১৯ জানুয়ারী ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

স্মৃতিচারণে মৃনাল সেন স্মরণ

স্মৃতিচারণে মৃনাল সেন স্মরণ

স্টাফ রিপোর্টার ॥ স্মৃতিকথা আর চলচ্চিত্রের ওপর মূল্যায়নমূলক আলোচনায় স্মরণ করা হয় কিংবদন্তি চলচ্চিত্রকার মৃণাল সেনকে। শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় সঙ্গীত ও নৃত্যকলা কেন্দ্র মিলনায়তনে আয়োজিত স্মরণসভায় বক্তরা বাংলাদেশে মৃণাল সেনের স্মৃতিরক্ষায় তার জন্মভিটা ফরিদপুরের পৈত্রিক বাড়িটি সংরক্ষণ করার দাবি জানান। স্মরণসভার আয়োজন করে যৌথভাবে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি, ফেডারেশন অব ফিল্ম সোসাইটিজ অব বাংলাদেশ ও বাংলাদেশ শর্ট ফিল্ম ফোরাম। আলোচনায় অংশ নেন শিল্পকলা একাডেমির মহাপরিচালক লিয়াকত আলী লাকী, ফেডারেশন অব ফিল্ম সোসাইটিজ অব ইন্ডিয়ার সহ-সভাপতি প্রেমেন্দ্র মজুমদার, চলচ্চিত্র সমালোচক ও লেখক মাহমুদুল হোসেন, বাংলাদেশ শর্ট ফিল্ম ফোরামের সভাপতি জাহিদুর রহিম অঞ্জন, ফেডারেশন অব ফিল্ম সোসাইটিজ অব বাংলাদেশের সাধারণ সম্পাদক বেলায়াত হোসেন মামুন, চলচ্চিত্র নির্মাতা আকরাম খান, কবি ও চলচ্চিত্রকার টোকন ঠাকুর, শব্দগ্রাহক নাহিদ মাসুদ, চলচ্চিত্র সংসদ আন্দোলনের সদস্য সিরাজুল ইসলাম খান, এফএফএসবির সহ-সভাপতি সুশীল সূত্রধর প্রমুখ। বক্তারা বলেন, যেমন করে কিশোরগঞ্জে সত্যজিৎ রায়ের পৈত্রিক বাড়ি এবং রাজশাহীতে ঋত্বিক কুমার ঘটকদের বাড়িটি সংরক্ষণ করা হয়েছে ঠিক তেমনি ফরিদপুরে মৃণাল সেনের পৈত্রিক বাড়িটি সংরক্ষণ করতে হবে। সেখানে ‘মৃণাল সেন স্মৃতি জাদুঘর’ গড়ে তুলতে হবে। এই দাবির বিষয়ে বিস্তারিত জানিয়ে অচিরেই প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি প্রেরণ, ফরিদপুর জেলা প্রশাসককে স্মারকলিপি প্রদানসহ একাধিক কর্মসূচী প্রণয়ন করা হবে। এছাড়াও সভায় বক্তারা, মৃণাল সেন নির্মিত সকল চলচ্চিত্র নিয়ে বড় পরিসরে রেট্রোস্পেক্টিভের আয়োজন, মৃণাল সেনকে নিয়ে বাংলাদেশ থেকে একটি স্মারকগ্রন্থ প্রকাশের প্রয়োজনীয়তার কথা তুলে ধরেন। স্মরণসভার শুরুতে মৃণাল সেন স্মরণে একমিনিট নীরবতা পালন করা হয়। এরপর প্রদীপ প্রজ্বালনের মধ্য দিয়ে মৃণাল সেন স্মরণসভা শুরু হয়। উল্লেখ্য, কিংবদন্তি চলচ্চিত্রকার মৃণাল সেন গত ৩০ ডিসেম্বর ৯৬ বছর বয়সে প্রয়াত হয়েছেন।