১৯ জানুয়ারী ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

রাজধানীতে ভবনের ওপর থেকে ইট পড়ে শিশুর মৃত্যু

  • ট্রেন ও সড়ক দুর্ঘটনায় দুজনের মৃত্যু

স্টাফ রিপোর্টার ॥ রাজধানীর মিরপুরে একটি ভবনের ওপর থেকে ইটের টুকরো পড়ে আব্দুল্লাহ নামে ১৬ দিনের এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। মৃত শিশুর বাবা কবির হোসেন একটি বেসরকারী প্রতিষ্ঠানে প্রাইভেটকার চালক হিসেবে চাকরি করেন। গ্রামের বাড়ি বরিশাল জেলার মুলাদী উপজেলায়। তারা মিরপুরের ৬০ ফিট রাস্তার পাশে জোনাকি রোড এলাকায় একটি টিনশেড বাড়িতে ভাড়া থাকেন।

নিহত শিশুর বাবা কবির হোসেন জানান, শুক্রবার সকাল ১০টার দিকে ১৬ দিন বয়সী ছেলে আবদুল্লাহকে কোলে নিয়ে তার খালা তামিম সুলতানা বাসার সামনের গলিতে রোদ পোহাচ্ছিলেন। এ সময় এর পাশেই চারতলা ভবনের ছাদে দুই শিশু খেলা করছিল। হঠাৎ সেখান থেকে একটি ইট এসে শিশু আব্দুল্লাহর মুখের ওপর পড়ে। পরে আব্দুল্লাহকে গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে আগারগাঁও শিশু হাসপাতাল নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে অবস্থা অবনতি হলে আব্দুল্লাহকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের জরুরী বিভাগে আনা হয়। এ সময় কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। মিরপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মোঃ ওয়াহিদুজ্জামান বলেন, শুক্রবার সকালে ১৬ দিন বয়সী আব্দুল্লাহকে কোলে নিয়ে রোদ পোহাচ্ছিল তার খালা। ওই সময় পাশের চারতলা ভবন থেকে একটি ইটের টুকরো এসে পড়ে। চারতলা ভবনের ওপরে দুটো বাচ্চা তখন খেলছিল। তখনই দুর্ঘটনাক্রমে ওই ভবন থেকে ইটের টুকরোটা নিচে পড়ে বলে ধারণা করছি আমরা। এতে মাথায় আঘাতপ্রাপ্ত আব্দুল্লাহর মৃত্যু হয়। মিরপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দাদন ফকির জানান, এটি একটি দুর্ঘটনা। যে শিশুটি মারা গেছে তার বয়স ১৬ দিন। অন্য বাসার ছাদে শিশুরা খেলার সময় অসাবধানতাবশত একটি ইট নিচে পড়ে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

ট্রেন ও সড়ক দুর্ঘটনায় দুজনের মৃত্যু ॥ রাজধানীর গুলশান নতুন বাজার এলাকায় মোটরসাইকেল নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে সজিব (২২) নামে এক যুবক নিহত হয়েছেন। এ সময় ওই মোটরসাইকেলের আরও তিন আরোহী আহত হয়েছে। নিহতের সজিবের বাবার নাম মোঃ আবুল হোসেন। গ্রামের বাড়ি ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার বাঞ্ছারামপুর উপজেলার কমলপুর গ্রামে। তিনি রাজধানীর পূর্ব বাড্ডা ডিআইটি প্রজেক্টের পূর্ব পাশে সিটি কর্পোরেশন স্টাফ কোয়াটারে থাকতেন। গুলশান থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আবুল কালাম আজাদ জানান, বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১২টার দিকে প্রগতি সরণিতে মোটরসাইকেল ঘুরানোর সময় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে চারজনই রাস্তায় ছিটকে পড়ে গুরুতর আহত হন। পরে তাদেরকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের জরুরী বিভাগে আনা হয়। এ সময় কর্তব্যরত চিকিৎসক মোটরসাইকেল চালক সজিবকে মৃত ঘোষণা করেন।

নিহত সজিবের মামা সবুজ মোল্লা জানান, সিটি কর্পোরেশনের স্টাফ কোয়াটার থেকে মোটরসাইকেলে করে সজিব তার ছোট মামা মোহাম্মাদ আলীসহ দুজনকে নিয়ে রাতে নতুনবাজার এলাকায় যাচ্ছিলেন। এ সময় মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় তারা গুরুতর আহত হন। পরে ঢামেক হাসপাতালে নিলে সজীবের মৃত্যু হয়। এদিকে একই সময় রাজধানীর দক্ষিণখানের আশকোনা ও কাওলার মধ্যবর্তীস্থানে ট্রেনে কাটা পড়ে সাগর কুমার সেনগুপ্ত (৪৩) নামে এক পথচারীর মৃত্যু হয়েছে।