১৮ এপ্রিল ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

গাজীপুরে মুক্তিপণের দাবিতে অপহরণের একদিন পর শিশু উদ্ধার, অপহরণকারী গ্রেফতার

স্টাফ রিপোর্টার, গাজীপুর ॥ গাজীপুরে মুক্তিপণের দাবিতে নার্সারি শ্রেণীতে পড়ুয়া এক শিশুকে অপহরণের একদিন পর মঙ্গলবার পুলিশ উদ্ধার করেছে। এ সময় অপহরণকারী এক যুবককে পুলিশ গ্রেফতার করেছে। গ্রেফতারকৃতের নাম শফিকুল ইসলাম (৩০)। সে দিনাজপুর জেলার ঘোড়াঘাট থানার মগলিশপুর এলাকার মৃত আনসার আলীর ছেলে।

শ্রীপুর থানার এসআই রাজীব কুমার সাহা ও স্থানীয়রা জানান, কিশোরগঞ্জের নিকলী উপজেলার জালালপুর গ্রামের মৃত রুবেল মিয়া ওরফে হৃদয়ের স্ত্রী রাবেয়া খাতুন তাদের ৭ বছরের শিশু সন্তানকে নিয়ে শ্রীপুর পৌরসভার বেড়াইদেরচালা এলাকার সারফুলের বাড়িতে ভাড়া বাসায় থাকেন। রাবেয়া স্থানীয় তাকওয়া ফ্রেবিক্স গার্মেন্টস কারখানায় চাকরি করে। রাবেয়ার মেয়ে তাহমিনা আক্তার ওরফে আঁখি মনি (৭) স্থানীয় আইডিয়াল কিন্ডার গার্টেনের নার্সারি ক্লাসে পড়ে। একই বাড়িতে ভাড়া থাকে শফিকুল ইসলাম। সোমবার দুপুরে স্কুল ছুটির পর বাসায় ফেরার পথে পিতৃহারা আঁখি মনিকে কৌশলে অপহরণ করে শফিকুল। এদিকে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে আঁখি বাসায় ফিরে না আসায় স্বজনরা বিভিন্নস্থানে খোঁজাখুঁজি শুরু করে। কিন্তু তার সন্ধান না পেয়ে সন্ধ্যায় শ্রীপুর থানায় অভিযোগ করে তার পরিবার। খোঁজাখুঁজির এক পর্যায়ে সন্ধ্যায় রাবেয়ার এক আত্মীয়ের মোবাইলে ফোন করে ৫০ হাজার টাকা মুক্তিপণ দাবি করে আঁখিকে মেরে ফেলার হুমকি দেয় শফিকুল। এ ঘটনা পুলিশকে না জানানোর জন্য ক্ষুদে বার্তায় পরামর্শ দেয় সে। পুলিশ অপহৃত ও অপহরণকারীর খোঁজে বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালায়। অভিযানের একপর্যায়ে পুলিশ তথ্য প্রযুক্তির ব্যবহার করে মোবাইল ফোনের অবস্থান নিশ্চিত হয়। পরে পুলিশ ছদ্মবেশে অপহরণকারীর দেয়া শর্ত অনুযায়ী গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার চন্দ্রা এলাকায় উপস্থিত হয়। এ সময় পুলিশ ওই এলাকার একটি পরিত্যক্ত ভবনে অভিযান চালিয়ে ভবনের দ্বিতীয়তলা থেকে অপহৃত শিশুটিকে উদ্ধার এবং অপহরণকারী শফিকুলকে গ্রেফতার করে।

শ্রীপুর থানার ওসি জাবেদুল ইসলাম জানান, অপহৃত শিশুটিকে উদ্ধারের পর তার মায়ের কোলে ফিরিয়ে দেয়া হয়েছে। অপহরণের ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। এর আগেও অপর একটি অপহরণ ও ধর্ষণের ঘটনায় অপহরণকারী শফিকুল ইসলামের বিরুদ্ধে দিনাজপুরের রেলওয়ে থানায় মামলা রয়েছে।

নির্বাচিত সংবাদ