২১ এপ্রিল ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

মুশফিকের ব্যাটিং তাণ্ডবে শীর্ষে চিটাগং

মুশফিকের ব্যাটিং তাণ্ডবে শীর্ষে চিটাগং

মিথুন আশরাফ ॥ বিপিএলে এবার প্রথম দুই ম্যাচে নিজেকে মেলে ধরতে পারেননি। এরপর যে ব্যাট হাতে জ্বলে উঠতে শুরু করলেন মুশফিকুর রহীম, নিজেও দ্যুতি ছড়াচ্ছেন, দলকেও জেতাচ্ছেন। বুধবার যেমন রাজশাহী কিংসের বিপক্ষে ম্যাচটিতেও অপরাজিত ৬৪ রানের ইনিংস খেলেছেন। ৪৬ বলে ৬ চার ও ২ ছক্কায় মুশফিকের করা এ ব্যাটিং তা-বে রাজশাহীকে ৬ উইকেটে হারিয়েছে চিটাগং ভাইকিংস। এ ম্যাচটি জিতে পয়েন্ট তালিকার শীর্ষেও উঠে গেছে মুশফিকের চিটাগং।

মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে বুধবার দিনের প্রথম ম্যাচে টস জিতে চিটাগং। রাজশাহীকে আগে ব্যাট করতে পাঠায়। লরি ইভান্সের ৭৪, ক্রিস্টিয়ান জোঙ্কারের অপরাজিত ৩৬ ও রায়ান টেন ডয়েশ্চেটের ২৮ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে ২০ ওভারে ১৫৭ রান করে রাজশাহী। জবাব দিতে গিয়ে মুশফিকের অসাধারণ ইনিংসের সঙ্গে মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতও (২৬ বলে অপরাজিত ৪৩) ব্যাটিং জৌলুস ছড়ান। দুইজন মিলে আবার পঞ্চম উইকেটে ৮৮ রানের অবিচ্ছিন্ন জুটিও গড়েন। তাতে করে ৪ উইকেট হারিয়ে ১৯.৪ ওভারে ১৫৯ রান করে ম্যাচ জিতে চিটাগং। ঢাকায় লীগের তৃতীয় পর্বে এসে ঢাকা ডায়নামাইটসকে পেছনে ফেলে দেয় চিটাগং। পয়েন্টে শীর্ষস্থান দখল করার সঙ্গে ‘প্লে-অফ’ খেলাও অনেকটা নিশ্চিত করে ফেলে।

বিপিএলের ষষ্ঠ আসরে এসে মুশফিকের নিজের ব্যাটিং নৈপুণ্যের চেয়ে যেন নেতৃত্বই বেশি প্রশংসা কুড়াচ্ছে। এর আগে প্রথম দুই আসর বাদ দিলে আর কোন আসরেই সেরা পাঁচেও থাকতে পারেনি মুশফিকের দল। এমনকি তলানিতেই অবস্থান হয়েছে। কিন্তু এবার মুশফিকের নেতৃত্বে সাত ম্যাচের ৬টিতেই জয় তুলে নেয় চিটাগং। টানা পাঁচ ম্যাচেও জিতে। এর মধ্যে টানা চার ম্যাচের তিনটিতেই ঝড়ো ইনিংস খেলে, হাফ সেঞ্চুরি করে দলকে জেতান মুশফিক।

বিপিএলের প্রথম আসরে দুরন্ত রাজশাহীর হয়ে খেলে সেরা চারে থাকতে পারেন। দ্বিতীয় আসরে সিলেট রয়্যালসকে সেরা চারে ওঠান। তৃতীয় আসর থেকেই তার দলের ভরাডুবি শুরু হয়। এমনকি মুশফিক যে দলে খেলেছেন, সেই দলেরই বারোটা বেজেছে। তৃতীয় আসরে, ২০১৫ সালে সিলেট সুপার কিংসতো ছয় দলের মধ্যে পঞ্চম স্থানে থাকে। চতুর্থ আসরে মুশফিকের বরিশাল বুলসতো সাত দলের মধ্যে সপ্তম হয়। সর্বশেষ পঞ্চম আসরে রাজশাহী কিংসের নেতৃত্বই দেয়া হয়নি মুশফিককে। তার দল সাত দলের মধ্যে ষষ্ঠ হয়। এবার মুশফিকের কাঁধে নেতৃত্ব তুলে দেন চিটাগং কর্তৃপক্ষ। এবার মুশফিক ব্যাট হাতে, উইকেটের পেছনে ও দলের নেতৃত্বে, সবদিকেই ঝলক দেখাচ্ছেন। রাজশাহীকে হারিয়ে পয়েন্ট তালিকার শীর্ষে উঠেছে চিটাগং। সেটি মুশফিকের ব্যাটিং তান্ডবেই সম্ভব হয়েছে। সিলেট সিক্সার্সের কাছে লীগে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচটিতে যদি ৫ রানে না হারতো চিটাগং, তাহলে সাতে সাত জয় হয়ে যেত। তা হয়নি। তবে মুশফিকের ব্যাটিং নৈপুণ্যে যে উড়ছে চিটাগং, সেই ওড়ার ধারাবাহিকতা শেষ পর্যন্ত থাকলে শিরোপাই না আবার নিজেদের করে নেয় মুশফিকের দল। তা সময়ই বলে দেবে। তবে আপাতত মুশফিক যে জৌলুস ছড়িয়ে চলেছেন, তাতেও চিটাগংও শীর্ষে উঠে গেল।