১৫ ডিসেম্বর ২০১৮

বাংলাদেশে অনন্য সেবায় ডিজিটাল এ্যাপ ভাড়াটিয়া ডটকম

সিদ্ধেশ্বরীর অন্তরা ফ্ল্যাট মালিক সমবায় সমিতির সভাপতি আনোয়ার হোসেন। ৩টি ভবনে ১৭৭টি ফ্ল্যাটের হিসাব নিকাশ এবং রক্ষণাবেক্ষণ করতে গলদঘর্ম অবস্থা। কোন ফ্ল্যাটের সার্ভিস চার্জ সংগ্রহ হলো বা বকেয়াগুলো আদায়ে দরজায় কড়া নাড়া, বাড়ির কোন কিছু নষ্ট হলে মেরামত করা, গার্ড এবং অনন্যা কর্মীদের বেতন হিসেবে রাখা- সবমিলে দায়িত্ব যেন বোঝা হয়ে উঠছিল। কিন্তু মহাযন্ত্রণার সমাধান এখন হাতের মুঠোয়। কৃতিত্ব একটি এ্যাপের।

ফ্ল্যাট মালিক বা বাড়িওয়ালাদের জন্য মুনীর মাহমুদ ডেভেলপ করেছেন ‘ভাড়াটিয়া’ নামের দুর্দান্ত এক এ্যাপ। প্রতিমাসে এপার্টমেন্টের আয় ব্যয়ের হিসাব এবং বাড়িওয়ালাদের প্রতিমাসের বাড়িভাড়া ও আনুষঙ্গিক বিলের হিসাব প্রস্তুত করতে তৈরি হয়েছে ভাড়াটিয়া এ্যাপ। ফ্ল্যাটের মাসিক ভাড়া, কার পার্কিং চার্জ এবং সার্ভিস চার্জ এই এ্যাপটিতে ইনপুট করলে মোবাইলে এসএমএস এর মাধ্যমে সেটা চলে যায় ভাড়াটিয়ার ফোনে। এছাড়াও ভাড়াটিয়া চাইলে সেখান থেকে তার বিলটি প্রিন্ট করেও নিতে পারেন। ভাড়া প্রদানের পর আবার আরেকটি এসএমএস পাঠিয়ে নিশ্চিত করা হয় ভাড়াটিয়াকে। নিরাপত্তার কথা বিবেচনা করে এখানে ভাড়াটিয়ার সব তথ্য এবং জাতীয় পরিচয়পত্র সংরক্ষণেরও ব্যবস্থা আছে।

মাস শেষে কনভেন্স বিল, স্টাফদের বেতন, বোনাস, রক্ষণাবেক্ষণ খরচ হিসাব করে এ্যাপটি স্বয়ংক্রিয়ভাবেই লাভ কিংবা ক্ষতির জানান দেয়। এ্যাকাউন্টিং বিষয়ে জানাশোনা না থাকলেও চিন্তার কারণ নেই কারণ ব্যালেন্স সিট এই এ্যাপটিই তৈরি করে দিচ্ছে। বাড়ির রক্ষণাবেক্ষণের জন্য সচরাচর যাদের দরকার (যেমন : ইকেলট্রিশিয়ান, প্লামবার) তাদের বিস্তারিতও সংরক্ষিত থাকে এখানে। সবমিলে বাড়ির ম্যানেজারে পরিণত হচ্ছে এই এ্যাপটি।

অন্তরা ফ্ল্যাট মালিক সমবায় সমিতির সভাপতি আনোয়ার হোসেনকে আগে সবসময় ৬টি খাতা নিয়ে ছুটতে হতো। আর সভাকক্ষে জমেছিল পুরনো খাতার স্তূপ। সবকিছু চলে এসেছে এখন হাতের মুঠোয়। উত্তরার আমেনা বেগমও জানালেন ৩০টি দোকানের হিসাব নিকাশ রাখতে খুব সমস্যা হতো তার আর ভুলও হতো। অনেক সময় নষ্ট হতো। কিন্তু বিশাল এক ঝামেলা থেকে মুক্তি দিয়েছে এই এ্যাপটি।

নির্মাতা মুনীর মাহমুদের গল্পটা বেশ অনুপ্রেরণাদায়ক। ৩৮ বছর বয়সে একটি মাল্টিন্যাশনাল কোম্পানির আইটি বিভাগ থেকে স্বেচ্ছায় অবসরে গিয়ে দাঁড় করেছেন নিজের প্লাটফর্ম। প্রতিটি পদক্ষেপে বাঁধা বিপত্তি পেরিয়ে ভাড়াটিয়াকে নিয়ে এসেছেন অনন্য উচ্চতায়। বর্তমানে তার একমাত্র ধ্যান জ্ঞান এই ভাড়াটিয়া। ‘ব্যবহারকারীদের সন্তুষ্টিই আমাদের এগিয়ে যেতে অনুপ্রেরণা দেয়’ জানালেন মুনীর মাহমুদ। তিনি ছাড়াও এ্যাপটি আরও উন্নত করে তুলতে কাজ করছেন তৌফিক এলাহী এবং জিম মন্ডল। খুব তাড়াতাড়িই সরাসরি বাড়ি খোঁজার কাজও করা যাবে এই এ্যাপ দিয়ে। নতুন ফিচার যুক্ত করার পাশাপাশি নির্মাতারা পৃষ্ঠপোষকতা পাবার ব্যাপারে আশাবাদী।

প্রযুক্তির ছোঁয়া পড়েছে সব ক্ষেত্রেই। বাড়ির রক্ষণাবেক্ষণ কেনই বাদ থাকবে তাহলে www.varatiyaa.com এ পাওয়া যাচ্ছে ‘ভাড়াটিয়া’র এই অসাধারণ সার্ভিসটি।