২১ এপ্রিল ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

৬০ বিলিয়ন ডলার রপ্তানিতে প্লাষ্টিক খাতের হবে ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ

৬০ বিলিয়ন ডলার রপ্তানিতে প্লাষ্টিক খাতের হবে ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেছেন, সরকার ঘোষিত ২০২১ সালের মধ্যে ৬০ বিলিয়ন রপ্তানির লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে দেশের প্লাষ্টিক খাতকে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখতে হবে। প্লাষ্টিক বাংলাদেশের একটি সম্ভাবনাময় খাত। দেশে ও আন্তর্জাতিক বাজারে প্লাষ্টিকের চাহিদা দিনদিন বাড়ছে। দেশের তৈরী পোশাকসহ অনেক শিল্প কারখানায় প্লাষ্টিক জাতীয় পণ্য আমদানি করতে হতো। আজ বাংলাদেশ প্লাষ্টিক পণ্যে সয়ং সম্পন্ন। দেশের চাহিদা পূরণ করে এখন বিদেশে রপ্তানি করা হচ্ছে।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, দেশে এখন প্রায় ২৫ হাজার কোটি টাকা মূল্যের প্লাষ্টিক পণ্য উৎপাদিত হচ্ছে এবং বিক্রয় হচ্ছে। বিভিন্ন খাতের মাধ্যমে প্লাষ্টিক পণ্য রপ্তানি হচ্ছে ৩ হাজার কোটি টাকা এবং সরাসরি রপ্তানি হচ্ছে ১ হাজার কোটি টাকা। রপ্তানিতে বাংলাদেশের অবস্থান ১২ তম। এখাতে ১২ লাখের বেশি মানুষ কাজ করার সুযোগ পাচ্ছে। দেশের প্লাষ্টিক সেক্টরকে সরকার গুরুত্বপূর্ণ সেক্টর হিসেবে বিবেচনা করছে।

বাণিজ্যমন্ত্রী রবিবার ঢাকার রেডিসন হোটেলে বাংলাদেশ প্লাষ্টিক গুডস এন্ড ম্যানুফ্যাকচারার্স এন্ড এক্সপোর্টার্স এ্যাসোসিয়েমন আয়োজিত ৪দিন ব্যাপি ১৪তম বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক প্লাষ্টিক, প্যাকেজিং এন্ড প্রিন্টিং ইন্ডাষ্ট্রিয়াল ফেয়ার এর সমাপনি অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন।

টিপু মুন্শি বলেন, দেশের প্লাষ্টিক খাতকে গতিশীল করতে সরকার সব ধরনের সহযোগিতা প্রদান করবে। এখন প্লাষ্টিক পণ্য রপ্তানিতে ১০ ভাগ হারে নগদ আর্থিক সহায়তা প্রদান করা হচ্ছে। দেশে এ মহুর্তে মাথাপিছু ৫ থেকে ৭ কেজি প্লাষ্টিক পণ্য ব্যবহ্যত হচ্ছে, আগামী ২০৩০ সালে এ ব্যবহারের পরিমান ৩৫ কেজি দাঁড়াবে। সে লক্ষ্যকে সামনে রেখে আমাদের সক্ষমতা বৃদ্ধি করতে হবে। তাছাড়া অন্যান্ন পণ্য রপ্তানি বৃদ্ধির সাথে সাথে প্লাষ্টিক পণ্যের চাহিদা বাড়বে।

এবারের মেলায় বিশ্বের ১৯টি দেশের ৪৬০টি কোম্পানির ৭৮০টি প্রতিষ্ঠান অংশ নিয়েছে। গত বছরের চেয়ে এবার অংশগ্রহণকারী প্রতিষ্ঠান বৃদ্ধির পরিমান ৬.৫ ভাগ।

বাংলাদেশ প্লাষ্টিক গুডস ম্যানুফ্যাকচারার্স এন্ড এক্সপোর্টার্স এ্যাসোসিয়েমনের প্রেসিডেন্ট মো. জসিম উদ্দিনের সভাপতিত্বে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন লুনা প্লাষ্টিক ইন্ডাষ্টিজের ব্যাবস্থাপনা পরিচালক এ এস এম কামাল উদ্দিন, ওয়ার্কার্স ট্রেড এন্ড মার্কেটিং এর প্রেসিডেন্ট জুডি ওয়াং। স্বাগত বক্তব্য রাখেন এ্যাসোসিয়েমনের সিনিয়র ভাইস-প্রেসিডেন্ট গিয়াস উদ্দিন আহমেদ।