২৩ জানুয়ারী ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

আলিসের বোলিং এ্যাকশন নিয়ে সন্দেহ

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ শুরুতেই ঝলক। প্রতিযোগিতামূলক কোন ক্রিকেট প্রথমবার খেলতে নেমেই ম্যাচের নায়ক হন আলিস আল ইসলাম। ঢাকা ডায়নামাইটসের এ স্পিনারের হ্যাটট্রিকসহ ৪ উইকেট নেয়া দুর্দান্ত বোলিংয়েই শুক্রবার কপাল পোড়ে রংপুর রাইডার্সের। জেতা ম্যাচ হেরে যায় রংপুর আর তাই রংপুর কর্তৃপক্ষ ক্ষেপেছে। আলিসের বোলিং এ্যাকশন নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেছে রংপুর। আম্পায়াররাও এ স্পিনারের বোলিং এ্যাকশন নিয়ে সন্দেহ করেছে।

ঢাকার নেট বোলার হিসেবে ঢাকা ডায়নামাইটস শিবিরে যোগ দেন আলিস। তার বোলিং দেখে ঢাকার কোচ খালেদ মাহমুদ সুজনের এতটাই মনে ধরে যে ম্যাচ খেলতে নামিয়ে দেন। প্রথম ম্যাচেই ক্রিকেটপ্রেমীদের মন জয় করে নেন আলিস। মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামভর্তি দর্শকের সামনে নিজেকে মেলে ধরেন। আর তাতে আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে থাকেন এ স্পিনার।

আলিসের এমন জৌলুস ছড়ানো বোলিংয়ে সন্দেহের চোখ পড়েছে রংপুরের। ঢাকার সঙ্গে ২ রানে হারের পর থেকেই আলিসের বোলিং নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে রংপুর কর্তৃপক্ষ।

বিজ্ঞপ্তি দিয়ে এ বিষয়ে রংপুর ফ্র্যাঞ্চাইজি নিজেদের উদ্বেগের কথা জানায়। ফ্র্যাঞ্চাইজিটির পক্ষ থেকে বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়, ‘চার দিন আগে আমাদের অবগত করা হয় যে ড্রাফটের বাইরে থেকেও ক্রিকেটারদের খেলানো যাবে এবং সেই অনুসারে আলিস আল ইসলামকে ঢাকা ডায়নামাইটস অন্তর্ভুক্ত করে। তার বিপিএলে খেলা নিয়ে আমাদের কোন সমস্যা ছিল না। কিন্তু একটি বিষয় উল্লেখ না করলেই নয়; ঢাকা প্রথম বিভাগ লীগ খেলার সময় আলিসের বোলিং এ্যাকশন সন্দেহজনকদের তালিকায় ছিল।’

ফ্র্যাঞ্চাইজি আরও জানায়, ‘আমাদের জানানো হয়েছিল আলিস বোলিং এ্যাকশন শুধরে নিয়েছে। কিন্তু ম্যাচে তার বোলিং দেখে মনে হয়েছে পুরোপুরি শোধরাতে পারেনি। বিশেষ করে সে যখন দুসরা ডেলিভারি দেয়, তখন কনুই ১৫ ডিগ্রীর বেশি বেঁকে যায়।’

আলিসের এখন কী হবে? আসলেন, খেললেন; সব কিছু জয় করলেন আলিস অথচ এখন বোলিং এ্যাকশন নিয়ে পড়লেন বিপাকে। অবশ্য এ নিয়ে কোন বিপাক নেই। কারণ, এখন থেকে ২১ দিন পর্যন্ত তিনি বোলিং করতে পারবেন। নিয়মই আছে; যদি কোন বোলারের বোলিং নিয়ে ম্যাচ আম্পায়ার কিংবা ম্যাচ অফিসিয়াল রিপোর্ট করে, সন্দেহ করে; তাহলে সেই বোলার অবৈধ হিসেবে বিবেচিত হবেন। তবে সেই বোলার ২১ দিন খেলতে পারবেন। যেহেতু বিপিএল হচ্ছে ঘরোয়া লীগ। তাই দেশের বোর্ডই এ বিষয়টি দেখবে। আলিস এখন খেলতে পারবেন। তবে ৩৫ দিনের টুর্নামেন্টে আর ১৯ দিন খেলতে পারবেন। এরপর তাকে বোলিং এ্যাকশন শোধরাতে হবে। শোধরানোর পর যদি আবার সঠিক ধারায় ফেরেন, বিসিবি খেলার অনুমতি দেয়; তাহলে খেলতে পারবেন আলিস। প্রথম ম্যাচে নায়ক বনে যাওয়ার পর বোলিং এ্যাকশনের সন্দেহেও পড়ে গেলেন আলিস।