১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বিএনপির ইশতেহার ঘোষণা কাল

বিএনপির ইশতেহার ঘোষণা কাল

অনলাইন রিপোর্টার ॥ দলীয় প্রধান খালেদা জিয়ার ‘ভিশন ২০৩০’-এর আলোকে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ইশতেহার তৈরি করেছে বিএনপি। ‘এগিয়ে যাব একসাথে, ভোট দেবো ধানের শীষে’- স্লোগানকে সামনে রেখে নির্বাচন উপলক্ষে দলটির ইশতেহার তৈরি করা হয়েছে। জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের ইশতেহারের প্রতিশ্রুতির সঙ্গে বিএনপির ইশতেহারে অনেক বিষয়েই মিল থাকবে বলেও জানা গেছে।

আগামীকাল মঙ্গলবার (১৮ ডিসেম্বর) সকাল ১১টায় রাজধানীর গুলশানের হোটেল লেকশোরে বিএনপির ইশতেহার ঘোষণা করা হবে। দলটির চেয়ারপারসনের প্রেস উইং সদস্য শায়রুল কবীর খান বাংলা ট্রিবিউনকে এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

বিএনপির নেতারা বলছেন, খালেদা জিয়ার ঘোষিত ‘ভিশন ২০৩০’ শিরোনামে যে খসড়া পরিকল্পনার সারসংক্ষেপ তুলে ধরা হয়েছিল, সেটির অবলম্বনে বিএনপির নির্বাচনি ইশতেহার তৈরি করা হয়েছে। এবারের ইশতেহারে তরুণ প্রজন্মের ভোটার টানতে তাদের বিভিন্ন চাহিদাকে গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। বিশেষ করে তরুণদের সাম্প্রতিককালের দাবি কোটা সংস্কার করা, ভ্যাটমুক্ত শিক্ষা ও নিরাপদ সড়ক আন্দোলনের বিষয় প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে। এছাড়া বেকারদের জন্য বেকার ভাতা, প্রতিহিংসামূলক রাজনীতির অবসানসহ বিভিন্ন বিষয় থাকবে বিএনপির ইশতেহারে।

প্রসঙ্গত, ২০১৬ সালের ১৯ মার্চ বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া ‘ভিশন ২০৩০’ ঘোষণা করেন। এদিকে বিএনপির ইশতেহারের সঙ্গে যুক্ত দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘আমাদের ইশতেহার চূড়ান্ত করা হয়েছে। আগামীকাল ঘোষণা করা হবে। ইশতেহারে তরুণ প্রজন্মসহ সব শ্রেণি-পেশার মানুষের মানুষের জন্য বিএনপির কী করবে, সেই বিষয়ে উল্লেখ থাকবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার ঘোষিত ‘‘ভিশন ২০৩০’’ তো অবশ্যই প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে ইশতেহারে।’

দলটির নেতারা বলছেন, বিএনপির ইশতেহারে পুলিশকে অতিরিক্ত কাজের জন্য ওভারটাইম ভাতা, কৃষি জমি রক্ষায় বহুতল আবাসন গড়া, নতুন উদ্যোক্তাদের জন্য Start-up fund তৈরি করা হবে। সেখান থেকে নতুন উদ্যোক্তাদের জন্য পরামর্শ এবং স্বল্প সুদে ঋণের ব্যবস্থা করা হবে। এর বাইরে প্রশাসনিক স্বচ্ছতা-জবাবদিহি নিশ্চিতে ‘ন্যায়পাল’ নিয়োগ করার প্রতিশ্রুতি থাকবে ইশতেহারে। এছাড়া তরুণ ভোটারদের আকৃষ্ট করতে শিক্ষায় কোনও ভ্যাট না রাখার ঘোষণাও থাকতে পারে।

জানা গেছে, বিএনপির নির্বাচনি ইশতেহার সেলে দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, অধ্যাপক মাহবুবউল্লাহ, জ্যেষ্ঠ সাংবাদিক মাহফুজ উল্লাহসহ আরও অনেকে আছেন।

ইশতেহারের বিষয়ে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী বলেন, ‘শিক্ষা, স্বাস্থ্য, স্বাধীন বিচার বিভাগ, প্রশাসন সবকিছুকে মাথায় রেখে ইশতেহার তৈরি করা হয়েছে, যা কাল প্রকাশ করা হবে।’

এদিকে বিএনপির ইশতেহারের সঙ্গে যুক্ত এক নেতা জানান, ইশতেহারে বর্তমান সরকারের আমলে নেওয়া উন্নয়ন প্রকল্পগুলো বন্ধ না করার অঙ্গীকার করা হবে। তবে প্রকল্পে কোনও দুর্নীতি হয়ে থাকলে তদন্তসাপেক্ষে এর বিচার করারও প্রতিশ্রুতি দেওয়া হবে।

বিএনপি ক্ষমতায় গেলে নিরপেক্ষ নির্বাচন অনুষ্ঠানে স্থায়ী নির্বাচনি ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠা করতে নির্বাচনকালীন সরকারের একটি বিধান তৈরি করার প্রতিশ্রুতিও থাকতে পারে ইশতেহারে।

উল্লেখ্য, জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট আজ (১৭ ডিসেম্বর) নির্বাচনি ইশতেহার ঘোষণা করেছে। ‘প্রজাতন্ত্রের সব ক্ষমতার মালিক জনগণ’-স্লোগানে ঐক্যফ্রন্টের ইশতেহারে প্রধানমন্ত্রী ও রাষ্ট্রপতির মধ্যে ক্ষমতার ভারসাম্য আনাসহ অনেক প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নের অঙ্গীকার করা হয়। সব ধরনের প্রতিশ্রুতি সরকারের ৫ বছরের মেয়াদের মধ্যে পূরণের আশ্বাসও দিয়েছে ঐক্যফ্রন্ট।