২২ মার্চ ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

জয়ের দেখা পেলো এমপি মাশরাফি

জয়ের দেখা পেলো এমপি মাশরাফি

অনলাইন রিপোর্টার ॥ বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) ছষ্ঠ আসরে জয়ের দেখা পেলো রংপুর রাইডার্স। এদিন টসে হেরে আগে ব্যাট করে খুলনাকে ১৭০ রানের বিশাল টার্গেট দেয় গত আসরের চ্যাম্পিয়নরা। কিন্তু বিশাল লক্ষ্য নিয়ে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ১৫৬ রান করে খুলনা। ফলে ৮ রানে জয় পায় মাশরাফির রংপুর।

দ্বিতীয় ম্যাচে এসে প্রথম জয়ের দেখা পেলো রংপুর। অন্যদিকে হার দিয়ে বিপিএল মিশন শুরু করল মাহমুদউল্লাহর খুলনা। শেষ ৬ বলে জয়ের জন্য খুলনার দরকার ছিল ২০ রান। ফরহাদ রেজার করা ওভারে ১১ রানের বেশি নিতে পারেনি খুলনার দুই ব্যাটসম্যান জহুরুল ইসলাম ও ব্রাথওয়েট। ১৬১/৫ রানে থামে খুলনার ইনিংস।

এর আগে ১৯তম ওভারে ওয়াইডের ‘হ্যাটট্রিক’ করেন শফিউল ইসলাম। তখন উইকেটে ছিলেন জহুরুল ইসলাম। এছাড়া একটি নিশ্চিত রান আউটও মিস করেছেন শফিউল!

১৬৯ রান তাড়া করতে খুলনাকে উড়ন্ত সূচনা এনে দেন দুই ওপেনার পল স্টারলিং ও জুনায়েদ সিদ্দিকী। উদ্ধোধনী জুটিতে তারা তোলেন ১১.১ ওভারে ৯০ রান। হওয়েলের বলে শফিউলের হাতে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফেরেন জুনায়েদে (৩৩)। এরপর দলের ছন্দপতন। দলীয় স্কোর কার্ডে ১৮ রান জমা হতেই নাজমুল হোসেন শান্ত (১) ও পল স্টারলিংকের উইকেট হারায় খুলনা। এ ম্যাচে দারুণ ব্যাটিং করেছেন স্টারলিংক। খুলনার ওপেনার ৪৬ বলে ৬১ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলেন। তার ইনিংসটি সাজানো ছিল আটটি চার ও একটি ছক্কায়। দলীয় ১১৮ রানে ৩ উইকেট হারায় খুলনা। দলকে জয়ের বন্দরে পৌঁছে দিতে পারেননি জহুরুল ও ব্রাথওয়েট।

টস হেরে ব্যাটিংয়ে নামা রংপুরের শুরুটা ভালো হয়নি। দলীয় ১৮ রানে ওপেনার মেহেদী মারুফের (৫) উইকেট হারায়। হেলস ও মোহাম্মদ মিঠুনও নামের প্রতি সুবিচার করতে পারেননি। হেলস ১৫ ও মিঠুন ১৯ রান করেন। ৬৫ রানে ৩ উইকেট হারায় রংপুর। তবে দলের রানের চাকা সচল রাখেন রাইলি রুশো ও রবি বোপারা। চতুর্থ উইকেটে এ জুটি ১০৪ রান তোলেন। আর তাতেই ৩ উইকেটে ১৬৯ রানের বড় স্কোর পায় মাশরাফির দল।

রাইলি রুশো মিরপুরে ছোট-খাট একটা ঝড়ই তুলেছিলেন। ৫২ বলে অপরাজিত ৭৬ রান করেন তিনি। রুশোর ইনিংসে ছিল আটটি চার ও দুইটি ছক্কা। তাকে যোগ্য সঙ্গ দেওয়া রবি বোপারা ২৯ বলে তিনটি চার ও একটি ছক্কার সাহায্যে ৪০ রানে অপরাজিত থেকে মাঠ ছাড়েন। খুলনার হয়ে আলি খান, জহির খান ও কার্লোস ব্র্যাথওয়েট একটি করে উইকেট পান।

১৭০ রান তাড়ায় জয়ের পথে থাকলেও জয় নিয়ে মাঠ ছাড়া হয়নি মাহমুদউল্লাহর দলের। জহুরুল ১২ ও ব্রাথওয়েট ৬ রানে অপরাজিত ছিলেন। রংপুরের হয়ে শফিউল ২ উইকেট পান। মাশরাফি, ফরহাদ ও হাওয়েলের শিকার একটি করে উইকেট। এমপি হওয়ার পর প্রথম জয়ের স্বাদ পেলেন মাশরাফি।