১৯ জানুয়ারী ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

মারের চোখে জল

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ নতুন বছরের শুরুতেই টেনিসপ্রেমীদের অবাক করা এক খবর দিলেন এ্যান্ডি মারে। জানালেন এ বছরের উইম্বলডন খেলেই বিদায় নেবেন তিনি। আর মারের বিদায় দিয়েই ভাঙবে বিশ্ব টেনিসের বিগ ফোর। গত বছরের শুরুতেই টেনিসবোদ্ধারা জানিয়েছিলেন ‘বিগ ফোরে’ ভাঙন আসতে পারে এ বছরেই। তাদের সেই ধারণা প্রমাণ করে বছরের শুরুতেই বিদায়ের কথা জানিয়ে দিলেন গ্রেট ব্রিটেনের এই টেনিস তারকা।

সুদীর্ঘ ক্যারিয়ারে তিন গ্র্যান্ডস্লামজয়ী এ্যান্ডি মারে নিজের ক্যারিয়ারের ইতি টানতে যাচ্ছেন। শুক্রবার অশ্রুসিক্ত নয়নে জানিয়েছেন এ বছরের উইম্বলডনই হবে তার শেষ গ্র্যান্ডস্লাম। রজার ফেদেরার, রাফায়েল নাদাল, নোভাক জোকোভিচ আর এ্যান্ডি মারেকে নিয়েই টেনিসের বিগ ফোর। যদিও প্রথম তিনজনের মতো শেষের জন কিছুটা অনুজ্জ্বল ছিলেন বটে। কিন্তু স্বমহিমায় নিজেকে চেনাতে কোন ছাড় দেননি ব্রিটিশ তারকা এ্যান্ডি মারে। অথচ সবার পরে টেনিসের ঝলমলে আসরে পা দেয়া এ্যান্ডি ব্যারন মারেকে টেনিস কোর্ট থেকে বিদায় নিতে হচ্ছে সবার আগে! তিনবারের গ্র্যান্ডস্লামজয়ী মারেকে এ বছরের উইম্বলডনের পর আর দেখা যাবে না টেনিস কোর্টে।

দুই বছর আগেও টেনিসের ‘বিগ ফোর’-এর সবাই চোটের কারণে বাইরের ছিলেন একসঙ্গে। ফেদেরার তো বলেই দিয়েছিলেন, একসঙ্গে চারজনকে আর নাও দেখা হতে পারে। কিন্তু প্রথম তিনজন দোর্দ- প্রতাপে ফিরে এসেছেন। মারে পারলেন না। কোমরের চোটের সঙ্গে দীর্ঘ তিন বছরের লড়াইয়ের পর হার মানতে হলো ‘নাইট’ খেতাব পাওয়া এই ব্রিটিশ তারকাকে। মারে নিজেকে শান্ত করে জানিয়েছেন নিজের সিদ্ধান্ত। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘আমি খুব একটা সুস্থ না। অনেক দিন ধরেই এই লড়াই চলছে। এই ব্যথা নিয়ে আছি প্রায় ২০ মাস। আমি আমার যা কিছু সম্ভব তার সবই করেছি কোমরের চোট কাটিয়ে উঠতে। আসলে ব্যথাটা অনেক বেশি, চিন্তাও করা যায় না এমন। আমি জানি না কবে এই ব্যথা কমবে। আদৌ কমবে কি না, তাও জানি না।’

এক নাগাড়ে কথাগুলো বলে যান মারে। পরিবারের বিষয়টিও খুবই বড় করে দেখছেন তিনি। তার মতে, ‘কিছু চিন্তার বিষয়ও আছে। আরেকটি অস্ত্রোপচার আমাকে সাময়িকের জন্য আরেকটু সুস্থ করতে পারে, কিন্তু ভবিষ্যত বলতে পারে না। সেটি করলে আমি আরেকটু সুস্থ হতে পারব। আমার পরিবারের সঙ্গে একটা ভাল জীবন কাটাতে পারব।’ গত বছরের জানুয়ারিতেই অস্ত্রোপচারের টেবিল থেকে ফিরেছেন মারে। জুনে কোর্টে ফেরত আসার পর থেকে মাত্র ১৪ ম্যাচ খেলেছেন মারে। দুই দিন পরই শুরু অস্ট্রেলিয়ান ওপেন। মৌসুমের প্রথম গ্র্যান্ডস্লাম টুর্নামেন্টে ২২ নম্বর তারকা রবের্তো বাতিস্তার বিপক্ষে প্রথম রাউন্ডের ম্যাচ খেলবেন মারে। চোটের যে বর্ণনা নিজেই দিয়েছেন, তাতে বছরের প্রথম গ্র্যান্ডস্লমে কতটুকু যেতে পারবেন নিজেও নিশ্চিত নন। ব্যথা আর না বাড়িয়ে তাই পরিবারকেই সময় বেশি দেয়ার কথা ভাবছেন ব্রিটিশ নাইটহুড পাওয়া এই তারকা।