২১ এপ্রিল ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

কানাডায় মসজিদে গুলি করা ব্যক্তির যাবজ্জীবন

কানাডায় মসজিদে গুলি করা ব্যক্তির যাবজ্জীবন

অনলাইন ডেস্ক ॥ কানাডার কুইবেক শহরে একটি মসজিদে গুলি করে মানুষ হত্যার ঘটনায় অভিযুক্ত আলেক্সান্ডার বিসোনেটকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে দেশটির একটি আদালত। এমনকি তিনি ৪০ বছর পর্যন্ত কোনো প্যারোল সুবিধাও পাবেন না।

২৯ বছর বয়সী এ ব্যক্তি ২০১৭ সালে ওই শহরের একটি মসজিদে গুলি চালিয়ে ছয়জনকে হত্যা করেছিলেন এবং এ ঘটনায় আহত হয়েছিলেন আরো পাঁচজন। এদের মধ্যে একজন প্যারালাইজড হয়ে গেছেন।

প্রসিকিউশন এ ঘটনায় শাস্তি হিসেবে ১৫০ বছরের সাজা দাবি করেছিলেন। এটি দেয়া হলে তা হতো কানাডার ইতিহাসে সর্বোচ্চ। বিচারক এক্ষেত্রে তাকে যাবজ্জীবন শাস্তি দিয়েছেন। পাশাপাশি তার স্বাভাবিক জীবনের মধ্যেই যেন তিনি প্যারোল পান, সে ব্যবস্থা করেন। রায় ঘোষণাকালে কিউবেক সুপ্রিম কোর্টের বিচারক বলেন, ‘কোনো শাস্তি প্রতিহিংসামূলক হওয়া উচিত নয়’।

কানাডায় হত্যাকারীর সর্বোচ্চ সাজা যাবজ্জীবন। এক্ষেত্রে খুনীর সাজা হয় ২৫ বছর, যাতে কোনো প্যারোল সুবিধা দেয়া হয় না।

২০১৭ সালের ২৯ জানুয়ারি কুইবেক শহরের কুইবেক ইসলামিক কালচারাল সেন্টারে ভয়াবহ হামলা চালান বিসোনেট আলেক্সান্ডার। এ সময় লোকজন নামাজের জন্য জড়ো হচ্ছিলেন। ওই হামলায় ছয়জন নিহত ও পাঁচজন আহত হন। এদের মধ্যে একজন হচ্ছেন আয়মিন দারবালি, তিনি বর্তমানে প্যারালাইজ হয়ে গেছেন।

সে বছরের মার্চে এক স্বীকারোক্তিতে বিসোনেট হত্যাকাণ্ডের কথা স্বীকার করে জবানবন্দী দিয়েছিলেন।

আদালতে এ ঘটনার জন্য তিনি নিজেকে দায়ী করে বলেন, ‘আমি এ ঘটনার জন্য দুঃখিত। তবে আমি কোনো সন্ত্রাসী নই, ইসলাম-বিদ্বেষীও নই’।

২০১১ সালে কানাডায় আইন সংশোধন করে একাধিক হত্যাকাণ্ডের জন্য প্যারোল সুবিধাবিহীন ২৫ বছর পর্যন্ত সাজার বিষয়টি অনুমোদন করা হয়, যা আগে ছিল ১০ বছর।

২০১৪ সালে তিনজন পুলিশ কর্মকর্তাকে হত্যার দায়ে এক ব্যক্তিকে ৭৫ বছরের সাজা দিয়েছিলেন দেশটির একজন বিচারক।