১০ ফেব্রুয়ারী ২০১৯

বিশ্ব ইজতেমার প্রস্তুতি শেষ পর্যায়ে

বিশ্ব ইজতেমার প্রস্তুতি শেষ পর্যায়ে

অনলাইন রিপোর্টার ॥ গাজীপুরে টঙ্গীর তুরাগ তীরে বিশ্ব ইজতেমার প্রস্তুতি প্রায় শেষ পর্যায়ে। ইজতেমার ময়দান প্রস্তুত করার কাজে ব্যস্ত শতশত মুসল্লি। তুরাগ নদী পারাপারে সুবিধার জন্য আটটি ভাসমান সেতু স্থাপনের কাজ শুরু করেছেন সেনাবাহিনীর সদস্যরা। ইজতেমা সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে সার্বিক প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে জেলা প্রশাসন ও মেট্রোপলিটন পুলিশ।

টঙ্গীর তুরাগ তীরে আগামী ১৫ ফেব্র“য়ারি শুরু হচ্ছে মুসলিম বিশ্বের অন্যতম বৃহৎ ধর্মীয় জামায়েত বিশ্ব ইজতেমা। দুই পর্বের পরিবর্তে এবারের ইজতেমা অনুষ্ঠিত হবে এক পর্বেই। প্রথম দুই দিনের কার্যক্রম পরিচালিত হবে মাওলানা মোহাম্মদ জোবায়েরের তত্ত্বাবধানে। আর শেষ দুই দিন পরিচালিত হবে সৈয়দ ওয়াসিফুল ইসলামের তত্ত্বাবধানে।

এখন পুরোদমে চলছে ইজতেমার ময়দান প্রস্তুতির কাজ। তুরাগ তীরে দিনরাত কাজ করছেন শত শত মুসল্লি। মূল বয়ান মঞ্চসহ প্রয়োজনীয় অবকাঠামো তৈরির কাজ করছেন তারা। তুরাগ নদী পারাপারের জন্য সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে ৮টি অস্থায়ী সেতু নির্মাণের কাজও চলছে। বিদেশি মেহমানদের জন্য এবারও আলাদা খিত্তায় থাকা-খাওয়ার আয়োজন করা হচ্ছে।

গাজীপুরের জেলা প্রশাসক দেওয়ান মুহাম্মদ হুমায়ূন কবীর জানালেন, বিশ্ব ইজতেমায় আসা দেশ-বিদেশের ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা যাতে সুষ্ঠুভাবে সব আনুষ্ঠানিকতা পালন করতে পারেন সেজন্য অবকাঠামোগত প্রস্তুতির কাজ এখন চূড়ান্ত পর্যায়ে।

এদিকে, ইজতেমার সার্বিক নিরাপত্তা নিয়ে তৎপর গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ। গড়ে তোলা হয়েছে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা। পুরো ইজতেমা ময়দানে থাকবে সিসি ক্যামেরা ও কন্ট্রোলরুম। রয়েছে ওয়াচ টাওয়ার। এছাড়াও ইজতেমা ময়দানের ভেতরে ও বাইরে সাদা পোশাকে পুলিশ নজরদারি করবে বলে জানিয়েছেন জেলা পুলিশ কমিশনার ওয়াই. এম. বেলালুর রহমান।

অন্যান্য বছর জানুয়ারি মাসে বিশ্ব ইজতেমার আয়োজন করা হলেও এবার তাবলিগ জামাতের সা’দপন্থী ও জোবায়েরপন্থী মুসল্লিদের মাঝে অনৈক্য ও সংঘর্ষের প্রেক্ষিতে আয়োজন পেছানো হয়।