২০ ফেব্রুয়ারী ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ফের শাট ডাউনের মুখে!

  • রিপাবলিকান-ডেমোক্র্যাট আলোচনা থমকে গেছে

সীমান্ত নিরাপত্তা নিয়ে সমঝোতায় পৌঁছানো এবং সরকারের আরেকটি অচলাবস্থা এড়ানোর লক্ষ্যে যুক্তরাষ্ট্রের রিপাবলিকান ও ডেমোক্র্যাট আইনপ্রণেতাদের মধ্যে চলমান আলোচনা থমকে গেছে।

মধ্যস্থতাকারীরা সোমবারের মধ্যে একটি চুক্তিতে পৌঁছে প্রস্তাব আকারে তা শুক্রবারের মধ্যে পাস করাতে চাইছিলেন। কারণ যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে সবচেয়ে দীর্ঘদিন ধরে চলা আংশিক অচলাবস্থা অবসানে ২৫ জানুয়ারিতে হওয়া তিন সপ্তাহের চুক্তিটির সময়সীমা শুক্রবার শেষ হবে। খবর বিবিসি, ফক্স নিউজ ও ওয়েবসাইটের।

নতুন কোন সমঝোতা চুক্তি ছাড়া শুক্রবারের সময়সীমা পার হলে ফের আংশিক অচলাবস্থায় পড়বে যুক্তরাষ্ট্র সরকার। এর আগে কাটানো একটানা ৩৫ দিন আংশিক অচলাবস্থা একটি রেকর্ড। যুক্তরাষ্ট্র-মেক্সিকো সীমান্তে দেয়াল তোলার জন্য প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের দাবিকৃত অর্থবিলই দুই পক্ষের মতভেদের কেন্দ্রে অবস্থান করছে বলে খবরে বলা হয়েছে। অভিবাসীদের আটক করার নীতি নিয়ে ডেমোক্র্যাট ও রিপাবলিকান আইনপ্রণেতাদের মধ্যে বিরোধের পর চলমান আলোচনা থমকে যায় বলে রবিবার জানিয়েছেন রিপাবলিকান সিনেটর রিচার্ড শেলবি। আলোচনায় রিপাবলিকানদের নেতৃত্ব দিচ্ছেন তিনি।

নিউইয়র্ক টাইমসের খবরে বলা হয়, ডেমোক্র্যাটরা চায় মার্কিন ইমিগ্রেশন এ্যান্ড কাস্টমস এনফোর্সমেন্টের (আইসিই) ডিটেনশন সেন্টারগুলোতে যে পরিমাণ বিছানা আছে তা কমানো হোক এবং ভিসার মেয়াদ শেষ হওয়ার পরও যারা অবস্থান করছে তাদের বদলে যেসব অভিবাসীর বিরুদ্ধে অপরাধের রেকর্ড আছে তাদের আটক করুক আইসিই কর্মকর্তারা।

ওয়াশিংটন পোস্ট উল্লেখ করেছে, ডিটেনশন সেন্টারে ১৬ হাজার পাঁচ শ’ বিছানা রাখতে চায় ডেমোক্র্যাট সদস্যরা। ওবামা সরকারের শেষ বছরে এই সাড়ে ১৬ হাজার লোককে আটক করা হয়েছিল। এসব শর্তের বিনিময়ে রিপাবলিকানদের সীমান্ত দেয়ালের জন্য কিছু অর্থ ছাড়ের প্রস্তাব দিয়েছে তারা। কিন্তু তা ট্রাম্পের প্রস্তাবিত সীমান্ত দেয়াল নির্মাণের জন্য যে অর্থ প্রয়োজন (৫.৭ বিলিয়ন ডলার) তার চেয়ে অনেক কম। প্রতিবেদনে আরও উল্লেখ করা হয়, আলোচকরা প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের প্রস্তাবিত সীমান্ত দেয়ালের জন্য ১.৩ বিলিয়ন ডলার থেকে সর্বোচ্চ দুই বিলিয়ন ডলার দেয়ার পক্ষে। রবিবার ফক্স নিউজকে শেলবি বলেছেন, আমরা সেখানে পৌঁছতে পারব বলে মনে হচ্ছে না। চুক্তির সম্ভাবনা ৫০-৫০। অচলাবস্থার অপচ্ছায়া সব সময়ই ঘিরেছিল।

কংগ্রেসে ডেমোক্র্যাট আলোচক জন টেস্টার সমঝোতার বিষয়ে আশাবাদ ব্যক্ত করে রবিবার ফক্স নিউজকে বলেন, নতুন অচলাবস্থা কাটিয়ে উঠতে সময়মতো একটি সমঝোতা হবে। তিনি বলেন, এটি একটি সমঝোতা প্রক্রিয়া। সমঝোতায় পৌঁছানোর পথ সব সময় সহজ হয় না। ডেমোক্র্যাট নেতারা মধ্যস্থতাকারীদের একটি সমঝোতায় পৌঁছতে বাধা দিচ্ছেন বলে অভিযোগ করেছেন ট্রাম্প। গত মাসে তিনি আলোচনাকে ‘সময়ের অপচয়’ বলে মন্তব্য করেছিলেন। নতুন করে ফের অচলাবস্থা শুরু হলে যুক্তরাষ্ট্রের হোমল্যান্ড সিকিউরিটি, পররাষ্ট্র, কৃষি ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয় ফের অর্থ সঙ্কটে পড়বে। এর ফলে কেন্দ্রীয় সরকারের প্রায় আট লাখ কর্মচারী বেতন পাবে না। এর আগের অচলাবস্থার সময় বেশ কিছু কর্মচারীকে বেতন ছাড়াই কাজ করতে হয়েছে। কিন্তু তাদের অনেকেই অসুস্থ হয়ে পড়েন।

নির্বাচিত সংবাদ