২৪ এপ্রিল ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

অবশেষে ঢাকার হার

অবশেষে ঢাকার হার

মিথুন আশরাফ ॥ বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগের (বিপিএল টি২০) ষষ্ঠ আসরের সিলেট পর্বে চমক মিলছে। মঙ্গলবার খুলনা টাইটান্স অবশেষে জয় পেয়েছে। বুধবার অবশেষে ঢাকা ডায়ানামাইটস হেরেছে। যে দলটি ঢাকাকে এবার বিপিএলে প্রথম হারের স্বাদ দিয়েছে, সেই রাজশাহী কিংস দলটিও দেখিয়েছে চমক। প্রথমবারের মতো কোন দল, দলের ক্রিকেটাররা নিজের নামের পরিবর্তে জার্সিতে মায়ের নাম লিখে খেলতে নামে। সেই দলটি রাজশাহী। মায়ের নামে জার্সি পরে খেলতে নেমে ঢাকাকে আবার ২০ রানে হারিয়েছেও রাজশাহী। আরাফাত সানির (৩/৮) স্পিন জাদুতে সেই জয় মেলে।

সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে দিনের প্রথম ম্যাচে টস জিতে রাজশাহী আগে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেয়। ভবিষ্যত অধিনায়ক ধরা হচ্ছে মেহেদী হাসান মিরাজকে। তিনি টস জিতেই ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেন। ঢাকা ডায়নামাইটসের অধিনায়ক সাকিব আল হাসান তাকে সাধুবাদ জানান। আগে ব্যাটিং করে রাজশাহী যে খুব বেশি রান স্কোরবোর্ডে যোগ করতে পেরেছে তা নয়। ৬ উইকেট হারিয়ে ২০ ওভারে ১৩৬ রান করতে পেরেছে রাজশাহী। তবে এই রানও আবার চমক জাগানিয়া ব্যাটিং থেকেই এসেছে। বুধবার ম্যাচটিতে মুমিনুল হক ও সৌম্য সরকারকে একাদশের বাইরে রাখা হয়। তাদের পরিবর্তে শাহরিয়ার নাফীস ও মার্শাল আইয়ুবকে খেলানো হয়। দুই জনই ভরসার প্রতিদান দেন। শাহরিয়ার ২৫ রান করে ও মার্শাল দলের সর্বোচ্চ ৪৫ রান করে আউট হন। তবে দুইজন মিলে দ্বিতীয় উইকেটে যে ৭৫ রানের জুটি গড়েছেন, অভিজ্ঞতার ঝলক দেখিয়েছেন; সেটিই সবার নজরে এসেছে। এ দুই জনকেই আবার রুখে দেন ৩ উইকেট নেয়া ওয়েস্ট ইন্ডিজ স্পিনার সুনীল নারাইন। তিনি ১২তম ওভারের দ্বিতীয় ও চতুর্থ বলে শাহরিয়ার ও মার্শালকে আউট করে দেন। শাহরিয়ার ও মার্শালের দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ের সঙ্গে উইকেটরক্ষক জাকির হাসানের ২০ রানের ইনিংসেই এমন রান করতে পারে রাজশাহী।

এত অল্প রান, তাও আবার ঢাকার বিপক্ষে। জেতা কী সম্ভব? রাজশাহীর ইনিংসের পর এই প্রশ্ন ওঠে। কিন্তু সিলেটে তো বোলাররাই যা করার করছেন। বিশেষ করে স্পিনাররা এমন ঝলকই দেখাচ্ছেন, স্কোরবোর্ডে রান কম হলেও ম্যাচ জেতা যায়, তাই বুঝিয়ে দিচ্ছেন। প্রতিপক্ষ যে দলই হোক। রাজশাহীর আরাফাত সানি ও ২ উইকেট নেয়া মিরাজ যেমন দুর্দান্ত স্পিন ঘূর্ণিতে ঢাকাকে কাত করে দিলেন। ঢাকা তো ১১৬ রানের বেশি করতেই পারল না। ৯ উইকেট হারিয়ে ২০ ওভারে ১১৬ রান করতে পারে ঢাকা। তাতে রাজশাহীর কাছে হার হয়। এবার বিপিএলে প্রথম ম্যাচে রাজশাহীকে হারিয়ে দিয়েছিল ঢাকা। ঢাকা পর্বে সেই জয় এসেছিল। সিলেট পর্বে ঢাকা এসে হোঁচট খেল। ঢাকা পর্বে টানা চার ম্যাচ জেতার পর সিলেট পর্বে এসে হারল। আফগানিস্তান ওপেনার হযরতুল্লাহ জাজাই তো যেন ‘অফ ফর্মে’ই চলে গেছেন। নারাইনও ব্যাটিংয়ে ঝলক দেখাতে পারেননি। আন্দ্রে রাসেল, রনি তালুকদার, সাকিব, কাইরন পোলার্ডরা দুই অঙ্কের ঘরে অনেক কষ্টে পৌঁছালেও, সবাই ২০ রানের নিচেই থাকলেন। তাতে নুরুল হাসান সোহানের (দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ২১ রান) চেষ্টাও বৃথাই যায়।

মায়ের নামে জার্সি পরে খেলতে নেমে যেন আত্মবিশ্বাসের তুঙ্গে ছিলেন রাজশাহী ক্রিকেটাররা। রান স্কোরবোর্ডে যাই জমা হোক, জিততে হবে। এমন জেদই ছিল মনে! আর তাই তো ম্যাচটা জিতে মায়েদের গৌরবান্বিত করলেন রাজশাহী ক্রিকেটাররা। ঢাকাকেও অবশেষে হারের স্বাদ দিল রাজশাহী।