২১ মার্চ ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

টম লাথামের বিশ্ব রেকর্ড

  • মোঃ রাশেদুল হক

প্রায় দেড় শ’ বছরের বছরের পুরনো টেস্ট ইতিহাসে ‘ক্যারিং দ্য ব্যাট থ্রু দ্য ইনিংস’-এর ঘটনা খুব বেশি নয়। এ পর্যন্ত ২ হাজার ৩শ’ ৩৫টি টেস্টে মাত্র ৫৬ বার এমন ঘটনা ঘটেছে, যেখানে একজন ওপেনার ইনিংসের শেষ পর্যন্ত অপরাজিত থেকে গেছেন। টেস্টে শুরুর দিনগুলোয় এমন ঘটনা ছিল একেবারেই বিরল। তবে গত কয়েক বছর ধরে এমনটা মাঝেমধ্যেই দেখা গেছে। যেখানে শেষ নাম টম লাথাম। পাঁচ বছরের টেস্ট ক্যারিয়ারে ৬ সেঞ্চুরির মাত্র একটিকেই দেড়শ’ তে রূপ দিতে পেরেছিলেন। নিউজিল্যান্ড ওপেনার তার সপ্তম সেঞ্চুরিটিকে কেবল ডাবল সেঞ্চুরিতেই পরিণত করেননি, গড়েছেন নতুন ইতিহাস। ক্যারিং থ্রু দ্য ইনিংস, অর্থাৎ আদ্যন্ত ব্যাটিংয়ে (ওপেনিংয়ে নেমে শেষ পর্যন্ত অপরাজিত) টেস্ট ক্রিকেটের ১৪১ বছরের সব রেকর্ড ভেঙে দিয়েছেন কিউই উইলোবাজ। ওয়েলিংটন টেস্টের প্রথম ইনিংসে তার দল নিউজিল্যান্ড যখন ৫৭৮ রানের পাহাড় গড়ে অলআউট লথাম তখনও অপরাজিত ২৬৪ রানে! ২৪৪*Ñ এ্যালিস্টার কুককে ছাড়িয়ে গড়েন নয়া নজির।

কুক-লাথামের মাঝে গত এক বছরে আরও তিনবার এমন আদন্ত্য ব্যাটিংয়ের ঘটনা ঘটে (দক্ষিণ আফ্রিকার ডিন এলগার ৮৬*, ১৪৮* ও শ্রীলঙ্কার দিমুথ করুণারতেœ ১৫৮*) গত বছর ডিসেম্বরে (২০১৭) নিজের দীর্ঘ ক্যারিয়ারে প্রথমবার এমন কীর্তিটা অর্জন করেছিলেন তুখোড় কুক। সোমবার বেসিন রিজার্ভে ২ উইকেটে ৩১১ রান নিয়ে তৃতীয় দিন শুরু করা নিউজিল্যান্ড শুরুতেই হারায় রস টেইলরকে। শুরুর ধাক্কা সামাল দিয়ে হেনরি নিকোলসের সঙ্গে শতরানের জুটিতে দলকে এগিয়ে নেন লাথাম। এক প্রান্ত আগলে রেখে দলকে এগিয়ে নেওয়া লাথামের সঙ্গে ৭৩ রানের জুটি গড়েন কলিন ডি গ্র্যান্ডহোম। এই অলরাউন্ডার ৫৩ বলে তিনটি করে ছক্কা-চারে করেন ৪৯ রান। ৪৯৯ রানে ষষ্ঠ ব্যাটসম্যান হিসেবে ডি গ্র্যান্ডহোমের বিদায়ের পর প্রায় একার চেষ্টায় দলকে ৫৭৮ রান পর্যন্ত নিয়ে যান লাথাম। আগের সেরা ১৭৭ ছাড়িয়ে বাঁহাতি এই ওপেনার অপরাজিত থাকেন ২৬৪ রানে। তার ৪৮৯ বলের ম্যারাথন ইনিংসটি গড়া ২১ চার ও এক ছক্কায়।

১৯৬৯ সালে নিউজিল্যান্ডের প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে ‘ক্যারিং ব্যাট থ্রুু দ্য ইনিংস’ এর কীর্তি গড়েছিলেন কিংবদন্তি গ্লেন টার্নার। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে লর্ডস টেস্টে অপরাজিত ছিলেন ৪৩ রানে। তিন বছর পর ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে কিংস্টনে আবার গড়েন এই কীর্তি। সেবার তিনি অপরাজিত ছিলেন ২২৩ রানে। ৪৬ বছর পর পেলেন সঙ্গী, তার পাশে বসলেন লাথাম। টার্নারের দুটি কীর্তিই ছিল দেশের বাইরে। লাথাম নিউজিল্যান্ডের প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে করলেন দেশের মাটিতে। একটা জায়গায় সবার চেয়ে এগিয়ে বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান। গড়েছেন আদ্যন্ত ব্যাটিংয়ে সর্বোচ্চ রানের বিশ্ব রেকর্ড। ছাড়িয়ে গেছেন গত বছর মেলবোর্নে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে অপরাজিত ২৪৪ রান করা ইংল্যান্ডের এ্যালিস্টার কুককে। অলআউট হওয়া দলগুলোর মধ্যে সপ্তম ও নিউজিল্যান্ডের দ্বিতীয় ব্যাটসম্যান হিসেবে টেস্টে অজেয় ডাবল সেঞ্চুরি হাঁকালেন লাথাম। ক্যারিয়ারসেরা এই ইনিংসে কিউই ওপেনার ছাড়িয়ে গেছেন কিংবদন্তিতুল্য সাবেক ইংলিশ তারকা কুককে। ওয়েলিংটন টেস্টে ব্যক্তিগত অর্জনে এগিয়েছেন আরও দুই কিউই ব্যাটসম্যান। বর্তমান অধিনায়ক কেন উইলয়ামসন ও সাবেক অধিনায়ক রস টেইলর।

স্পিনার ধনাঞ্জয়া ডি সিলভার সাদামাটা বল সুইপ করতে গিয়ে ব্যাকওয়ার্ড শর্ট লেগে ধরা পড়ার আগে ৯৩ বলে ১০ চারে ৯১ রান করেন উইলিয়ামসন। মাত্র ৯ রানের জন্য ক্যারিয়ারের ২০তম সেঞ্চুরিটি মিস করেন নিউজিল্যান্ড ইতিহাসের সর্বোচ্চ ১৯ সেঞ্চুরির মালিক। তবে এই ইনিংস খেলার পথে নিউজিল্যান্ডের হয়ে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকদের তালিকায় দুই নম্বর স্থানে যাওয়ার দৌড়ে সাবেক তারকা ব্রেন্ডন ম্যাককুলামের সঙ্গে ব্যবধান আরও কমিয়ে আনেন তুখোড় এই টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান। এরপর তৃতীয় দিন শেষে অবিচ্ছিন্ন তৃতীয় উইকেটে ৯০ রানের জুটি গড়েন লাথাম- টেইলর। ৮৬ বলে ৫ চারে টেইলর অপরাজিত ছিলেন ঠিক ৫০ রান নিয়ে। পরদিন অবশ্য ওই রানেই সাজঘরে ফেরেন। তবে এই ফিফটি তুলে নেয়ার পথে নিউজিল্যান্ডের টেস্ট ইতিহাসে ব্রেন্ডন ম্যাককালামকে টপকে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকও হন টেলর (৬৪৫৬)। ৩৪ বছর বয়সী এই ব্যাটসম্যানের সামনে এখন শুধুই স্টিফেন ফ্লেমিং (৭,১৭২ রান)।

২০১৭Ñএর ২৯ ডিসেম্বর ইংল্যান্ডের সাবেক অধিনায়ক ২৪৪ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলে ভেঙেছিলেন ৪৫ বছরের পুরনো রেকর্ড! ‘ক্যারিং দ্য ব্যাট থ্রু দ্য ইনিংস’-এর ইতিহাসে এত রান করতে পারেননি আর কোন ব্যাটসম্যান। চতুর্থ দিনের প্রথম বলেই সঙ্গী জেমস এ্যান্ডারসন আউট না হলে রানটা আরও বাড়তে পারত। গত বছর ডিসেম্বরের একেবারে শেষ সপ্তাহে মেলবোর্নে সিরিজের চতুর্থ টেস্টের দ্বিতীয় ও তৃতীয় দিনে ব্যাট করে এই রেকর্ড গড়েছিলেন কুক। ম্যারাথন ওই ইনিংস খেলার পথে ৪০৯ বল খেলেছেন এই বাঁ হাতি, উইকেটে ছিলেন ৬৩৪ মিনিট। ‘ক্যারিং দ্য ব্যাট’-এর ইতিহাসে তার আগের সর্বোচ্চ ইনিংস ছিল নিউজিল্যান্ডের গ্লেন টার্নারের ২২৩। যেটি লেখায় আগেই উল্লেখ করা হয়েছে। এর মাঝেই এমসিজিতে কোন সফরকারী ব্যাটসম্যানের সর্বোচ্চ ইনিংসের রেকর্ডও গড়েছিলেন কুক। ছাড়িছিলেন ১৯৮৪ তে করা ভিভ রিচার্ডসের ২০৮ রান।

কোন ইংলিশ ব্যাটসম্যান সর্বশেষ অমন কীর্তি গড়েছিলেন ২০ বছর আগে। ১৯৯৭ সালে ক্রাইস্টচার্চে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ৯৪ রানে অপরাজিত ছিলেন আরেক সাবেক অধিনায়ক মাইক আথারটন। এ্যাশেজের ইতিহাসে তো এমন ঘটনা আরও আগের। ১৯৭৯ সালের পার্থ টেস্টে জিওফ্রে বয়কট এই রেকর্ড করেছিলেন। কিন্তু কুকের অতিমানবীয় ব্যাটিংয়ে এ সবই পেছনে পড়ে গিয়েছিল। এক বছরের ব্যবধানে অবশ্য সেটি লাথামের কাছে হাতছাড়া হয়ে গেল!