১০ জানুয়ারী ২০১৯

অস্ট্রেলিয়ায় দূতাবাস-কনসুলেটে সন্দেহজনক প্যাকেট ॥ আটক ১

অস্ট্রেলিয়ায় দূতাবাস-কনসুলেটে সন্দেহজনক প্যাকেট ॥ আটক ১

অনলাইন ডেস্ক ॥ মেলবোর্ন, সিডনি ও ক্যানবেরায় অবস্থিত বিভিন্ন দেশের দূতাবাস ও কনসুলেটে ‘সন্দেহজনক প্যাকেট’ পাঠানোর অভিযোগে এক ব্যক্তিকে আটক করেছে অস্ট্রেলিয়ার পুলিশ।

৪৮ বছর বয়সী ওই অস্ট্রেলীয় ডাকযোগে মোট ৩৮টি প্যাকেট পাঠিয়েছিলেন; যার ২৯টি উদ্ধার করা হয়েছে।

প্যাকেটগুলোতে পাওয়া উপাদান এখনো চিহ্নিত করা যায়নি। তবে দূতাবাস-কনসুলেটে পাঠানো বেশ কিছু প্যাকেটের গায়ে ‘এসবেসটস’ লেখা ছিল বলে সেখানকার কর্মীদের বরাত দিয়ে বিবিসি জানিয়েছে ।

ভবন নির্মাণে ব্যবহৃত উপাদান ‘এসবেসটস’ স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর; কারও কারও ক্ষেত্রে এটি ক্যান্সারসহ নানা ধরনের রোগের কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে বলেও আশঙ্কা বিশেষজ্ঞদের।

বুধবার বেশ কয়েকটি কনসুলেটের কর্মীরা তাদের কাছে ‘সন্দেহজনক প্যাকেট’ এসেছে জানানোর পর অস্ট্রেলিয়ার সরকার বিভিন্ন দেশের দূতাবাস ও কনসুলেটগুলোতে সতর্কতা বার্তা পাঠায়।

এসব বার্তায় বিদেশী কূটনৈতিক ভবনগুলোতে আসা যে কোনো ডাক ‘যথাযথ সাবধানতা ও নিয়ম মেনে খোলার’ পরামর্শ দেওয়া হয়।

দূতাবাস-কনসুলেটে ‘সন্দেহজনক প্যাকেট’ পাওয়ার ঘটনা অস্ট্রেলিয়াজুড়ে আতঙ্ক সৃষ্টি করলেও কোনো ধরনের ক্ষয়ক্ষতি হয়নি, জানিয়েছে পুলিশ।

জরুরি বিভাগের কর্মকর্তারা জানান, তারা ভারত, দক্ষিণ কোরিয়া, নিউজিল্যান্ড, স্পেন, ইতালি, ফ্রান্স, গ্রিস, যুক্তরাজ্য, সুইজারল্যান্ড, যুক্তরাষ্ট্র ও পাকিস্তানসহ বেশ কয়েকটি দেশের কূটনৈতিক ভবনে এসব ‘সন্দেহজনক প্যাকেট’ পাওয়ার কথা শুনেছেন।

এসব প্যাকেট ‘সুনির্দিষ্ট ঠিকানায় পাঠানো হয়েছে’ জানিয়ে পুলিশ জনসাধারণকে আতঙ্কিত না হতে পরামর্শ দিয়েছে। এ ধরনের ২৯টি প্যাকেট উদ্ধার করা হয়েছে, বাকি কোনো প্যাকেট থাকলে সেগুলোও দ্রুত উদ্ধার হবে, বলেছে তারা।

আটক অস্ট্রেলীয়র বিরুদ্ধে ডাকে করে বিপজ্জনক জিনিস পাঠানোর অভিযোগ আনা হতে পারে। দোষী প্রমাণিত হলে তার সর্বোচ্চ ১০ বছরের জেল হবে বলেও বিবিসি জানিয়েছে।

পুলিশ বলছে, আটক ব্যক্তি মেলবোর্নের ২০০ কিলোমিটার উত্তরে শাপার্টনের নিজের বাড়িতেই সন্দেহজনক উপাদান দিয়ে খামগুলো ভরেছিলেন। এসব উপাদান কী কী যৌগ দিয়ে তৈরি তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

আটক অস্ট্রেলীয়কে বৃহস্পতিবার মেলবোর্নের আদালতে তোলা হবে বলে স্থানীয় গণমাধ্যমগুলো জানিয়েছে।