২৪ জুলাই ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

মেঘনায় ট্রলারডুবিতে নিখোঁজ ২০ ॥ দুর্ঘটনার চতুর্থ দিনেও সন্ধান মিলেনি

মেঘনায় ট্রলারডুবিতে নিখোঁজ ২০ ॥ দুর্ঘটনার চতুর্থ দিনেও সন্ধান মিলেনি

স্টাফ রিপোর্টার, মুন্সীগঞ্জ ॥ মুন্সীগঞ্জের মেঘনা নদীতে ট্রলার ডুবিতের চতুর্থ দিনে শুক্রবারও নিখোঁজ ২০ শ্রমিকের সন্ধান মিলেনি। শুক্রবার দিনভর ডুবে যাওয়া মাটি বোঝাই ট্রলারটি চিহ্নিত করতে নানা তৎপরতা চলে। সাইড স্ক্যান সোনারে শব্দ তরঙ্গের মাধ্যমে বিআইডব্লিউটিসির একটি টিম এবং নৌবাহিনীর আরেকটি টিম চেষ্টা চালায়। সম্ভাব্য স্থানগুলোতে এই স্ক্যান করা হয়। কিন্তু শুক্রবার সন্ধ্যা পর্যন্ত কোন রকম সন্ধান পাওয়া যায়নি।

নৌ-বাহিনী, ফায়ার সার্ভিস, ও বিআইডব্লিউটিএর ডুবরী দল ছাড়াও কোস্টগার্ড ও নৌ পুলিশ নানা তৎপরতা চালায়। এদিকে উদ্ধারকারী জাহাজ “প্রত্যয়” উদ্ধার তৎপরতা শুরু করার অপেক্ষায় রয়েছে। কিন্তু ১৫০ ফুট দীর্ঘ ট্রলারটি সন্ধান না পাওয়ায় ক্রেনটি ব্যবহার করতে পারছে না। তাই সকলেই এখন নদীর তলদেশের ট্রলারের সন্ধানে ব্যস্ত সময় পার করছে।

গজারিয়ার ইউএনও হাসান সাদী শুক্রবার বিকাল সাড়ে ৫টায় জানান, সানলাইট না থাকায় শুক্রবারের মত অভিযান স্থগিত করা হয়েছে। তবে শনিবার সকাল ৮টা থেকে আবার অভিযান চলবে।

এদিকে স্বজন হারা পরিবারগুলো বলছে- দুর্ঘটনার চার দিনেও ট্রলারটি সনাক্ত না করা দুঃখজনক। এদিকে সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছে ডুবে যাওয়া ট্রলারের মাঝি হাবিবকে গ্রেফতার করা গেলে দুর্ঘটনার স্থানটি চিহ্নিত করা সহজ হত। একই সাথে ট্রলারের মালিক জাকির দেওয়ানকে এখনও কেন আইনের আওতায় আনা হচ্ছে না?

মুন্সীগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ খন্দকার আশফাকুজ্জামান বলেন, মামলার প্রস্তুতি নেয়া আছে। তবে এখনও ট্রলারটি সনাক্ত না হওয়ায় মামলা করা সম্ভব হয়নি। এছাড়া নৌকার মাঝিকে গ্রেফতার এবং ট্রলারের মালিকে আইনের আওতায় আনার প্রক্রিয়া চলছে।

এদিকে মুন্সীগঞ্জের মেঘনায় ট্রলারডুবির ঘটনায় তদন্ত কমিটি গঠিত হয়েছে। নয় সদস্য বিশিষ্ট এই কমিটির প্রধান মুন্সীগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোবাশ্বেরুল ইসলাম।

গত সোমবার দিবাগত রাত ৩ টার দিকে মেঘনা নদীতে মাটি বোঝাই ট্রলার ডুবিতে ২০ শ্রমিক নিখোঁজ রয়েছেন। ট্রলারের ১৪ শ্রমিক সাতরিয়ে তীরে উঠতে সক্ষম হন। নিখোঁজ শ্রমিকদের মধ্যে ১৭ জনের বাড়ি পাবনার ভাঙ্গুরিয়া উপজেলার খানমরিচ ইউনিয়নে। দুর্ঘটনার ২৯ ঘন্টা পর উদ্ধার কাজ শুরু হয়। তবে এখনও নিখোঁজ শ্রমিকের সন্ধান মিলেনি।