২১ মার্চ ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

আসামে আদিবাসী সংগঠনগুলোর ডাকে পালিত হচ্ছে বন্ধ

আসামে আদিবাসী সংগঠনগুলোর ডাকে পালিত হচ্ছে বন্ধ

অনলাইন ডেস্ক ॥ ভারতের আসামের ছয়টি জাতিগত গোষ্ঠীকে শিডিউলড ট্রাইব (তফশিলি উপজাতি) হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করার প্রস্তাবের বিরোধিতা করে বন্ধ পালন করছে রাজ্যের আদিবাসী সংগঠনগুলো।

আজ শুক্রবার সকাল ৫টায় শুরু হওয়া এ বন্ধ টানা ২৪ ঘণ্টা চলবে। ভারতীয় সংবাদমাধ্যমস টাইমস নাও এর প্রতিবেদন থেকে এ কথা জানা গেছে।

নাগরিকত্ব(সংশোধনী)বিল ২০১৬ নিয়ে আসামে কয়েকদিন ধরে ক্ষোভের আগুন জ্বলছে। ঠিক সেই সময় রাজ্যের ছয়টি জাতিগত গোষ্ঠীকে শিডিউল ট্রাইবস-এর অন্তর্ভুক্ত করার বিল পাসের প্রস্তাব দেয় ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার। বুধবার (৯ জানুয়ারি) বিলটি পার্লামেন্টে তোলা হয়। রাজ্যের যে ৬টি জনগোষ্ঠীকে সরকার তফশিলি উপজাতির মর্যাদা দিতে চাইছে সেগুলি হলো আহোম, মটক, মরান, চুটিয়া, কোচ-রাজবংশী এবং আদিবাসী তথা চা সম্প্ৰদায়।

এ প্ৰস্তাব রাজ্যের আদিবাসী জনগোষ্ঠীকে ক্ষুব্ধ করে তুলেছে। আদিবাসীদের সংগঠনগুলোর জোট দ্য কো-অর্ডিনেশন কমিটি অব দ্য ট্রাইবাল অর্গানাইজেশনের অভিযোগ, কেন্দ্ৰ ও রাজ্য সরকার রাজ্যের প্ৰকৃত আদিবাসীদের বঞ্চিত করে ওই ৬ জনগোষ্ঠীকে শিডিউল ট্রাইবস মর্যাদা দেওয়ার চেষ্টা করছে।

এর আগে মঙ্গলবার নাগরিকত্ব (সংশোধিত) বিল পাসের বিরোধিতা করে আসামে বন্ধ পালিত হয়। এ বিলের আওতায় ২০১৪ সালের ৩১ ডিসেম্বরের আগে বাংলাদেশ, পাকিস্তান ও আফগানিস্তান থেকে ভারতে প্রবেশকারী অমুসলিমদের (হিন্দু, বৌদ্ধ, জৈন, পার্সি, শিখ ও খ্রিস্টান সম্প্রদায়ভুক্ত) নাগরিকত্বের বিধান রাখা হয়েছে। তবে বিরোধীরা বলছে, এই আইনটি ১৯৮৫ সালের আসাম অ্যাকর্ডের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ নয়। ১৯৮৫ সালের আসাম অ্যাকর্ডে বলা হয়েছিল, ১৯৭১ সালের ২৫ মার্চের আগে থেকে যারা আসামে বাস করছে,তারাই শুধু নাগরিকত্ব পাবে।