২১ মার্চ ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

গ্লিটার বোমা দিয়ে চোরদের জব্দ করলেন নাসার ইঞ্জিনিয়ার

গ্লিটার বোমা দিয়ে চোরদের জব্দ করলেন নাসার ইঞ্জিনিয়ার

অনলাইন ডেস্ক ॥ বাড়ির দরোজা থেকে নিয়মিত পার্সেল চুরি হতো। ব্যাপারটা এতই বিরক্তিকর হয়ে উঠেছিল যে মার্কিন মহাকাশ সংস্থা নাসার সাবেক ইঞ্জিনিয়ার মার্ক রোবার ঠিক করলেন, তিনি নিজেই এর একটা বিহিত করবেন।

যে চোর তার পার্সেল চুরি করছিল, তার ভিডিও সিসিটিভি ক্যামেরায় ধরা পড়েছিল। কিন্তু পুলিশকে জানিয়ে কোন লাভ হয়নি। পুলিশ সাফ জানিয়ে দিয়েছিল যে বিষয়টা নিয়ে তারা কোন তদন্ত করতে পারবে না।

তাই ছয়মাস ধরে পরীক্ষা-নিরীক্ষা চালিয়ে মি. রোবার তৈরি করলেন এক গ্লিটার বোমা। তারপর অ্যাপেলের এক হোমপড ডিভাইসের বাক্সে ঢুকিয়ে তিনি বসে রইলেন চোর ধরার জন্য।

এই গ্লিটার বোমাটি এমনভাবে তৈরি হয়েছিল যে চোর ঐ বাক্সটা খোলার সাথে সাথে এক পাউন্ড ওজনের গ্লিটার ছড়িয়ে পড়বে। আর সেই মুহূর্তের ভিডিও বাক্সে ভেতরে বসানো চারটি ফোনের ক্যামেরায় রেকর্ড হবে। বাক্সটা নড়াচড়া করা হলে ভেতরে অ্যাক্সেলেরোমিটারে তা ধরা পড়বে।

বাক্সটা দরোজার কাছ থেকে সরিয়ে নেয়া হলে ফোনগুলো জিপিএস সিগনালের মাধ্যমে জানিয়ে দেবে বাক্সের সর্বশেষ অবস্থান।

চোর বাক্সটা খোলার সাথে সাথে একটি কাপ সজোরে ঘুরতে থাকবে এবং এক পাউন্ড গ্লিটার চারপাশে ছড়িয়ে পড়বে। বাক্সটা যাতে কেউ লুকিয়ে রাখতে না চায় তার জন্য বাক্স থেকে উৎকট দুর্গন্ধযুক্ত গ্যাস বের হবে। এরপর মার্ক রোবার পার্সেলটি তার বাড়ির সদর দরোজায় রেখে দেন।

বাক্সের ওপর প্রেরকের ঠিকানায় যার নাম ছিল তিনি হলেন কেভিন ম্যাকালিস্টার। ১৯৯০-এ দশকের জনপ্রিয় হলিউড ছায়াছবি হোম এলোন-এর দুর্দান্ত কিশোরের নাম। ম্যাকুলে কালকিন এই ছবিতে প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন। দু'জন চোরকে এই কিশোর যেভাবে হেনস্তা করেছিল তাই ছিল এই ছবির মুল গল্প।

যাই হোক, মার্ক রোবার তার পরীক্ষা শুরু করার পর বাক্সটি বেশ কয়েকবার চুরি হয়। এবং প্রতিবারই চোরদের সব তৎপরতা ক্যামেরায় ধরা পড়ে। প্রতিবারই বিরক্ত আর হতাশ চোরেরা বাক্সটি ফেলে পালিয়ে যায়। পুরো ঘটনাটির ভিডিও মি. রোবার ইউটিউবে প্রকাশ করলে বিশ্বব্যাপী ৬০ লক্ষ লোক তা উপভোগ করেন।

গত সপ্তাহে অনলাইন শপিং কোম্পানি অ্যামাজন ঘোষণা করে যে পার্সেল চুরি মোকাবেলার লক্ষ্যে তারা যুক্তরাষ্ট্রের নিউজার্সির পুলিশ বিভাগের সাথে কাজ শুরু করেছে। অ্যামাজনের দেয়া তথ্য অনুযায়ী পুলিশ কর্মকর্তারা বিভিন্ন বাড়ির সামনে লুকানো ক্যামেরা এবং জিপিএস বসানো ভুয়া পার্সেল ফেলে রাখে। এসব প্যাকেজের মধ্যে একটি চুরি হয় রেখে যাওয়ার তিন মিনিটের মাথায়।

সূত্র : বিবিসি বাংলা