২১ মার্চ ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচনে ঐক্যফ্রন্টই সরকার গঠন করবে : আ.স.ম রব

৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচনে ঐক্যফ্রন্টই  সরকার গঠন করবে  :  আ.স.ম রব

নিজস্ব সংবাদদাতা, টঙ্গী ॥ ঐক্যফ্রন্টের অন্যতম শীর্ষ নেতা আ স ম আব্দুর রব নির্বাচনী জনসভায় বলেছেন, আগামী ৩০ ডিসেম্বর ধানের শীষের পক্ষে বাংলাদেশে ভোট বিপ্লব ঘটবে। ওই দিনের ভোটে ঐক্যফ্রন্টই সরকার গঠন করবে। ধানের শীষ শুধু বিএনপির নয়, ১৬ কোটি মানুষের মার্কা হচ্ছে ধানের শীষ। ধানের শীষের বিজয় মানে দুঃশাসন ও স্বৈরশাসনের বিরুদ্ধে গণতন্ত্রের বিজয়।

এবারের ভোটের লড়াই ৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধের মতো গণতন্ত্র মুক্তির লড়াই। এ লড়াইয়ে আমাদের সবাইকে জিততে সকাল থেকে রাত পর্যন্ত ভোট কেন্দ্র পাহাড়ায় থাকতে হবে। তিনি শনিবার বিকেলে গাজীপুর-২ আসনের ঐক্যফ্রন্ট মনোনীত বিএনপির প্রার্থী আলহাজ¦ সালাহ্ উদ্দিন সরকারের নির্বাচনী জনসভায় এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, ঐক্যফ্রন্ট ও বিএনপি নেতাকর্মীদেরকে সারাদেশে আগামী ৩০তারিখ বিকেলে ভোট গ্রহণ ও গণনা শেষ করে ফলাফল হাতে নিয়ে কেন্দ্র ত্যাগ করতে হবে। এবারের ভোটের লড়াই গণতন্ত্র মুক্তির লড়াই। এই লড়াইয়ে আমাদেরকে জিততে হবে।

গাজীপুর-২ আসনে সালাহ্ উদ্দিন সরকারকে নির্বাচিত করে জনগণের সরকার গঠনে সহায়তা করতে হবে। তিনি প্রশাসনকে উদ্দেশ্য করে বলেন, আপনারা নির্বাচন কমিশনের মতো হুকুমের গোলাম হবেন না। নির্যাতিত-নিপীড়িত মানুষের পাশে দাড়ান। এ জন্য আপনাদের চাকুরী চলে গেলেও জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠিত হলে আপনাদের চাকুরী আবারো ফিরে পাবেন। বর্তমান সরকারের হুকুমে যদি পুলিশ বাহিনী এদেশের মা-বোনের উপর হামলা করে, নিরীহ মানুষকে হয়রানি করে, আপনাদেরকে শান্তি মিশনে আর ডাকবে না। সুতরাং আপনারা জনগণের পক্ষে কাজ করুন।

গাজীপুর মহানগর বিএনপির সভাপতি সাবেক সংসদ সদস্য আলহাজ¦ হাসান উদ্দিন সরকারের সভাপতিত্বে জনসভায় অন্যান্যের মধ্যে আরো বক্তব্য রাখেন, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান, ঐক্যফ্রন্টের অন্যতম শীর্ষ নেতা মাহমুদুর রহমান মান্না, গণস্বাস্থ্য ট্রস্ট্রের চেয়ারম্যান ডা: জাফরুল্লা চৌধুরী, বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান সেলিনা রহমান, ডা: জাহিদ, সোহরাব উদ্দিন, মাহবুবুল আলম শুক্কুর, সরাফত হোসেন, আরিফ হোসেন হাওলাদার প্রমুখ নেতৃবৃন্দ।

উল্লেখ করা যেতে পারে, জনসভাটি ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক সংলগ্ন সফিউদ্দিন সরকার স্কুল মাঠে অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু স্থানীয় প্রশাসনের বাধার কারণে সেখানে অনুষ্ঠিত হতে পারেনি। পরে তা গাজীপুর-২ আসনের বিএনপির প্রার্থী সালাহ্ উদ্দিন সরকারের দত্তপাড়ার বাসভবনের উন্মুক্ত মাঠে অনুষ্ঠিত হয়। সভায় আ স ম আব্দুর রব আরো বলেন, সরকারের ছুটির ঘন্টা বেজে উঠেছে। পালিয়ে গিয়েও সরকার নিজেদের রক্ষা করতে পারবে না। আল্লাহর গজব নাজিল হবে তাদের ওপর। তিনি বলেন, যে বাহিনীর লোকেরা শেখ মুজিবকে গ্রেফতার করে পাকিস্তানের জেলে পাঠিয়েছিল সেই বাহিনীর লোকদের হাতে শেখ হাসিনা নৌকা তুলে দিয়েছে। এর পরিণাম শেখ হাসিনাকে ভোগ করতেই হবে। শ্রমিকদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, ঐক্যফ্রন্ট নির্বাচিত হলে শ্রমিকদের বেতন বৃদ্ধি করা হবে।

তিনি আরো বলেন, গরু কোরবানী দেয়ার পর কিছুক্ষণ লাফালাফি করে গরুর মৃত্যু হয়। সরকারের অবস্থা এখন কোরবানীর গরুর মতো হয়ে গেছে। সরকার সুযোগ খুজছে নির্বাচন থেকে পালিয়ে যাওয়ার। নির্বাচনের আগে বা পরে যখনই আপনারা পালিয়ে যেতে চান, চলে যান। আমরা আপনাদের উপর কোন অত্যাচার করবো না। আমরা কথা দিয়েছি জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট নির্বাচিত হলে যারা হেরে যাবে তাদেরকে নিয়ে আমরা সরকার গঠন করবো। আমরা ইনশাল্লাহ জয় লাভ করবো। নির্বাচনী জনসভায় অন্যান্যের মধ্যে আরো বক্তব্য রাখেন, মাহমুদুর রহমান মান্না।

তিনি বলেন, আওয়ামীলীগের ১০বছরের অত্যাচার-নির্যাতনে আপনারা ঘরে থাকতে পারেননি। আর মাত্র ১৫দিন ঘরে না থেকে নির্বাচনে জয়লাভের জন্য জনগণের ঘরে ঘরে ধানের শীষের ভোট চেয়ে বাকি সময়টা কাটিয়ে দিন। দেখবেন পুলিশ আপনাদের ঘরে গিয়ে পাবে না। ৩০ তারিখ রাতেই আমাদের জয় সুনিশ্চিত হবে আর আপনারা ওই রাতেই ঘরে ফিরে আসবেন আগামী ৫বছরের জন্য।