২৪ মার্চ ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বিচ্ছেদ হলেই শীর্ষ ধনী তিনি!

বিচ্ছেদ হলেই শীর্ষ ধনী তিনি!

অনলাইন ডেস্ক ॥ আমাজনের প্রধান নির্বাহী জেফ বেজোস ও লেখিকা ম্যাকেঞ্জি ২৫ বছরের দাম্পত্যজীবনের ইতি টানার ঘটনা প্রায় সবারই জানা। গত বুধবার টুইটারে যৌথ বিবৃতিতে বিচ্ছেদের ঘোষণা তারা নিজেরাই দিয়েছে। তাতে বলা হয়, আমরা বিচ্ছেদের সিদ্ধান্ত নিয়েছি। বন্ধু হিসেবে আমরা সামনের দিনগুলো কাটাবো।

ফলে সংসার ভাঙনের মধ্য দিয়েই বেজোস দম্পতির বিশাল ধনসাম্রাজ্যও দু’ভাগ হতে চলেছে। মার্কিন ট্যাবলয়েড ন্যাশনাল এনকুয়ারারের প্রতিবেদনে এমনটিই বলা হয়েছে।

২০১৭ সালে বিশ্বের সবচেয়ে ধনী ব্যক্তি নির্বাচিত হয়েছিলেন জেফ বেজোস। এক বছরেরও বেশি সময় ধরে বিশ্বের সবচেয়ে ধনী ব্যক্তির তকমা ধরে রেখেছেন তিনি।

জানা যায়, ২৫ বছর আগে ম্যাকেঞ্জি বেজোসকে বিয়ে করেছিলেন জেফ বেজোস। ওই বছরই দুজনে মিলে বহুজাতিক প্রযুক্তি কোম্পানি ও ই-কমার্স জায়ান্ট অ্যামাজন প্রতিষ্ঠা করেন। এ দম্পতির নিরলস প্রচেষ্টার মাধ্যমে ধাপে ধাপে অ্যামাজন বিশ্বের সবচেয়ে বড় কোম্পানিতে পরিণত হয়। অ্যামাজনে বেজোস দম্পতির শেয়ার সমান সমান। অর্থাৎ জেফ বেজোসের প্রায় ১১ লাখ কোটি টাকার সমান অর্ধেক ম্যাকেঞ্জি বেজোসের। বৃহস্পতিবার জেফ বেজোস তার টুইটার অ্যাকাউন্টে ম্যাকেঞ্জির থেকে পৃথক হওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন।

ব্লুমবার্গ বিলিয়নিয়ার্স ইনডেক্সের তথ্য অনুসারে, বেজোস দম্পতির সম্পদের পরিমাণ ১৩৭ বিলিয়ন ডলার। বাংলাদেশি টাকায় যা দাঁড়ায় প্রায় ১১ লাখ কোটি টাকা। এ বিশাল সম্পদের ভাগাভাগি নিয়ে এ দম্পতির মধ্যে কোনো চুক্তিও নেই। তাই চূড়ান্তভাবে বিচ্ছেদ হলে তাদের এই বিশাল ধনসাম্রাজ্য সমান দু’ভাগ হওয়া অনেকটাই অবধারিত। এই একটি বিচ্ছেদই বিশ্বে সম্পদশালীদের তালিকা বদলে দিতে পারে। বিচ্ছেদের কারণে ম্যাকেঞ্জি পাবেন সাড়ে পাঁচ লাখ কোটি টাকা। এর ফলে তিনি বিশ্বের সবচেয়ে ধনী নারীতে পরিণত হবেন।

বলা হচ্ছে, বেজোস দম্পতির বিচ্ছেদ এতটা সহজ হবে না। কেননা, অ্যামাজন ছাড়াও তাদের ৪ লাখ একর সম্পত্তি রয়েছে। এছাড়া, বেজোস দম্পতির ৪ সন্তানও রয়েছে।

ব্লুমবার্গের রিপোর্টে বলা হয়েছে, একটি বিচ্ছেদ বিশ্ব সম্পদ র্যাংকিং বদলে দিতে পারে। যদি এই দম্পতি তাদের সম্পদ সমান ভাগ করেন, তাহলে ম্যাকেঞ্জি বিশ্বের সবচেয়ে ধনী নারীর তকমা পাবেন। এর ফলে মাইক্রোসফটের প্রতিষ্ঠাতা বিল গেটস আবারো বিশ্বের সবচেয়ে ধনী ব্যক্তি হবেন। ২০১৭ সালে বিল গেটসকে হারিয়ে জেফ বেজোস ধনীদের তালিকায় শীর্ষস্থান দখল করেন।

৫৪ বছর বয়সী বেজোসের দাম্পত্য জীবনের ইতি টানার খবর প্রকাশের কয়েক ঘণ্টা পরই বিভিন্ন সংবাদমাধ্যম তার নতুন প্রেমিকা নিয়ে খবর ছাপিয়েছে। সেই প্রেমিকার নাম লরেন সানচেজ।

লরেন সানচেজ পেশায় উপস্থাপক। এছাড়া অভিনয়, মডেলিং, প্রযোজনা ও উদ্যোক্তা হিসেবেও পরিচিতি আছে তার।