইনিংস ॥ ২৩৭/১০; ৪৯.১ ওভার (মিজানুর ৭২, ইয়াসির ৬৬, মোসাদ্দেক ৩৯, আফিফ ১৪; করুনারতেœ ৪/৩১)।

শ্রীলঙ্কা অনুর্ধ-২৩ দল ইনিংস ॥ ২৪১/৬; ৪৮.২ ওভার (মেন্ডিস ৯১*, ভিরাকড্ডি ৪৭, জয়সুরিয়া ৩৯, গুনারতেœ ২৪; শরিফুল ২/৫০)।

ফল ॥ বাংলাদেশ অনুর্ধ-২৩ দল ৪ উইকেটে পরাজিত।