২১ জানুয়ারী ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

মেসি সেরা, রোনাল্ডো সুন্দর!

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ সময়ের দুই সেরা তারকা ক্রিস্টিয়ানো রোনাল্ডো ও লিওনেল মেসির উচ্ছ্বসিত প্রশংসা করেছেন আরেক তারকা নেইমার। পিএসজির ব্রাজিলিয়ান সুপারস্টার জানিয়েছেন, এ দু’জনই বর্তমান বিশ্বের সেরা ফুটবলার। নেইমার বলেছেন, দু’জনকেই তিনি পছন্দ এবং শ্রদ্ধা করেন। আর শিখছেন তাদের কাছ থেকে।

মেসি ও রোনাল্ডোর মধ্যে বছরের পর বছর ধরে ব্যক্তিগত শ্রেষ্ঠত্বের লড়াই চলছে। ২০০৮ সাল থেকে তারা ছাড়া আর কেউ বর্ষসেরা ফুটবলারের পুরস্কার ব্যালন ডি’অর জিততে পারেননি। দু’জনই জিতেছেন সমান পাঁচবার করে। ২০১৩ সালে বার্সিলোনায় যোগ দিয়ে সেখানে চার বছর কাটিয়ে ২০১৭ সালে রেকর্ড ট্রান্সফার ফিতে পিএসজিতে যোগ দেন নেইমার। অনেকরই ধারণা, মেসির ছায়া থেকে বের হতেই ফরাসী ক্লাবটিতে নাম লেখান ব্রাজিলকে অলিম্পিক সোনা জেতানো এই তারকা। এক সাক্ষাতকারে নেইমার বলেন, আমি মেসির সঙ্গে খেলেছি। আমার কাছে সে ইতিহাসের অন্যতম সেরা ফুটবলার। ফুটবলে সে আমার আদর্শ। মেসির কাছ থেকে আমি প্রতিদিন শিখতাম। অনুশীলনে, তার সঙ্গে খেলে কিংবা শুধু তার খেলা দেখেই আমি শিখতাম। তা আমাকে শক্তিশালী করেছে এবং মাঠে আমার সক্ষমতা বাড়িয়েছে, কারণ তার কাছ থেকে অনেক কিছু শেখাটা আমি চালিয়ে গেছি।

রোনাল্ডো প্রসঙ্গে নেইমার বলেন, আর রোনাল্ডো সে একটা দানব। তার মুখোমুখি হওয়াটা আনন্দের এবং সম্মানের। কিন্তু আমাদের আরও বেশি প্রস্তুত থাকতে হবে। সে ফুটবলে সেরাদের একজন। তার বিপক্ষে খেলে আপনি আরও কৌশলী হয়ে উঠবেন, সতর্ক হবেন। কিন্তু একই সঙ্গে অনেক কিছু শিখবেনও। আমি শিখতে চাই, আমি আরও চাই, আমি জিততে চাই, আমি অনেক ট্রফি জিততে চাই। অনেক গোল করতে চাই। তাই তাদের কাছ থেকে প্রতিদিন আমি শিখছি। এদিকে অন্যদের মতোই ক্যারিয়ারে অন্তত একবার হলেও ব্যালন ডি’অর জয়ের স্বপ্ন দেখেন এ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের ফরাসী তারকা এ্যান্টোনিও গ্রিজম্যান। ফ্রান্সের হয়ে বিশ্বকাপ ও এ্যাটলেটিকোর হয়ে ইউরোপা লীগের শিরোপা জয় করায় এ বছরের মর্যাদাকর এই পুরস্কারের জন্য অন্যতম দাবিদার হিসেবে ২৭ বছর বয়সী গ্রিজম্যানের নাম আরও একবার তালিকায় উঠে এসেছে। ২০১৬ সালে রোনাল্ডো ও মেসির পর তারকা এই ফরোয়ার্ড তৃতীয় স্থানে ছিলেন।

ক্যারিয়ারে এই পুরস্কারটি পাওয়ার আগ্রহের ব্যাপারে কোন ধরনের দ্বিধা না রেখে গ্রিজম্যান বলেন, আমি এটা বলতে মোটেই ভয় পাচ্ছি না। অবশ্যই চ্যাম্পিয়ন্স লীগ, বিশ্বকাপ শিরোপার পাশাপাশি ব্যালন ডি’অর জয়ের স্বপ্নও আমি দেখি। মূলত আমি অনেক কিছুরই স্বপ্ন দেখি। মনে মনে ভাবি আমার তিনটি বাচ্চা হবে। আসলে এসবই একজন মানুষকে সামনে এগিয়ে চলার পথে উদ্দীপনা যোগায়। সেই লক্ষ্য অর্জনে সে কাজ করে যায়। সেপ্টেম্বরে ফিফার বর্ষসেরা পুরুষ খেলোয়াড়ের পুরস্কার জেতার পর রিয়াল মাদ্রিদ ও ক্রোয়েশিয়ান মিডফিল্ডার লুকা মডরিচই ব্যালন ডি’অর জয়ের ক্ষেত্রে ফেবারিট হয়ে উঠেছেন। কিন্তু গ্রিজম্যানও অসাধারণ এক মৌসুম কাটিয়ে এই তালিকায় নিজের অবস্থান করেছেন।

২০১৭-১৮ মৌসুম তিনি এ্যাটলেটিকোর হয়ে ২৯ গোল করেছেন। ফ্রান্সের জার্সি গায়ে ৬৫টি আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলা এ তারকা বলেন, ব্যক্তিগতভাবে আমি এই পুরস্কারটাকে সবার থেকে এগিয়ে রাখব। এটা একটি ঐতিহাসিক পুরস্কার, অন্যতম মর্যাদাকর পুরস্কার।

নির্বাচিত সংবাদ