২১ মার্চ ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

পার্থ টেস্টে ভারতকে লড়াইয়ে রাখলেন কোহলি

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ সফরের শুরু থেকে আলোচনায় বিরাট কোহলি। তার অপরাজিত ৬১ রানের দুর্দান্ত ইনিংসে ভর করেই ১-১এ শেষ টি২০ জিতে সিরিজ বাঁচিয়েছিল ভারত। এ্যাডিলেডে প্রথম টেস্টে মাত্র ৩ ও ৩৪ রান করে আউট হলেও বোলারদের নৈপুণ্যে নাটকীয় জয় পায় তার দল। এবার মোক্ষম সময়ে জ্বলে উঠেছেন টিম-ইন্ডিয়া ক্যাপ্টেন। পার্থে অস্ট্রেলিয়ার ৩২৬/১০Ñএর জবাবে ভারত যে লড়ইয়ে টিকে আছে সেটি কোহলি আর অজিঙ্কা রাহানের জন্য। দ্বিতীয়দিন শেষে ৩ উইকেট হারিয়ে সফরকারীদের সংগ্রহ ১৭২। পিছিয়ে ১৫৪ রানে। সুপার কোহলি ৮২ ও সহ-অধিনায়ক রাহানে ব্যক্তিগত ৫১ রান নিয়ে ক্রিজে আছেন। নিজেদের টেস্ট ইতিহাসে দ্বিতীয়বারের মতো চার পেসার তথা কোন স্পিনারকে ছাড়া মাঠে নেমে আলোচনায় ভারত। অন্যদিকে ঘুরে দাঁড়ানোর চ্যালেঞ্জ সামনে রেখে তিন পেসার ও এক স্পিনার নিয়ে খেলছে টিম পেইনের অস্ট্রেলিয়া।

৬ উইকেটে ২৭৭ রান নিয়ে শনিবার দ্বিতীয়দিনের খেলা শুরু করে অস্ট্রেলিয়া। প্রথম ঘণ্টায় স্বাগতিকরা আর কোন উইকেট হারায়নি। কিন্তু ৬৬ বলে ১৯ রান করে কামিন্স আউট হওয়ার পরই ভেঙ্গে পড়ে ইনিংস। অধিনায়ক পেইনের লড়াই শেষ হয় ৩৮ রানে। ১৬ রানের মধ্যে শেষ ৪ উইকেট হারায় অস্ট্রেলিয়া। ইশান্ত শর্মা নেন ৪ উইকেট। এর মধ্যে শেষ দুটি আবার টানা দুই বলে। অর্থাৎ দ্বিতীয় ইনিংসে হ্যাটট্রিকের সুযোগ ভারতীয় আগ্রাসী পেসারের সামনে। সবুজ উইকেটে ৩২৬ রানের পুঁজি কম নয় মোটেও। ভারতীয় ওপেনারদের শুরুতেই সেই উত্তাপের আঁচ বুলিয়ে দেন অস্ট্রেলিয়ার নতুন বলের দুই বোলার। মিচেল স্টার্কের দুর্দান্ত ইনসুইঙ্গারে বোল্ড মুরালি বিজয়। জশ হ্যাজলউডের ইয়র্কারের জবাব পাননি লোকেশ রাহুল। ভারতের রান তখন ২ উইকেটে ৮। কিন্তু চ্যালেঞ্জ নিতে দাঁড়িয়ে গেলেন কোহলি। এ লড়াইয়ে অধিনায়ক তার প্রথম সঙ্গী হিসেবে পেলেন আগের টেস্টের নায়ক চেতেশ্বর পুজারাকে। ইনিংসের দশম ওভারে হ্যাজলউডকে চার বলের মধ্যে তিনটি বাউন্ডারি মারেন তিনি। অস্ট্রেলিয়ানরা জবাব দেয় আরও আঁটসাট বোলিংয়ে। কিন্তু তাতে দিশেহারা না হয়ে কোহলি ও পুজারা পড়ে থেকেছেন উইকেটে। পরের টানা ২১ ওভার কোন বাউন্ডারি পায়নি ভারত। ৭৪ রানের এই জুটি ভেঙ্গেছে পুজারার বাজে শটে। স্টার্কের লেগস্টাম্পের বাইরের বলে থেমেছে পুজারার ১০৩ বলে ২৪ রানের লড়াই। পুজারা ফিরলেও ভারত ভড়কে যায়নি। রাহানে উইকেটে গিয়েই চালান পাল্টা আক্রমণ। কাটে চার, আপার কাটে ছক্কা, পুল-হুকে চার। তাতে ঝুঁকি কিছুটা ছিল, কিন্তু অস্ট্রেলিয়ান বোলারদের খানিকটা এলোমেলো করে চাপ ফিরিয়ে দেয়ার কাজটাও দারুণভাবে করেন সহ-অধিনায়ক।

কঠিন সময়টা পেরিয়ে ততক্ষণে কোহলিও পেয়ে গেছেন ছন্দ। টেকনিক ও টেম্পারামেন্ট মিলিয়ে ব্যাটসম্যানশিপের দারুণ উদাহরণ মেলে ধরে দু’জন সামাল দেন অস্ট্রেলিয়ান বোলারদের সব প্রচেষ্টা। অবিচ্ছিন্ন জুটিতে তোলেন ৯০। লিড পেতে পাড়ি দিতে হবে এখনও অনেকটা পথ। তবে সুপার কোহলি ও ক্ল্যাসিক্যাল রাহানে আছেন বলে আশা আছে সফরকারীদের।

স্কোর ॥ অস্ট্রেলিয়া প্রথম ইনিংস ॥ ৩২৬/১০ (১০৮.৩ ওভার; হ্যারিস ৭০, ফিঞ্চ ৫০, খাজা ৫, মার্শ ৪৫, হ্যান্ডসকম ৭, হেড ৫৮, পেইন ৩৮, কামিন্স ১৯, স্টার্ক ৬, লায়ন ৯*, হ্যাজজলউড ০; ইশান্ত ৪/৪১, বুমরাহ ২/৫৩, উমেশ ২/৭২, শামি ০/৮০, বিহারি ২/৫৩, বিজয় ০/১০)।

ভারত প্রথম ইনিংস ॥ ১৭২/৩ (৬৯ ওভার; রাহুল ২, বিজয় ০, পুজারা ২৪, কোহলি ৮২*, রাহানে ৫১*; স্টার্ক ২/৪২, হ্যাজলউড ১/৫০, কামিন্স ০/৪০, লেয়ন ০/৩৪)।

** দ্বিতীয়দিন শেষে