২২ আগস্ট ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বরিশালে চুরির ঘটনা বেড়েই চলেছে

বরিশালে চুরির ঘটনা বেড়েই চলেছে

স্টাফ রিপোর্টার, বরিশাল ॥ একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর কঠোর নজরদারিতে কোথাও কোন ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটলেও চুরির ঘটনা ক্রমেই বৃদ্ধি পেয়েছে। গত এক সপ্তাহে জেলার উজিরপুর, গৌরনদী ও আগৈলঝাড়া উপজেলায় প্রায় ২০টি চুরির ঘটনা ঘটেছে।

এরমধ্যে এক চোরকে এলাকাবাসী হাতেনাতে আটক করে গণধোলাই দিয়ে পুলিশের কাছে সোর্পদ করলেও পুলিশ চুরিরোধে এখনও কার্যকরী কোন উদ্যোগ গ্রহণ করতে পারেনি। সর্বশেষ বৃহস্পতিবার দিবাগত মধ্যরাতে আগৈলঝাড়া উপজেলা সদরের ফুল্লশ্রী গ্রামের লতিফ খলিফার ঘরে সিঁধ কেটে চোরের দল প্রবেশ করে ঘরে থাকা বিকাশ ব্যবসার নগদ ২১ হাজার ৫০০ টাকা নিয়ে যায়। একইরাতে উপজেলা সদরের শিক্ষক সুশান্ত মজুমদারের গৃহের সিঁধ কেটে ঘরে ঢুকে নগদ ১৮ হাজার টাকা, মোবাইল ফোনসহ মূল্যবান মালামাল এবং কলেজ গেটে সৈকত মন্ডল দীপুর কন্টিনেন্টাল কুরিয়ার সার্ভিসের দোকানে টিনের বেড়া কেটে প্রবেশ করে মূল্যবান মালামাল চুরি করে নিয়েছে।

এয়াড়া ওইদিন রাতে গৌরনদী-আগৈলঝাড়া মহাসড়কের টিএন্ডটি সুপার মার্কেটের শহিদুল ইসলামের পার্সের দোকানের শাটার ভেঙে ৩৮পিস ব্যাটারী, অন্যান্য মালামালসহ প্রায় ছয় লাখ টাকা মালামাল চুরি করে নিয়েছে সংঘবদ্ধ চোরেরা। দোকানে ঘুমিয়ে থাকা শহিদুল ইসলাম ডাকচিৎকার শুরু করায় চোরেরা রড দিয়ে তাকে পিটিয়ে গুরুতর জখম করে। এছাড়া পৌর এলাকার গেরাকুল মহল্লার গোলাম হেলাল মিয়া, ইসমাইল শরীফ ও নুর আলম সরদারের দোকানে চুরির ঘটনা ঘটেছে।

নির্বাচনের পর পরই ব্যবসায়ীক প্রতিষ্ঠান ও বাসা-বাড়িতে চুরির ঘটনা ক্রমেই বৃদ্ধি পাওয়ায় প্রশাসনের ভূমিকা নিয়ে জনমনে নানা প্রশ্নের সৃষ্টি হয়েছে। এ ব্যাপারে গৌরনদী মডেল থানার ওসি গোলাম ছরোয়ার জানান, চুরি রোধে থানা পুলিশকে কঠোর নির্দেশ দেয়া হয়েছে। পুলিশের টহল টিম বৃদ্ধি ও জনগুরুত্বপূর্ণ এলাকায় পাহারার ব্যবস্থা করা হয়েছে।