২১ মার্চ ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

শহীদ ১২ ভারতীয় সেনা পরিবারকে সম্মাননা দিল বাংলাদেশ

বাংলানিউজ ॥ একাত্তরের স্বাধীনতাযুদ্ধে ভারতীয় সশস্ত্র বাহিনীর শহীদ ১২ বীরসেনার পরিবারকে মুক্তিযুদ্ধ সম্মাননা দিয়েছে বাংলাদেশ সরকার। বাংলাদেশের ৪৮তম মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে রবিবার কলকাতায় ভারতীয় সেনাবাহিনীর পূর্বাঞ্চলীয় সদর দফতর ফোর্ট উইলিয়ামে এক অনুষ্ঠানে এ সম্মাননা দেয়া হয়। ১২ ভারতীয় সেনার পরিবারের সদস্যদের হাতে এই সম্মাননা তুলে দেন বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক। বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে সম্মাননা হিসেবে দেয়া হয় ক্রেস্ট, সনদপত্র, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বাণী এবং জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর লেখা দুটি বই (কারাগারের রোজনামচা ও অসমাপ্ত আত্মজীবনী)। সম্মাননা পেয়ে আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন শহীদ পরিবারের সদস্যরা। গত বছরের এপ্রিলে শেখ হাসিনার ভারত সফরেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির উপস্থিতিতে প্রথমবারের মতো সাতজন ভারতীয় সেনার পরিবারকে সম্মাননা দেয় বাংলাদেশ সরকার। দিল্লীতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাই সে সম্মাননা তুলে দেন। তারই ধারাবাহিকতা এই ১২ শহীদের পরিবারকে দেয়া হলো সম্মাননা। অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক বলেন, ১৬ ডিসেম্বর বাংলাদেশের মহান দিবস। বাঙালী জাতির জীবনে সবচেয়ে গৌরবোজ্জ্বল দিন। মহান মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে অর্জিত এই বিজয় দিবস জাতির শ্রেষ্ঠতম অর্জন। এই দিন আমাদের অপরিসীম আনন্দের দিন। আমাদের অজস্র ত্যাগের বিনিময়ে অর্জিত স্বাধীনতার স্বপ্ন পূরণের দিন। দিল্লীতে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার সৈয়দ মোয়াজ্জেম আলী বলেন, আজকের এই সম্মাননা অনুষ্ঠান, পৃথিবীর এক অনন্যতম ঘটনা। পৃথিবীর ইতিহাসে কোন জাতি বিদেশে গিয়ে তার দেশের আত্মাহুতির জন্য যারা প্রাণ দিয়েছেন তাদের সম্মান জানায়নি। এমনকি দ্বিতীয় মহাযুদ্ধেও তার কোন নজির নেই। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সেই প্রথম নজির স্থাপন করলেন। ১৯৭১ সালে যেসব ভারতীয় সেনা শহীদ হন, সেই বীরশহীদদের সম্মান জানিয়েছিলেন গত বছরের এপ্রিলে দিল্লী সফরে। এবার তিনি আসতে পারেননি, তার পক্ষ থেকে মন্ত্রীকে পাঠিয়েছেন ভারতীয় শহীদদের সম্মান জানানোর জন্য। এদিকে বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে মুক্তিযুদ্ধে শহীদ সদস্যদের সম্মাননা দেয়ায় অভিনন্দন জানিয়েছেন ভারতের সেনাবাহিনীর পূর্বাঞ্চলীয় কমান্ডের জিওসি-ইন-চীফ লেফটেন্যান্ট জেনারেল মনোজ মুকুন্দ নারাবনে। এর আগে সকালে ফোর্ট উইলিয়ামের স্মৃতিস্তম্ভে ফুলেল শ্রদ্ধা জানান বাংলাদেশ থেকে আগত মুক্তিযোদ্ধার এক প্রতিনিধিদল। ভারতের পক্ষে শহীদদের বেদিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান ভারতের তিন বাহিনীর (স্থল, নৌবাহিনী ও বিমানবাহিনী) পূর্বাঞ্চলীয় কমান্ডের প্রধানরা।